চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সেই ব্রিটিশ মিডিয়ায় উল্টো সুর

বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে জয় দিয়ে শুরু করলেও দ্বিতীয় ম্যাচে পাকিস্তানের কাছে হেরে যায় ইংল্যান্ড। সেই হারের পর পাশে না দাঁড়িয়ে বরং দলকে ধুয়ে দিয়েছিল ব্রিটিশ মিডিয়া। এক ম্যাচ পরই আবার উল্টো সুর তাদের। বাংলাদেশের বিপক্ষে জয়ের পর দলকে প্রশংসায় ভাসাচ্ছে ইংলিশ মিডিয়া।

শনিবার কার্ডিফে বাংলাদেশের বিপক্ষে ১০৬ রানের বিশাল জয় পায় ইংল্যান্ড।

বিজ্ঞাপন

পাকিস্তানের কাছে হারের পর সবচেয়ে ধারাল আক্রমণ করেছিল দ্য ডেইলি সান। বাংলাদেশের বিপক্ষে জয়ের পর সেই সান সাধারণ, সরল ও সহজবোধ্য শিরোনাম করেছে। তারা লিখেছে, জেসন রয়ের দেড় শতাধিক রানের ইনিংসে ভর করে বাংলাদেশের বিপক্ষে নিয়ন্ত্রিত জয় পেয়েছে ইংল্যান্ড। প্রতিবেদনের ভেতরে রয়ের সঙ্গে প্রশংসা করা হয় জফরা আর্চারের।

পাকিস্তানের কাছে হারের পর দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট লিখেছিল ‘পেটে আগুন এবং মাথায় বরফ নিয়ে পাকিস্তান দল দর্শনীয়ভাবে ইংল্যান্ডের কাছ থেকে জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। এই ম্যাচের সবচেয়ে বিস্ময়কর দিক ছিল, পাকিস্তান খেলেছে ইংল্যান্ডের মতো এবং ইংল্যান্ড খেলেছে পাকিস্তানের মতো। টুর্নামেন্ট ফেভারিটরা আর ফেভারিট নেই।’

রোববার সেই পত্রিকার শিরোনাম সবচেয়ে সাদামাটা। তারা শিরোনাম করেছে, ‘রয়ের সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশের বিপক্ষে জয়ের ধারায় ফিরেছে ইংল্যান্ড। পত্রিকাটি ভেতরে লিখেছে, পাকিস্তানের বিপক্ষে একটি অপ্রত্যাশিত বিপত্তির পর কার্ডিফের লড়াইয়ের আগে একটি ঝুঁকি তৈরি হয়েছিল। কিন্তু রয়ের সেঞ্চুরিতে সেটা উড়ে গেছে।’

‘ইংল্যান্ডের ফিল্ডিং ছিল লজ্জাজনক। এই জঘন্যতা ছিল ভয়ঙ্কর। কারণ প্রাথমিক পর্যায়েই যদি স্বাগতিক ও টুর্নামেন্টের ফেভারিট দল এমন স্নায়ুচাপে ভোগে, তাহলে নকআউটের মতো বিগ ম্যাচে কী করবে, যেখানে স্নায়ুচাপ ধরে রাখা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন হবে?’ পাকিস্তান ম্যাচের পর এমন কঠিন শব্দই ব্যবহার করে দ্য টেলিগ্রাফ।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু সাকিব-তামিমদের বিপক্ষে জয়ের পরই সোজা পথে হেঁটেছে পত্রিকাটি। তারা লিখেছে, ‘দুশ্চিন্তা সরিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে ভারসাম্য পুনরুদ্ধার করেছে ইংল্যান্ড।’

ম্যাচ শুরুর আগের আবহ তুলে ধরে টেলিগ্রাফ ভেতরে লিখেছে, ‘কার্ডিফ যেমন ঝড়ো হাওয়াপূর্ণ ও প্রাণবন্ত ছিল, ইংল্যান্ড তেমনটা ছিল না। তবে পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে হেরে যে উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছিল, বাংলাদেশের বিপক্ষে জিতে সেটা পুনরুদ্ধার হয়েছে।’

পাকিস্তানের বিপক্ষে খুবই বাজে ফিল্ডিং করেছিল ইংল্যান্ড। মাঠের চিত্রকে ‘বিশৃঙ্খল, উড়নচণ্ডী ও দুর্বল’ এসব শব্দে তুলে ধরেছিল ব্রিটেনের সবেচেয় প্রগতিশীল পত্রিকা গার্ডিয়ান।

তারা এবার শিরোনাম করেছে, ‘আবার ঝকঝকে জেসন রয়, তাতেই বাংলাদেশকে হারাল ইংল্যান্ড।’ ভেতরে লিখেছে, জেসন রয় তীব্র ও নিদারুণ দক্ষতায় বাংলাদেশের আক্রমণকে গুঁড়িয়ে দিয়েছেন।’

দুটি সাইডস্টোরিতেও সহজ শিরোনাম করেছে গার্ডিয়ান। একটাতে লিখেছে, রয়ের সেঞ্চুরিতে সহজ জয় ইংল্যান্ডের। সৌম্য সরকারকে আউট করা জফরা আর্চারের কথা উল্লেখ করে আরেকটিতে লিখেছে, ‘সৌম্যকে আউট করে আর্চারই কার্ডিফের ক্লিনার।’

নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে আগামী মঙ্গলবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। আর ১৪ জুন ইংল্যান্ডের পরের প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

Bellow Post-Green View