চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

চেলসির খেলোয়াড়রা পরবে না ‘অভিশপ্ত’ ৯ নম্বর জার্সি

অভিশপ্ত হতে পারে এমন আশঙ্কায় ইংলিশ ক্লাব চেলসির খেলোয়াড়রা কেউই ৯ নম্বর জার্সিটি পরে খেলতে চান না। এমনকি স্পর্শ করা থেকেও নাকি তারা বিরত থাকেন। বিস্ময়কর এই তথ্যটি জানিয়েছেন দলটির কোচ থমাস টুখেল।

স্কোয়াডের কোনো খেলোয়াড় কেন ৯ নম্বর জার্সিটি নিতে চাননি তা জানতে চাইলে টুখেল বলেন, ‘লোকেরা আমাকে বলে এটি অভিশপ্ত! এমন নয় যে আমরা কৌশলগত কারণে বা কিছু খেলোয়াড়ের জন্য এটি উন্মুক্ত রেখেছি।’

Reneta June

‘৯ নম্বর জার্সির জন্য খুব বেশি চাহিদা ছিল না। খেলোয়াড়রা মাঝে মাঝে সংখ্যা পরিবর্তন করতে চায়। কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে কেউ এটি স্পর্শ করতে চায় না।’

বিজ্ঞাপন

‘ক্লাবে আমার চেয়ে বেশি সময় যারা আছে সবাই আমাকে বলে, আপনি জানেন যে অমুকের ৯ নম্বর ছিল এবং গোল তার হয়নি। তার নিজের ৯ নম্বর জার্সি ছিল এবং সেও গোল করেনি।’

‘আমরা ৯ নম্বরের অভিশাপের শেষ কবে হবে, তার প্রতিশ্রুতি দিতে পারি না। আমি নিজেও কুসংস্কারাচ্ছন্ন। বুঝতে পারি কেন খেলোয়াড়রা এটাকে স্পর্শ করে না।’

রোমেলু লুকাকু দীর্ঘ সময়ের জন্য ইন্টার মিলানে ফিরে যাওয়ার পর চেলসির ৯ নম্বর জার্সিধারী ফুটবলার নেই। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে লুকাকুকে ঘিরে প্রত্যাশার পারদ উপরে উঠলেও সেটি তিনি পূরণ করতে পারেননি।

‘অভিশপ্ত’ ৯ নম্বর জার্সি পরে ট্যামি আব্রাহাম ২০১৯-২০ মৌসুমে ১৮ গোল করেছিলেন। তবে এক বছর পরে এএস রোমায় যোগ দেয়ার আগে তিনি ইনজুরি এবং ফর্মহীনতায় ভুগছিলেন। গঞ্জালো হিগুয়েন, আলভারো মোরাতা, রাদামেল ফ্যালকাও এবং ফার্নান্দো তোরেস খ্যাতি নিয়েই চেলসিতে এসেছিলেন। প্রত্যাশা মেটাতে তাদেরও সংগ্রাম করতে হয়েছিল।

অতীত ইতিহাস বলছে চেলসিতে খেলতে এসে যারাই ৯ নম্বর জার্সি পরে খেলেছেন, তাদের অনেকেই হারিয়েছেন ফর্ম। কেউ বা ইনজুরিতে পড়ে মাঠের বাইরে ছিটকে গিয়েছিলেন। ফলে বর্তমানে কেউই ‘অভিশপ্ত’ জার্সিটি গায়ে চড়াতে চাইছেন না।