চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সেঞ্চুরির পর ৪ উইকেট মিরাজের

চট্টগ্রাম টেস্টে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি তোলার পর ৪ উইকেট ঝুলিতে পুরেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তার অলরাউন্ডিং পারফরম্যান্সে প্রথম ইনিংস থেকে ১৭১ রানের বড় লিড জমিয়েছে বাংলাদেশ।

চা বিরতি পরপরই ওয়েস্ট ইন্ডিজের টেল গুটিয়ে দেয় বাংলাদেশ। সফরকারীদের প্রথম ইনিংসে সংগ্রহ ২৫৯ রান। প্রথম ইনিংসে ৪৩০ রান করে অলআউট হয়েছিল টাইগাররা।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

মিরাজ আট নম্বরে নেমে ১০৩ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। বল হাতে ২৬ ওভার হাত ঘুরিয়ে ৫৮ রানে শিকার করলেন ৪ উইকেট। সেঞ্চুরি ও পাঁচ উইকেটের ডাবলে নাম লেখানোর সুযোগ ছিল। তাইজুল শেষ উইকেটটি তুলে নিলে তা অধরা থাকে। যদিও দ্বিতীয় ইনিংসে সুযোগ থাকছে মাইলফলক ছোঁয়ার।

মিরাজের ম্যাচে তাইজুল, নাঈম ও মোস্তাফিজ নিয়েছেন ২টি করে উইকেট।

আগেরদিন পাওয়া চোটে শুক্রবার মাঠে নামতে পারেননি সাকিব আল হাসান। তাইজুল-নাঈম-মিরাজ সকালের সেশনে তুলে নেন ৩ উইকেট, দ্বিতীয় সেশনে প্রতিরোধের মুখে পড়ার পর তৃতীয় দিনে চা বিরতির আগে আগে ২ উইকেট তোলে স্বাগতিকরা। বিরতি থেকে ফিরেই সফরকারীদের গুটিয়ে দেয়।

বিজ্ঞাপন

ব্লেকউড ও জশুয়া ডি সিলভা দ্বিতীয় সেশনে উইকেটে জাঁকিয়ে বসেন। ক্লান্ত করে তোলেন টাইগার বোলারদের। দুজনে জুটিতে যোগ করেন ৯৯ রান। ডি সিলভাকে (৪২) উইকেটের পেছনে লিটনের গ্লাভসবন্দি করে জুটি ভাঙেন নাঈম।

পরের ওভারে আঘাত হানেন মিরাজ। ফিফটি করা ব্লেকউডকে দেখান সাজঘরের পথ। এবারও উইকেটের পেছনে আরেকটি দুর্দান্ত ক্যাচ নেন লিটন। ৬৮ করে ফিরতে হয় ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যানকে।

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ২ উইকেটে ৭৫ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করেছিল সফরকারীরা। প্রথম বলেই সাফল্য তোলে বাংলাদেশ। বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামের বলে নাজমুল হোসেন শান্তর হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান এনক্রুমা বোনার (১৭)। ভাঙে ৫১ রানের তৃতীয় উইকেট জুটি।

পরে বাংলাদেশের পথের কাটা হয়ে ওঠা ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটকে বোল্ড করে দেন নাঈম হাসান। উইন্ডিজ অধিনায়ক ১১১ বলে করেন ৭৬ রান। তার ইনিংসে চারের মার ১২টি।

চতুর্থ উইকেট জুটিও ফিফটি পেরোয়। আসে ৫৫ রান। ব্র্যাথওয়েটের সঙ্গে দারুণ খেলতে থাকা কাইল মেয়ার্স আউট হন ফিফটির আগে, দলের দেড়শর পর। ৪০ রান করে মেহেদী হাসান মিরাজের বলে হন এলবিডব্লিউ।

আগেরদিন জোড়া উইকেট শিকার করেছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। ২ উইকেট হারিয়ে ৭১ রানে দিন শেষ করেছিল উইন্ডিজ।