চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে কাজ করা ‘অন দ্য ওয়ে’ পেল যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগ

‘নারী হোক উদ্যোক্তা’- এই মূলমন্ত্র নিয়ে কাজ করছে ‘অন দ্য ওয়ে’। উদ্দেশ্য একটাই,নারী উদ্যোক্তাদের সাথে নিয়ে পথ চলতে হবে বহুদূর। অন দ্য ওয়ে প্ল্যাটফর্মটি ইতোমধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে স্টার্টআপ লোন এবং বাংলাদেশ আইসিটি মিনিস্ট্রি এর আইডিয়া প্রোজেক্ট থেকে বিনিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছে। সম্প্রতি তাদের একটি বড় প্রাপ্তি তারা আমেরিকা থেকে বিনিয়োগ পেয়েছেন ।

“অন দ্য ওয়ে” এর সিইও আফরিন নাহার জানান, করোনার সময়ে “অন দ্য ওয়ে ” এর এই প্ল্যাটফর্মটি তৈরির উদ্যোগ নেয়া হয় এবং প্ল্যাটফর্ম তৈরির কাজ শুরু করা হয়। তিনি মনে করেন-একজন নারী যদি তার নিজ সংসারের সিইও হতে পারেন তাহলে ব্যবসায়ীক জগতে তার দায়িত্ব এবং চেষ্টা দ্বারা উদ্যোক্তা হিসেবে সাফল্য অবধারিত।

Reneta June

বাংলাদেশের যেকোন প্রান্ত থেকে সকল নারী উদ্যোক্তা যেন একসাথে একটি প্লাটফর্মে কাজ করতে পারেন তার জন্য প্ল্যাটফর্মটি কিছু ডিজিটাল সিস্টেম তাদের আওতায় এনেছে। প্ল্যাটফর্মটি একটি অ্যাপ তৈরি করেছে, যে অ্যাপটির মাধ্যমে নারী উদ্যোক্তা হতে আগ্রহী অথবা নারী উদ্যোক্তা হিসেবে আছেন এমন সবাই খুব সহজেই ফ্রি রেজিষ্ট্রেশন করতে পারছেন এবং এই অ্যাপটির মাধ্যমেই তারা তাদের প্রোডাক্ট আপলোড থেকে শুরু করে ট্রেনিং সহ সবধরনের সুযোগ সুবিধা একসাথে পাবেন। অ্যাপে রেজিষ্ট্রেশনের মাধ্যমেই অসংখ্য নারী ডিজিটাল সিস্টেম সম্পর্কে অবগত হচ্ছেন এবং অন্তর্ভুক্ত হচ্ছেন। নারী উদ্যোক্তাদের যে কোন প্রয়োজনে সহযোগীতার স্বার্থে তাদের সাথে যোগাযোগ করছে “অন দ্য ওয়ে” সাপোর্ট টিম এবং এই টিমটিতে যারা কাজ করছেন তারা সবাই নারী।

বিজ্ঞাপন

আফরিন নাহার আরো বলেন-নারীদের মনোবল অনেক দৃঢ়। নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা থাকা সত্ত্বেও তারা তাদের কাজ দ্বারা,সুপ্ত প্রতিভা দ্বারা নিজেকে বিকশিত করার ক্ষমতা রাখে। তাদের যে কোন উদ্যোগকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে প্রয়োজন শুধুমাত্র একটি সুযোগ এবং একটি সুরক্ষিত প্ল্যাটফর্ম যেখানে তাদের সেফটি ইস্যুতে কোন সমস্যা থাকবেনা। আমাদের দেশে এখনো অনেক পরিবার রয়েছে যারা বর্তমান সমাজের এই পরিস্থিতিতে নারীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার স্বার্থে তাদের কাজের ক্ষেত্রে ভরসাযোগ্য কোন প্ল্যাটফর্ম পান না। যার ফলে প্রতিভা থাকা সত্ত্বেও হাজারো নারী এখনো পিছিয়ে আছেন। “অন দ্য ওয়ে” প্ল্যাটফর্মটি শুধুমাত্র নারীদের জন্য হওয়ায় এবং নারীদের সাথে কথা বলা থেকে শুরু করে যে কোন সহযোগিতায় নারীরাই যোগাযোগ করেন বিধায় প্ল্যাটফর্মটি ভরসাযোগ্য একটি স্থান গড়ে নিয়েছে সবার মাঝে।

টেকনোলজিতে পারদর্শী নারীদের জন্য “অন দ্য ওয়ে” তে রয়েছে আউটসোর্সিং এর সুবিধা। এছাড়াও নারী উদ্যোক্তাদের ব্যবসায়ীক হিসাব নিকাশ সহ বিভিন্ন কাজের প্রয়োজনে তৈরি করেছে বিভিন্ন ধরনের সফটওয়্যার যেগুলো শুধুমাত্র নারী উদ্যোক্তাদের বিনামূল্যে দেওয়া হয় যারা এই প্ল্যাটফর্মটির সাথে কাজ করছেন।

নারী উদ্যোক্তা হতে আগ্রহী এবং যারা নারী উদ্যোক্তা আছেন তাদের সকলের জন্য রয়েছে ফ্রি ট্রেনিং এর সুব্যবস্থা। ইতোমধ্যে নারী উদ্যোক্তাদের ট্রেনিং এর জন্য প্ল্যাটফর্মটি আমেরিকার ৬টি প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে।

অন দ্য ওয়ে এর প্রধান ট্রেইনার হিসেবে আছেন আমেরিকান ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজি থেকে প্রফেসর ড. মাহবুবুল হক জোয়ারদার, যিনি সুদূর আমেরিকা থেকে শুধু ট্রেনিং নয়, বিভিন্নভাবে “অন দ্য ওয়ে” এর এই প্ল্যাটফর্মকে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন।

আমেরিকান এই বিনিয়োগ “অন দ্য ওয়ে” এবং এই প্ল্যাটফর্মটির নারী উদ্যোক্তাদেরকে আরও সাফল্যজনকভাবে এগিয়ে চলার পথকে বিস্তৃত করবে বলে আশা ব্যক্ত করেছেন অন দ্য ওয়ের সিইও আফরিন নাহার। অন দ্য ওয়ের এই প্রচেষ্টা নারীদের প্রতিভাকে বিকশিত করে সুপ্ত প্রতিভাকে নারীর শক্তিতে রুপান্তরিত করে নারীদের আত্মনির্ভরশীল হিসেবে গড়ে তুলবে।

এই প্ল্যাটফর্মটিতে তাদের অফিসিয়াল কাজ থেকে শুরু করে সকল ক্ষেত্রে নারীরাই আছেন এবং তাদের সাথে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়ে কাজ করছেন হাজারো নারী উদ্যোক্তা।

সিইও আফরিন নাহার বলেন, অন দ্য ওয়ের আজকের প্ল্যাটফর্মটি তৈরি হয়েছে। একজন নারীর সফল উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে ওঠার পথ যেমন সহজ নয়, তেমনি ‘অন দ্য ওয়ে’ এর আজকের এই প্ল্যাটফর্মটিও বিভিন্ন চড়াই-উতরাই পার করে এ পর্যন্ত এসেছে। নারী উদ্যোক্তাদের সাহস, প্রতিভা আর প্রবল ইচ্ছা ‘অন দ্য ওয়ে’ কে সামনে এগিয়ে চলার পথে উৎসাহ দিয়েছে। অন দ্য ওয়ের সামনে এগিয়ে চলার অনুপ্রেরণা প্ল্যাটফর্মটির হাজারো নারী উদ্যোক্তা।