চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘হিরো তো সবাই হতে চায়, কিন্তু আমি চাই ভিলেন হতে’

Nagod
Bkash July

ওপার বাংলার ‘মীরাক্কেল আক্কেল চ্যালেঞ্জার ৯’-এর মঞ্চ থেকে বেরিয়ে অভিনয়ে আসেন সাইদুর রহমান পাভেল। নাটকের অভিনেতা হিসেবে তিনি এখন সবার পরিচিত মুখ।

Reneta June

পাভেল জানান, অভিনেতা হিসেবে তাকে বেশী পরিচিতি এনে দিয়েছে কাজল আরেফিন অমির সিরিয়াল ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’।

দু’দিন আগে এই নির্মাতার ওয়েব সিরিজ ‘হোটেল রিল্যাক্স’-এর শুটিং করছিলেন পাভেল। পুরান ঢাকায় শুটিং সেটে আলাপ হচ্ছিল এই অভিনেতা সঙ্গে।

গল্প-আড্ডায় পাভেল জানাচ্ছিলেন, তার ড্রিম ক্যারেক্টার ভিলেন হওয়া। বলছিলেন, খুব ইচ্ছে আমি ভিলেন হতে চাই। হিরো তো সবাই হতে চায়, কিন্তু আমি ভিলেন হতে চাই।

মজা করে পাভেল বলেন, স্ক্রিনে ভিলেন হওয়ার সুবিধা বেশী। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ভিলেন বড়লোক থাকে। ভিলেনরা গরীব থাকে না। ফার্স্ট টু লাস্ট মজা নেয়। হয়তো শেষে গুলি খেয়ে মারা যায়। বেশীরভাগই দেখা যায় হিরোরা গরীব থাকে। আমি কারো মত ভিলেন হতে চাই না, নিজের মত হতে চাই।

২০১৫-১৬ সালে মীরাক্কেলের সেই সিজনে ফেসবুক ভোটে প্রথম হয়েছিলেন ঢাকার মিরপুরের (পল্লবী) পাভেল। তবে চূড়ান্ত রায়ে তিনি হয়েছিলেন দ্বিতীয় রানারআপ। পরে দেশে ফিরে বিভিন্ন স্টেজ শো করতেন। টুকটাক কাজ করে যাচ্ছিলেন। কিন্তু সেই কাজগুলো দর্শকদের মধ্যে ছড়াচ্ছিল না।

আক্ষেপ প্রকাশ করে পাভেল বলেন, মীরাক্কেল প্রচারের পর যেভাবে মাতামাতি হতো, দেশকে রিপ্রেজেন্ট করছি বলে গর্ব করা হতো সেটা ছিল মুখে মুখে। যারা গর্ব করতো, দেশে ফেরার পর তাদের অনেকেই আমাকে ঠকিয়েছেন। আমার সঙ্গে এটা অনেকবার হয়েছে। কোনো ইভেন্টে পারিশ্রমিক নিয়ে চুক্তি করে গেলে পরে দেখা যেত পারিশ্রমিক যা বলতো প্রায় অর্ধেক মেরে দিত। আরও সুযোগ দেয়া হবে, কাজ করে যাও বলে বারবার আশ্বাস দেয়া হতো।

পাভেল জানান, তাকে প্রথম অভিনয়ে ডাক দেন তপু খান, নাটকটির নাম ছিল ‘কট বিহাইন্ড’। পরে টুকটাক নাটক করছিলেন, কিন্তু গণমানুষের কাছে পৌঁছুতে পারছিলেন না। পাভেলের ভাষ্য, আশফাকুর রহমান রবিন ভাইয়ের রেফারেন্সে অমি ভাইয়ের ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ সিরিয়ালে জাকির চরিত্র পাই। এরপর লাইফের গতিপথ চেইঞ্জ হয়ে গেছে। আমি সবসময় চেষ্টা করে যাচ্ছি আমার কাজ দিয়ে মানুষকে আনন্দ দিতে।

‘আমি মীরাক্কালের পাভেল আছি, সবসময় থাকবো। কিন্তু অভিনেতা হওয়ার জন্য বজরা বাজারের জাকির চরিত্রটি হেল্প করেছে। এখন আমার ফোকাস অভিনয়ে। আমি অভিনেতা হিসেবে বাকি জীবন কাটাতে চাই। বুড়ো হয়ে গেলে যদি বাবার চরিত্র পাই, সেই সময়ও অভিনয় করতে চাই।’

‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ নাটকে বজরা বাজারের জাকির চরিত্রের মাধ্যমে ব্যাপকভাবে আলোচিত পাভেল। একই নির্মাতার ফিমেল (১-২), দই, ব্যাচেলরস ফুটবল নাটকগুলো দিয়ে তার আরও পরিচিতি বাড়ে। আরেকটি উল্লেখযোগ্য কাজ ছিল ‘স্ট্যাট্যাস’ শর্টফিল্ম, যেখানে পাভেল মহল্লার বড়ভাই চরিত্র করেন। পাভেল বলেন, প্রতিটি চরিত্রই আমাকে নতুন দর্শক এনে দিয়েছে। মানুষজন রাস্তায় আমাকে জাকিরা, জাকির হোসেন নেইমার বলে ডাকে।

 

BSH
Bellow Post-Green View