চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হতে হবে জনগণের সেবক

রোববার থেকে শুরু হওয়া ৫ দিনের জেলা প্রশাসক সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর আগেই দেশকে দারিদ্র মুক্ত করতে চান জানিয়ে বলেছেন, এরই মধ্যে ২১ ভাগ দারিদ্র মুক্ত হয়েছে। আমরা যদি আরেকটু চেষ্টা করি, তাতে ওই সময়ের মধ্যে দারিদ্রের হার ২/৩ ভাগ কমাতে পারবো।

মূলত দেশের চলমান উন্নয়নের গতিধারা অব্যাহত রাখতে কাজের গতি বাড়ানোর জন্য তিনি জেলা প্রশাসকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। পাশাপাশি সুনির্দিষ্টভাবে ৩১টি নির্দেশনা দিয়েছেন। বিশেষ করে সরকারি সেবা গ্রহণে সাধারণ মানুষের হয়রানি বা বঞ্চনা বন্ধ, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও সাম্প্রদায়িকতা দূর করা এবং যুব সমাজকে মাদকের হাত থেকে রক্ষা করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বলেছেন। তিনি মনে করেন, এই নির্দেশনাগুলো ঠিকভাবে পালন করা হলেই কেবল ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তোলা সম্ভব।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আমরা জানি, যে কোনো সরকারের সাফল্যের পেছনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা থাকে মাঠ প্রশাসনের। বিশেষ করে জনগণের জন্য সেই সরকারের নেওয়া কল্যাণমূলক পরিকল্পনা বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে। আর জেলা প্রশাসকদের সরাসরি তত্ত্বাবধানে সেই পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়ন হয়ে থাকে। আর এজন্যই প্রধানমন্ত্রী তাদেরকে উদ্দেশ্য করে বলছেন, আপনাদের মেধা ও মনন দিয়ে এই দেশটাকে গড়ে তুলবেন। আর সুষ্ঠু পরিকল্পনা নিয়ে কর্মক্ষেত্রে দক্ষতার পরিচয় রাখবেন। এটাই আমার চাওয়া।

যে মাঠ প্রশাসনকে নিয়ে সরকারের এত এত পরিকল্পনা, দুঃখজনক হলেও সত্যি তাদের বিরুদ্ধেই সাধারণ মানুষের অসংখ্য অভিযোগের কথা আমরা শুনতে পাই। এটা অস্বীকার করার উপায় নেই, সরকারি সেবা পেতে এখনো বেশির ভাগ মানুষ নানাভাবে হয়রানি বা বঞ্চনার শিকার হন। বিশেষ করে ভূমি ব্যবস্থাপনা, স্বাস্থ্যসেবা এবং সামাজিক নিরাপত্তায় সরকারের দেওয়া বিভিন্ন ভাতা নিয়ে।

এটা ঠিক যে, দীর্ঘ বছরের জঞ্জাল এত সহজেই দূর করা যাবে না। তারপরও আমরা মনে করি, আন্তরিকতা থাকলে অবশ্যই মাঠ প্রশাসন জনগণের সেবক হয়ে কাজ করতে পারে।

Bellow Post-Green View