চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Cable

‘বাউন্সি উইকেটে খেলার সামর্থ্য’ থাকায় বিশ্বকাপ দলে শান্ত

Nagod
Bkash July

লিটন দাসের সঙ্গে ওপেনার হিসেবে নির্বাচকদের ভাবনায় ছিলেন অনেকেই। যার মধ্যে সৌম্য সরকারের নামও ছিল। কিন্তু সবাইকে বিস্মিত করে টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পেয়েছেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

Reneta June

টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট শ্রীধরন শ্রীরামের ক্যাম্প শান্তর সুযোগ পাওয়ার প্রভাবক হিসেবে কাজ করেছে, এ কথা বলাই যায়। কেননা প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু তাকে দলে ফেরানোর ব্যাখ্যায় সুস্পষ্ট কারণ বলতে পারেননি!

তবে শ্রীরাম জানিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশন বিবেচনায় শান্তকে দলে রাখা, ‘আমি মনে করি সে অনেক ভালো খেলোয়াড়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য প্রয়োজনীয় টেম্পারমেন্ট আছে। অল্পবিস্তর যা দেখেছি, ব্যাটিং করতে দেখেছি, মনে হয়েছে ওর সেই টেম্পারমেন্ট আছে। এছাড়া বাউন্সি উইকেটে খেলার মতো সামর্থ্য ওর রয়েছে যে হরিজন্টাল শট খেলতে পারে। তাই আমার মনে হয়, আমরা যে ইমপ্যাক্ট খুঁজছি সেটি ওর মধ্যে রয়েছে।’

অস্ট্রেলিয়ায় কাজ করা ভারতীয় কোচ শ্রীরামের মতো পারফরম্যান্সের চেয়ে প্রভাব বিস্তারকারী বিষয় বেশি গুরুত্বপূর্ণ টি-টুয়েন্টিতে।

‘যেটা খুঁজছি, সেটা হল ইমপ্যাক্ট। এখন পারফরম্যান্স খুঁজছি না। বাংলাদেশ যেমন দল, তাতে ৭-৮ জন ইমপ্যাক্ট ফেলতে পারলেও জিতে যাবে। তো ১৭-১৮ বলে ২৫-৩০ রান করতে পারলে সেটিই আমার জন্য ইমপ্যাক্ট। আপনাদের একটা উদাহরণ দিতে চাই। (এশিয়া কাপে) রিয়াদ আউট হওয়ার পর মোসাদ্দেক যেভাবে হাসারাঙ্গার ওভারে চড়াও হয়ে ১২ রান নিয়ে নিলো, সেটি হল ইমপ্যাক্ট।’

‘তাই দল হিসেবে আমাদের এমন খেলোয়াড় খুঁজতে হবে যারা ম্যাচে ইমপ্যাক্ট রাখবে। পারফরম্যান্স খুঁজে লাভ নেই। আমার মতে টি-টুয়েন্টিতে পারফরম্যান্স ওভাররেটেড বিষয়। নিয়মিত পারফর্ম করেও সবসময় ম্যাচ জেতা যায় না। কিন্তু যত বেশি খেলোয়াড় ম্যাচে ইমপ্যাক্ট রাখবে, ম্যাচ জেতার সুযোগ বেড়ে যাবে।’

BSH
Bellow Post-Green View