চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রকেট্রি নিয়ে ছুটছেন মাধবন

১ জুলাই মুক্তি সামনে রেখে ‘রকেট্রি’র প্রচারণায় ব্যস্ত আর মাধবন

বিশ্বব্যাপী ১ জুলাই মুক্তি পেতে যাচ্ছে আর মাধবন অভিনীত, পরিচালিত ও প্রযোজিত প্রথম সিনেমা ‘রকেট্রি: দ্য নাম্বি এফেক্ট’। ভারতে এই প্রথম কোন সিনেমা যেখানে একাধারে ইংরেজি, হিন্দি ও তামিলে শুটিং হয়েছে দেশ বিদেশের বিভিন্ন লোকেশনে।

মাধবনের কথায়, ‘ছয় বছর লেগেছে আমাদের এই স্বপ্নপূরণ করতে। মাঝের দুই বছর কোভিডের জন্য আমরা কাজ করতে পারিনি। এই প্রথম কোন ভারতীয় সিনেমায় রকেট ইঞ্জিন দেখানো হবে। হিন্দি ও ইরেজি ভার্সনে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে রয়েছেন শাহরুখ খান আর তামিল সেই চরিত্র করছেন দক্ষিণের আরেক সুপারস্টার সুরিয়া।’

Reneta June

ভারতে এর আগে বায়োপিকের ক্ষেত্রে দেখা গেছে খেলোয়াড় বা রাজনীতিবিদ নিয়ে নির্মাণের প্রবণতা বেশি, কিন্তু বৈজ্ঞানিক কর্মকাণ্ড নিয়ে বায়োপিক এই প্রথমবার। এই সিনেমায় নাম্বি নারায়ানানের চরিত্রে অভিনয় করা মাধবন কোন প্রস্থেথিক ব্যবহার করেননি। ২৯ থেকে ৭৯ বছর, এই দীর্ঘ সময় বড়পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে যে তাকে কসরত করতে হয়েছে, তা নিয়েও কোন দ্বিমত নেই।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু কেন এই বিষয় নিয়ে সিনেমা? সেই প্রসঙ্গেই এবার মুখ খুললেন মাধবন। রাখঢাক না রেখে তিনি বলেছেন, ‘নাম্বি নারায়ানান ভারতের একজন অন্যতম সেরা বৈজ্ঞানিক। ইসরোর ইতিহাসে ওনার অবদান ভোলার নয়। কিন্তু এই মানুষটিকেই যখন অপবাদ দেওয়া হল, চোর বলা হল, তখন সবচেয়ে বড় অবিচার করা হয়েছে। কিন্তু বাস্তবের মুখে দাঁড়িয়ে নিঃসন্দেহে এই মানুষটি, যিনি পরবর্তীকালে নির্দোষ প্রমাণিত হয়েছেন, তাকে জানা দরকার।’

তিনি বলেন, ‘মহাকাশের পৃথিবীতে ভবিষ্যৎ লুকিয়ে আছে আমাদের। তাই এই মানুষটির জীবন গুরুত্বপূর্ণ। আমি যখন সরাসরি এই মানুষটির সাথে কথা বলেছি, তখন বিশ্বাস করেছি এই সিনেমাটি খুব জরুরি। ব্যক্তিগতভাবে এই কাজের ক্ষেত্রে আমি অভিনেতা ও পরিচালক, এই দুই ভূমিকা খুবই উপভোগ করেছি।’

সম্প্রতি ছবিটির প্রচারণায় কলকাতায় গিয়েছিলেন আর মাধবন। এছাড়াও বর্তমানে হায়দরাবাদ সহ আরও বেশ কিছু জায়গায় ছবিটির প্রচারণার জন্য যাচ্ছেন তিনি।