চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘স্বজন হারানোর ব্যথা আমি বেশ উপলব্ধি করতে পারি’

রোববার জাবালে নূর পরিবহনের বাস চাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী দিয়া খানম মীম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আব্দুল করিম রাজীব নিহত হন। আহত হন আরও অন্তত ১০ জন।  এই বিষয়ে নিয়েই ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।

ফেসবুকে এক পোস্টে তিনি লিখেছেন, গতকাল বিমানবন্দর সড়কে মর্মান্তিক বাস দুর্ঘটনায় নিহত দুইজন শিক্ষার্থী রাজীব এবং মীম এর অকাল মৃত্যুতে গভীর দুঃখপ্রকাশ করছি৷ গত সপ্তাহে রাজশাহীর গোদাগাড়িতে সড়ক দুর্ঘটনায় আমার ভাতিজি কেয়া, তার দুই শিশুসন্তান, গৃহ পরিচারিকা এবং গাড়িচালক একইসাথে নিহত হয়৷

Advertisement

স্বজন হারানোর ব্যথা যে কী নিদারুণ কষ্টের, তা আমি বেশ উপলব্ধি করতে পারি৷ বিশেষ করে এই ধরণের অকাল মৃত্যু মেনে নেয়া যায় না। মহান আল্লাহ্ তাদের পরিবারকে এই শোক সহ্য করার শক্তি দিন। ঘাতক বাস চালককে ইতিমধ্যে আটক করা হয়েছে। দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে৷

এরপরে তিনি লিখেছেন, শেখ হাসিনার সরকার ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় সর্বদাই সচেষ্ট। পাশাপাশি দুর্ঘটনা প্রতিরোধেও সরকার কাজ করে যাচ্ছে৷ কিছুদিন আগে মন্ত্রীসভার বৈঠকে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ৬ টি কার্যকরী নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷

সবশেষে তিনি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথাগুলো তুলে ধরে লিখেছেন, চালক ও তার সহকারীদের নিয়মিত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা, দূরপাল্লার যাত্রায় একজন চালককে যেন ৫ ঘন্টার বেশি একটানা গাড়ি না চালাতে হয় সেজন্য বিকল্প চালক রাখা, নির্দিষ্ট দূরত্ব পরপর সড়কের পাশে সার্ভিস সেন্টার বা বিশ্রামাগার তৈরি করা, অনিয়মতান্ত্রিক রাস্তা পারাপার বন্ধ, সিগন্যাল মেনে চলা এবং চালক ও যাত্রীদের সিট বেল্ট বাধা। সড়ক দুর্ঘটনার ঝুঁকি কমাতে এই নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী।