চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘অগ্নিপথ’ নির্মাতা এখন অস্ট্রেলিয়ার স্থায়ী নাগরিক

কিস্তিমাত, গ্যাংস্টার, এবং সর্বশেষ ‘মুসাফির’নির্মাণ করে ঢাকাই মেইনস্ট্রিম চলচ্চিত্রে নতুন ধারার সিনেমার জন্ম দেন তরুণ নির্মাতা আশিকুর রহমান। বিশেষ করে অ্যাকশন ঘরানার সিনেমায় তিনি এরইমধ্যে দর্শকের কাছে বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। মুক্তির প্রতীক্ষায় আছে তার নির্মাণে দেশের তারকা অভিনেতা শাকিব খান অভিনীত বহুল আলোচিত সিনেমা ‘অপারেশন অগ্নিপথ’। অথচ এরমধ্যেই শোনা গেল এই নির্মাতা স্থায়ীভাবে অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকত্ব লাভ করেছেন।

তুলনামূলক কম বাজেটের মধ্যেও হলি-বলি স্টাইলে করা নির্মাতা আশিকুরের সিনেমাগুলো বেশ পছন্দও করেছে বাংলাদেশের দর্শক। সেইসাথে বাণিজ্যও করে নিতে পেরেছে ছবিগুলো। তার নির্মাণে বর্তমানে অর্ধ সমাপ্ত বহুল আলোচিত সিনেমা ‘অপারেশন অগ্নিপথ’! যে ছবিতে অসাধারণ লুকে এরইমধ্যে দেখা গেছে সুপারস্টার শাকিব খানকে! ছবিটি নিয়ে বাংলার দর্শক বেশ আগ্রহী হয়ে আছে। যদিও ছবির বাকি শুটিং কবে শেষ করবেন সে বিষয়ে সন্দিহান স্বয়ং নির্মাতাই। আর এরমধ্যে অস্ট্রেলিয়ায় স্থায়ীভাবে বসবাস করার গ্রীন সিগন্যাল পেয়েছেন নির্মাতা আশিকুর রহমান।

বিজ্ঞাপন

অস্ট্রেলিয়ায় স্ত্রীসহ স্থায়ী নাগরিকত্ব পাওয়ার পর মঙ্গলবারে ফেসবুকে বিষয়টি নিজেই জানিয়েছেন আশিকুর। নাগরিকত্ব পাওয়ার খবরে তিনি বলেন, মহান আল্লাহ পাকের অসীম কৃপায় অত্যন্ত আনন্দের সাথে জানাচ্ছি যে, ২৮ নভেম্বার(মঙ্গলবার) আমি অস্ট্রেলিয়ার স্থায়ী নাগরিকত্ব লাভ করেছি। আমার সাথে আমার স্ত্রীও অস্ট্রেলিয়ার স্থায়ী নাগরিকত্ব লাভ করেছে।

আসছে বছর থেকে অস্ট্রেলিয়ায় স্থায়ীভাবে বসবাস করবেন বলেও জানান এই নির্মাতা। ভবিষ্যতে বাংলাদেশ বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ান হিসাবে বাংলাদেশের সুনাম অক্ষুণ্ণ রাখার প্রত্যাশা জানিয়ে এই নির্মাতা জানান, গভীর কৃতজ্ঞতা আমার সকল বন্ধু, শুভানুধ্যায়ী, ফ্যান, টিম মেম্বার সবাইকে, যারা আমাকে বাংলাদেশে এত দিন সাপোর্ট দিয়েছেন এবং সামনে সাপোর্ট দিয়ে যাবেন। আপনাদের ভালবাসা আমাকে কঠিন সময়গুলোতে অনেক সাহস ও উৎসাহ যুগিয়েছে। ভবিষ্যতে যেন একজন বাংলাদেশ বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ান হিসাবে বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করতে পারি, সেই দোয়া করবেন।

এমনিতেই বহুদিন ধরে আটকে আছে বহুল আলোচিত ‘অপারেশন অগ্নিপথ’ ছবিটি। শিল্পী সমিতির পালাবদল নিয়ে শাকিব-মিশার দ্বন্দ্বে ছবিটির শুটিং এখনো অসমাপ্ত। নির্মাতা নিজেও এই বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেননি। আর এরমধ্যে তার অস্ট্রেলিয়ায় স্থায়ীভাবে বসবাসের খবরে ‘অপারেশন অগ্নিপথ’-এর ভবিষ্যত নিয়ে শঙ্কায় দেশের সিনে-দর্শকরা। দেখা যাক, শেষ পর্যন্ত ছবিটি সমাপ্ত হয় কিনা!

বিজ্ঞাপন