চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অভিনয়ের জন্য রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে ক্ষতি করেছি: উর্মিলা

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মহিলা উপ-কমিটিতে জায়গা পেয়েছেন অভিনেত্রী উর্মিলা শ্রাবন্তী কর

৫০ সদস্য বিশিষ্ট আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মহিলা উপ-কমিটিতে জায়গা পেয়েছেন দুই অভিনেত্রী তানভীন সুইটি ও উর্মিলা শ্রাবন্তী কর। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এ কমিটির অনুমোদন দেন।

কমিটিতে স্থান পাওয়ায় ভীষণ আনন্দিত উর্মিলা। সন্ধ্যায় চ্যানেল আই অনলাইনকে তিনি বললেন, ‘একেবারে তৃণমূল কর্মী ছিলাম। সেখান থেকে এ পর্যন্ত আসার জার্নিটা একেবারেই অন্যরকম। এটা আমার জীবনের অন্যরকম প্রাপ্তি।’

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

শিক্ষার্থী থাকাকালীন রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন উর্মিলা। উচ্চ মাধ্যমিকের গণ্ডি টপকানোর সঙ্গে সঙ্গে রাজনীতিতে সক্রিয় কর্মী হয়ে ওঠেন। তিনি বলেন, রাজনীতিতে জড়িত এগার বছর ধরে। সংগঠনের জন্য অনেক কিছু করেছি। সবসময় সক্রিয় ছিলাম। প্রিয় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান পাওয়াটা আমার কাছে ভাগ্যের ব্যাপার।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় কমিটির মহিলা সম্পাদিকা ছিলেন লাক্সতারকা উর্মিলা। তিন বছর কমিটির ওই পদে থেকে নানামাত্রিক রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়িয়েছিলেন তিনি। বললেন, সবসময় ন্যায় নীতির রাজনীতি করেছি। ভালোর সঙ্গে থেকেছি। মানুষের ক্ষতি হয় এমন রাজনীতি কখনই করিনি। ভবিষ্যতেও করবো না।

বিজ্ঞাপন

উর্মিলার রাজনীতিতে আসাটা তিনি প্রভাবিত হয়েছেন নিজ পরিবার থেকে। বললেন, আমার পরিবার মুক্তিযোদ্ধা পরিবার। দাদা শহীদ হয়েছিলেন। পরিবারের বেশিরভাগ মানুষ মুক্তিযুদ্ধের সঙ্গে জড়িত। যুদ্ধের বছর আমাদের গ্রামের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেয়া হয়েছিল। ছোট থেকেই দেখে এসেছি পরিবার স্বাধীনতার পক্ষে ছিল। আমার পরিবারে সবসময় রাজনৈতিক পরিবেশ বিরাজ করতো, সবসময় এসব নিয়ে আলোচনা হতো।

মুক্তিযুদ্ধের যে চেতনা ছোট থেকেই দেখে বড় হয়েছি, সেই চেতনায় আওয়ামী লীগ ওতপ্রোতভাবে জড়িত। সেই জায়গা থেকে ছোট থেকেই আওয়ামী লীগের প্রতি ভালো লাগা ছিল বলে জানান ছোটপর্দার ব্যস্ত অভিনেত্রী উর্মিলা। তিনি বলেন, যখন এইচএসসি শেষ করলাম তার পর থেকে রাজনীতিতে জড়িয়ে যাই। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে মহিলা সম্পাদিকা’র পাশাপাশি আইন ছাত্র পরিষদের জয়েন্ট সেক্রেটারি ছিলাম।

অভিনয় নাকি রাজনীতি কোনটিকে প্রাধান্য দেবেন জানতে চাইলে উর্মিলা বলেন, অভিনয়ের জন্যই আমার রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের অনেক ক্ষতি করেছি। অভিনয়ে না থাকলে রাজনীতিতে আরও সক্রিয় হতে পারতাম। ওটাই আমার পরিচয় হতো। তবে আমার অভিনয় যেহেতু মানুষ পছন্দ করে তাই রাজনীতি অভিনয় দুটোই থাকবে। মহিলা উপকমিটিতে যেহেতু আমি রয়েছি, এখানে মহিলাদের সম্পর্কিত বিষয় নিয়ে কাজ করতে হবে।

রাজনৈতিক ক্যারিয়ার নিয়ে ভবিষ্যতে উর্মিলা নিজেকে কোথায় দেখতে চান? জানতে চাইলে মুচকি হেসে এড়িয়ে যান ২০০৯ সালের লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রযোগিতা থেকে উঠে আসা উর্মিলা। তিনি বললেন, দল যেখানে আমাকে যোগ্য মনে করে চাইবে সেখানে আমি থাকবো। ব্যক্তিগত কোনো চাওয়া নেই। যে পদে আমাকে রাখা হয়েছে এ জন্য দলের কাছে কৃতজ্ঞ। সবার দোয়া আশীবার্দ নিয়ে এগিয়ে যেতে চাই।