অধ্যাপক তাহের হত্যা মামলায় দু’জনের ফাঁসি কার্যকর

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) এর ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক এস তাহের আহমেদ হত্যা মামলায় দুই আসামির ফাঁসি কার্যকর হয়েছে। বৃহস্পতিবার ২৭ জুলাই রাত ১০টা ১ মিনিটে তাদের ফাঁসি কার্যকর হয়।

ফাঁসি কার্যকর হওয়া দুই আসামি হলেন- রাবির ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের তৎকালীন সহযোগী অধ্যাপক ড. মিয়া মো. মহিউদ্দিন এবং ড. তাহেরের বাসার তত্ত্বাবধায়ক জাহাঙ্গীর আলম।

২০০৮ সালে নিম্ন আদালতে মামলার রায় ঘোষণার পর থেকেই তারা রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে ছিলেন। তাদের কনডেম সেলে রাখা হয়েছিল।

এর আগে মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত দু’আসামি রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করেছিলেন। আবেদন নাকচের চিঠি রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছার পর ফাঁসি কার্যকরের প্রস্তুতি নেয় কারাগার কতৃপক্ষ।

২০০৬ সালের ২ ফেব্রুয়ারি রাবি শিক্ষকদের পশ্চিমপাড়া আবাসিক কোয়ার্টারের পেছন থেকে অধ্যাপক তাহের আহমেদের লাশ উদ্ধার করা হয়। ৩ ফেব্রুয়ারি তার ছেলে সানজিদ আলভি আহমেদ থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। এরপর ২০০৭ সালের ১৭ মার্চ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ।

রাজশাহীরাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়