চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Cable

‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ নিয়ে সমালোচনার ব্যাখ্যা দিলেন অমি

Nagod
Bkash July

আগের তিন সিজনের মতো এবারও ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ জমিয়ে তুলেছেন কাজল আরেফিন অমি। এই পরিচালকের নির্মাণ মুন্সিয়ানায় সাফল্যের ধারাবাহিকতায় নাটকটি সিজন ৪-এ ৭৭ পর্ব প্রচার হয়েছে।

Reneta June

তবে সম্প্রতি প্রচারিত একটি পর্বে অভিনেতা মারজুক রাসেলের মুখে ‘যৌন কর্মীর ছেলে’ সংলাপটি তুমুল সমালোচনার জন্ম দিয়েছে।

নাটকের ওই সংলাপের অংশটুকুর ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে! যার ফলে কিছুটা সমালোচনা শুনতে হয়েছে পরিচালক অমি ও তার টিমকেও! তবে ‘যৌন কর্মীর ছেলে’ সংলাপে প্রচারিত পর্বটি ইউটিউব থেকে ‘প্রাইভেট’ করেছেন বলে চ্যানেল আই অনলাইনকে জানান কাজল আরেফিন অমি।

সময়ের আলোচিত এই নির্মাতা বলেন, গালিটিকে অন্যভাবে অন্য উদ্দেশ্যে ব্যবহার হয়েছে। যারা নিয়মিত দর্শক, যাদের জন্য আমি নাটক বানাই তারা কিন্তু ঠিকই পছন্দ করেছে। আমি যখন বুঝবো আমার দর্শকরা পছন্দ করছে না অবশ্যই সেটা আমি করবো না। অন্য দর্শকদের কথা মাথায় রেখে ‘যৌন কর্মীর ছেলে’ সংলাপের পর্বটি প্রাইভেট করা হয়েছে। যারা আজকে খারাপ বলছে তারাও আমার দর্শক। এর আগে তারা আমার ‘ভাইরাল গার্ল’, ‘আপন’ পছন্দ করেছিল।

তাদের প্রতি সম্মান জানিয়ে রবিবার বিকেলে পর্বটি প্রাইভেট করা হয়েছে। পুনরায় এডিট করে বিপটোন বসিয়ে আবার আপলোড করা হবে।

কিন্তু পরিচালক অমির কথা অন্যখানে। ব্যাখ্যা দিয়ে তিনি যেমনটা বললেন, বাংলাদেশে কি প্রথম কোনো নাটক-সিনেমায় গালি ব্যবহার করে হয়েছে? সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া সিনেমাতেও গালি এর চেয়ে বেশি। ওটিটির কনটেন্টে আরও সিরিয়াস গালি ব্যবহার করা হচ্ছে। দেশের ওটিটি কনটেন্টেও নিয়মিত দেখা যাচ্ছে। ওগুলো নিয়ে কারো মাথা ব্যথা নেই। মাথা ব্যথা শুধু ব্যাচেলর পয়েন্ট নিয়ে!

অমি বলেন, ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’র প্রতি পর্বের শুরুতে ডিসক্লেইমার দেওয়া থাকে এটি এডাল্ট কনটেন্ট এবং গল্পের প্রয়োজনে কিছু কিছু জায়গায় আপত্তিকর শব্দ ব্যবহার হবে। যদি কেউ অল্পতে বিব্রত হয়ে থাকেন তাহলে দেখা থেকে বিরত থাকুন। এরপরেও যদি কেউ তার পরিবার ও বাচ্চাদের নিয়ে নাটকটি দেখে তাহলে তার নিজের দায়িত্বে দেখবেন।

‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’-এর সমালোচনা প্রসঙ্গে কাজল আরেফিন অমি বলেন, যখন থেকে এই কাজটি জনপ্রিয়তা পেয়েছে, তখন থেকে অনেকেই এটার বিরুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ছে। কিন্তু গুটিকয়েক মানুষের এসব কথা নিয়ে আমার মাথাব্যথা নেই। এটা আসলে দৃষ্টিভঙ্গির ব্যাপার। যদি কেউ মনে করেন এই কনটেন্ট তার সঙ্গে যায় না, তাহলে তিনি তা দেখবেন না; এটাই সিম্পল নয় কী! তবে একটা কথা না বললেই নয়, দেশের বড় বড় সম্মানিত পেশার অনেকে আমাকে ফোন করে জানিয়েছে, তারা ব্যাচেলর পয়েন্টের পর্বগুলো দেখে উপভোগ করেন। তাদের কথায় আমি বরং বেশি অনুপ্রাণিত হয়েছি।

নির্মাতা হিসেবে সামাজিক দায়বদ্ধতার কথা উল্লেখ করে কাজল আরেফিন অমি বলেন, আমি শিক্ষার জন্য নয়, বিনোদন দিতে কাজ করি। তবে হ্যাঁ নির্মাতা হিসেবে আমার দায়বদ্ধতা আছে। ব্যাচেলর পয়েন্টে দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে শক্তিশালী বন্ধুত্ব, বাড়িওয়ালা ও ভাড়াটিয়ার দায়িত্ববোধ, ভাইয়ের প্রতি আদর-শাসন দেখাচ্ছি। এগুলো নিয়ে কেউ কথা বলে না। সবাই দেখে গালিটা কখন দিল! আর এই গালি তো আমার নাটকে প্রথম আসে নাই। এখানে কোনো ব্যক্তিমানুষ কিন্তু গালি দেয় নাই, দিয়েছে তার চরিত্র। স্ক্রিনে সে যেমন চরিত্র পোর্ট্রে করে তার মুখ থেকে তেমন কথাই আসবে!

ধ্রুব টিভির ইউটিউবে সপ্তাহে শুক্র থেকে রবি এই তিনদিন প্রচারিত হয় ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’। এর বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করছেন জিয়াউল হক পলাশ, মিশু সাব্বির, মারজুক রাসেল, চাষী আলম, ফারিয়া শাহরিন, পারসা ইভানা, শিমুল শর্মা, মনিরা মিঠু, আবদুল্লাহ রানা, সাবিলা নূর, শরাফ আহমেদ জীবন, পাভেল প্রমুখ।

BSH
Bellow Post-Green View