চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

প্রসূনের নতুন সিনেমায় আহমেদ রুবেল

সত্যজিৎ রায়কে ট্রিবিউট করে ‘প্রিয় সত্যজিৎ’ নামে সিনেমা নির্মাণের ঘোষণা দিলেন প্রসূন রহমান

গাছের ভাষা বুঝেন। গাছের সাথে আনমনে কথা বলেন। গাছের অনুরোধে গেয়ে শোনান, ‘সত্তুরটা হুর পরীতে বন্ধু, আমারতো কাম নাই/আমি দোজখে যাবো/আমি দোজখে যাবো’। তিনি আহমেদ রুবেল। অভিনয় আর ব্যক্তিত্বের পারফেকশনে জুড়ি নেই তার। ছোট ও বড় পর্দায়, সবখানেই সফল! গুণী এই অভিনেতার জন্মদিনে (৫ অক্টোবর) তাকে নিয়ে নতুন সিনেমার ঘোষণা দিলেন ‘সুতপার ঠিকানা’ খ্যাত নির্মাতা প্রসূন রহমান।

মঙ্গলবার বিকেলে চ্যানেল আই অনলাইনকে মুক্তি প্রতীক্ষিত ‘ঢাকা ড্রিম’ এর নির্মাতা প্রসূন জানান, নতুন প্রকল্পের কথা জানানোর জন্যে জন্মদিনের চেয়ে শুভক্ষণ আর কী হতে পারে! রুবেল ভাইয়ের জন্মদিনে তাই তাকে নিয়ে নির্মিতব্য নতুন সিনেমার কথা জানালাম। যে সিনেমাটির শুটিং চলতি মাসেই শুরু হবে।

নির্মিতব্য সিনেমাটির নাম ‘প্রিয় সত্যজিৎ’। যেখানে একজন প্রবীন নির্মাতার চরিত্রে দেখা যাবে আহমেদ রুবেলকে। গল্প নিয়ে আগ বাড়িয়ে কোনো ধারণা দিতে রাজি নন নির্মাতা। শুধু বললেন, ‘একজন নবীন নির্মাতা অন্য আরেকজন প্রবীন নির্মাতাকে নিয়ে ডকুফিল্ম করতে চান। সেই প্রবীন নির্মাতার জার্নি, তার উপর সত্যজিৎ রায়ের যে প্রভাব- এসব কিছু উঠে আসবে। এই প্রবীন ও নবীন নির্মাতার জার্নির মধ্য দিয়ে আমাদের সিনেমাটি এগিয়ে যাবে।’

আহমেদ রুবেলের চরিত্রটি নিয়ে প্রসূন বলেন,‘সিনেমাটির কাহিনী তিন সময়ের তিন জন চলচ্চিত্র নির্মাতাকে নিয়ে। প্রথমজন সত্যজিৎ রায় নিজে। আর অন্য দু’জন পরবর্তী দুই প্রজন্মের। প্রবীণ নির্মাতা আসিফ মাহমুদের চরিত্রে অভিনয় করবেন আহমেদ রুবেল। তবে নবীন নির্মাতা অপরাজিতা চরিত্রের অভিনয়শিল্পী এখনো চূড়ান্ত হয়নি। অপরাজিতার সহযোগী ফিল্ম-ক্রুদের চরিত্রে অভিনয় করবেন সত্যিকারের কলাকূশলিদের কয়েকজন।’

প্রবীন নির্মাতার চরিত্রে আহমেদ রুবেলই ছিলেন নির্মাতার প্রথম পছন্দ। প্রসূন রহমান বলেন, আমি যখন ‘প্রিয় সত্যজিৎ’ এর চিত্রনাট্য তৈরী করি, তখন গল্পে যে প্রবীন নির্মাতার চরিত্রটি, সেটি কিন্তু রুবেল ভাইকে ভেবেই। তিনিই আমার একমাত্র চয়েস। চিত্রনাট্য তৈরী হলে যখন আহমেদ রুবেল ভাইকে শোনাই, তিনিও বিনাবাক্যে রাজি হয়ে যান। তাছাড়া সত্যজিৎ রায়কে ট্রিবিউটে তিনিও অংশিদার হতে ইচ্ছা প্রকাশ করেন।

অফিশিয়াল নয়, ‘প্রিয় সত্যজিৎ’ এর থিমেটিক পোস্টার

বিজ্ঞাপন

সত্যজিৎকে শ্রদ্ধাঞ্জলী জানিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণের এমন উদ্যোগ নিয়ে নির্মাতা প্রসূন জানান, ‘এ বছর আমরা সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবর্ষ উদযাপন করছি। নেটফ্লিক্স তাদের ট্রিবিউট জানিয়েছে ‘রে’ সিরিজ নির্মাণ করে। জেনেছি সত্যজিৎ রায়ের নিজের শহর কলকাতা থেকেও নির্মিত হচ্ছে আরো দুটি চলচ্চিত্র। সত্যজিৎ এমন একজন নির্মাতা, তার পরবর্তী সময়ে বহু তরুণ ও স্বাধীন নির্মাতারা যার কাজের দ্বারা প্রভাবিত। বিশেষত উপমহাদেশের স্বাধীনধারার নির্মাতারা সত্যজিৎ দ্বারা অনুপ্রাণিত। জন্মশতবর্ষে তাকে নিয়ে বাংলাদেশে তেমন কোনো উদ্যোগ চোখে পড়েনি। তাই নিজ উদ্যোগে তাকে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানাতেই ‘প্রিয় সত্যজিৎ’ নামে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করার পরিকল্পনা করি।’

প্রসূন জানান, এটি কোনো বাণিজ্যিক সিনেমা নয়। বা তেমন উদ্দেশ্যে এটি নির্মাণ করছি না। সত্যজিৎ ছিলেন একজন প্রভাবশালী নির্মাতা, এবং তার পৈতৃকভিটা কিশোরগঞ্জে। সবমিলিয়ে একজন নির্মাতার প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা নিবেদন করতেই সিনেমাটি নির্মাণের উদ্যোগ। তাছাড়া এ ধরনের কাজে কোনো লগ্নীকারও খোঁজে পাওয়া যায় না। স্বল্প বাজেটে সিনেমাটি নির্মাণ করে এটি মানুষকে দেখাতে চাই। সত্যজিতের আগামী জন্মদিন মে মাসের ২ তারিখ, সে উপলক্ষে সিনেমাটি মুক্তি দিতে চাই। সিনেমা হল কিংবা ওটিটি, যেখানে সম্ভব। এমনটা টার্গেট করেই আমরা কাজ শুরু করতে যাচ্ছি।

এদিকে মুক্তির প্রতীক্ষায় আছে প্রসূন রহমানের আরেক সিনেমা ‘ঢাকা ড্রিম’। আগামি ৮ অক্টোবর মুক্তির কথা শোনা গেলেও নির্মাতা জানালেন, ‘ঢাকা ড্রিম’ প্রেক্ষাগৃহে আসছে ২২ অক্টোবর থেকে। চলতি সপ্তাহেই ‘বাংলা ঢোল’ এর ইউটিউব চ্যানেলে আসবে ট্রেলার।

যৌনকর্মী, ছাত্র, স্বল্পশিক্ষিত বেকার, অন্ধ ভিক্ষুক, স্বামী পরিত্যক্তা নারী, খুনি, রিকশাচালক, নরসুন্দর, রিয়েলিটি শোর প্রতিযোগী এবং নদীভাঙনে গৃহহারা পরিবারের ছায়াদের গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ‘ঢাকা ড্রিম’। যারা প্রত্যেকেই দেখছে গ্রাম থেকে জাদুর শহর ঢাকায় আসার স্বপ্ন- যার যার অবস্থান থেকে। ছবিতে আয়নাল ফকির নামের রহস্যময় এক অন্ধ ভিক্ষুকের চরিত্রে অভিনয় করছেন ফজলুর রহমান বাবু।

আভ্যন্তরীন বাস্তুচ্যুতি, জীবিকার প্রয়োজন ও উন্নত জীবনের আশায় নগরমুখি হওয়া প্রান্তিক মানুষের স্বপ্ন ও স্বপ্নভঙ্গের গল্প নিয়ে নির্মিত স্বাধীনধারার চলচ্চিত্র ‘ঢাকা ড্রিম’। এতে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন- ফজলুর রহমান বাবু, মনিরা মিঠু, শাহাদাত হোসেন, জয়ীতা মহলানবীশ, পূর্ণিমা বৃষ্টি, আবদুল্লাহ রানা, হিন্দোল রায়, শাহরিয়ার সজীব, নাইরুজ সিফাত, ইকবাল হোসেন, সুজাত শিমুল, আরশ খান, সায়মা নীরা‌ এবং প্রয়াত এসএম মহসীন সহ আরো অনেকে। চলচ্চিত্রটির সঙ্গীতায়োজনে রয়েছেন বরেন্য শিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ।

বিজ্ঞাপন