চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হাবীবের ‘ঠাণ্ডা কফি’র রহস্য ঘোচালেন জিকো!

১১ ফেব্রুয়ারি ‘উড়ে যায় মুনিয়া’ প্রকাশের ঠিক একমাস পর হাবীবের নতুন গান ‘ঠাণ্ডা কফি’

দেশের প্রতিভাবান সংগীতশিল্পী ও সুরকার হাবীব ওয়াহিদ। তার গাওয়া কিংবা সুরে অসংখ্য গান তরুণদের মুখে মুখে। সর্বশেষ গেল ফেব্রুয়ারির ১১ তারিখেও নিজের চ্যানেল থেকে ‘উড়ে যায় মুনিয়া’ নামে নতুন গান ভিডিও উপহার দিয়েছেন তিনি।

ঠিক একমাস পর শ্রোতা ভক্তদের জন্য ‘ঠাণ্ডা কফি’ নিয়ে আসছেন এই শিল্পী। কিন্তু তার আগে মার্চের শুরু থেকেই ঠাণ্ডা কফি নিয়ে রহস্য সৃষ্টি করেছেন হাবীব। এ বিষয়ে দিয়েছেন সিরিজ পোস্ট।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

নিজের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গত ৪ মার্চ হাবীব শুধু লেখেন ‘ঠাণ্ডা কফি…’। আর তাতেই তার ভক্ত অনুরাগীরা নানা কল্পকাহিনী ভাবতে শুরু করেন। তবে অনেকেই অনুমান করছিলেন, নিশ্চয় নতুন গান নিয়ে আসছেন তাদের প্রিয় শিল্পী!

বিজ্ঞাপন

সে অনুমানই যেন সত্যি হলো। অন্তত গীতিকার আলী বাকের জিকোর কথারসূত্র ধরে। চ্যানেল আই অনলাইনকে এই গীতিকার জানান, ‘ঠাণ্ডা কফি’ মূলত একটি গানের শিরোনাম। যা তিনি নিজেই লিখেছেন। আর এটি সুর ও কণ্ঠ দিয়েছেন হাবীব ওয়াহিদ। বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) রাত ৮টায় যা হাবীব ওয়াহিদের অফিশিয়াল ইউটিউবে লিরিক্যাল এই গান ভিডিওটি অবমুক্ত হয়েছে।

এরআগে হাবীব ওয়াহিদ ও আলী বাকের জিকো যৌথভাবে শীতল স্পর্শ, প্রেমের খেলা ও বন্ধুরে নামে তিনটি গান করেন। জিকোর লেখা তিনটি গানেরই কণ্ঠ ও সুর করেছেন হাবীব। ‘ঠাণ্ডা কফি’ হতে যাচ্ছে এই জুটির চতুর্থ গান।

জিকো বলেন, এটি সুপার রোমান্টিক একটি গান। আর এটি ভিডিও নয়, লিরিক্যাল ভিডিও। এ প্রসঙ্গে হাবীবের ভাবনা, গানের সাথে যদি আমি ভিডিও দেই, তাহলে দৃশ্যের মধ্য দিয়ে দর্শককে আমি যা দেখাবো, শুধু তাই দেখবে। কিন্তু লিরিক্যাল দিলে দর্শক গানের কথা নিয়ে তার নিজের মতো ভাবতে পারবে। শ্রোতা দর্শক যেন গানটি শুনে তার নিজের মতো করে কল্পনা করে নেয়।

হাবীবের সাথে কাজের প্রসঙ্গে গীতিকার জিকো আরো বলেন, আমার লেখা হাবীব গায় ২০২০ সালের ৯ মার্চ। গানটির শিরোনাম ছিলো শীতল স্পর্শ। এরপর তিনি আমার আরো দুটি গান করেন। তবে এই লকডাউনের সময়ে আমরা যৌথভাবে বেশকিছু কাজ করেছি। খুব ভালো ভালো কাজ হয়েছে আমাদের। সংখ্যায় বলছি না, কিন্তু সে কাজগুলো ধীরে ধীরে প্রকাশিত হবে। তারমধ্যে একটি হলো ‘ঠাণ্ডা কফি’।

বিজ্ঞাপন