চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Channeliadds-30.01.24Nagod

জবি মুজিব মঞ্চের পাশে ময়লা-ডালপালার স্তুপ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) মুজিব মঞ্চের পাশে নারকেল পাতা, গাছের ডালপালা, লাকড়ি ও বিভিন্ন ময়লা ফেলে রাখা হয়েছে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। অনেকদিন ধরে এগুলো পরে থাকায় বৃষ্টির পানিতে পঁচে মশার সৃষ্টি হচ্ছে। বর্তমানে ডেঙ্গু প্রবণতা বেশি থাকায় পরিণত হয়েছে শিক্ষার্থীদের আতঙ্কে।

সরেজমিনে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনের সামনে মুজিব মঞ্চের পাশে ফেলে রাখা হয়েছে নারকেল গাছের ময়লা আবর্জনা। এর সাথে আরও রয়েছে পলিথিন, প্লাস্টিকের বোতলসহ অন্যান্য বর্জ্য। নিয়মিত বর্জ্য অপসারণ ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন না করায় পরিবেশ দূষণ ও সৌন্দর্যহানী হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জানান, দিনের বেলায় ক্যাম্পাসে মশার কামড়ে বসা যায় না। সন্ধ্যা ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে মশার উপদ্রবে ক্যাম্পাসের শান্ত চত্বর, গুচ্ছ ভাস্কর্য, বটতলা, কাঁঠাল তলা, মুজিব মঞ্চসহ সকল স্থানেই বসার আর কোন পরিবেশ থাকে না। তাই ডেঙ্গু আতঙ্কে সন্ধ্যার আগে সবাই ক্যাম্পাস ত্যাগ করে।

এ বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী জান্নাত আরা বলেন, ‘ডেঙ্গুর প্রকোপ দিন দিন বেড়েই চলছে। পরিবেশে এই আতঙ্ক সবচেয়ে বেশি। আমাদের সবার সচেতন থাকা জরুরি। কিন্তু আমাদের বিভাগের পাশেই মশার উৎপাদনের উপদ্রব দেখা যায়, তাতে আমাদের চিন্তা আরও বেড়ে যাচ্ছে। এই পরিবেশে থেকে আমাদের সবসময় ডেঙ্গু আতঙ্কে থাকতে হচ্ছে। আশা করছি, প্রশাসন দ্রুত এটি সমাধানের পদক্ষেপ নেবে।

Reneta April 2023

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের ড্রেনেজ ব্যবস্থায় রয়েছে নাজুক অবস্থা। ক্যাম্পাসে ড্রেনে জমে আছে ময়লা-আবর্জনা ও দূষিত পানি। ডাস্টবিনগুলোও নিয়মিত পরিষ্কার করা হচ্ছে না। ময়লা-আবর্জনায় ড্রেনগুলো ভরাট থাকায় সামান্য বৃষ্টিতেই ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থান জুড়ে কৃত্রিম জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। এতে জন্ম নিচ্ছে ডেঙ্গু মশা।

ক্যাম্পাস ঘুরে দেখা যায়, একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবনগুলোর পাশে, বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় ফটকের সামনে, ক্যাফেটেরিয়ার পেছনের দিকে ড্রেনে জমে আছে আবর্জনা, পাতা, পলিথিন, প্লাস্টিক ও ময়লা পানি। বোটানিক্যাল গার্ডেনের পাশেও ময়লা-আবর্জনা ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে। এগুলো মশার প্রজননকেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। মশার উপদ্রবে সন্ধ্যা হলেই ক্যাম্পাসে থাকা দায় হয়ে দাঁড়ায়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচ্ছন্নতা কমিটির আহ্বায়ক এবং ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল কাদের বলেন, ‘আমরা ময়লা পরিষ্কারের জন্য সিটি করপোরেশনের সাথে চুক্তি করেছি। প্রক্রিয়াটা মাত্র শুরু হয়েছে তারা এগুলো নিয়ে নিবে। আর মুজিব মঞ্চের পাশে যে ডালপালা গুলো রাখা আছে তা বোটানিক্যাল গার্ডেনের। বাগানের পরিচালক উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান। ওনাকে জানানো হয়েছে এগুলো সরানোর জন্য, তা নাহলে আমরা সরিয়ে নিব।’

ড্রেনেজ ব্যবস্থা নিয়ে তিনি বলেন, ‘ড্রেন পরিষ্কার করা হচ্ছে। ড্রেনের উপরে ময়লাগুলো নিয়মিত পরিষ্কার করা হবে।’