চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাবরিনার বিরুদ্ধে দ্রুতই চার্জশিট: ডিবি

সাহেদের মামলা তদন্তে র‌্যাব

জালিয়াতির অভিযোগে জোবেদা খাতুন হেলথকেয়ারের (জেকেজি) চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনার বিরুদ্ধে করা মামলার দ্রুত চার্জশিট দেওয়ার আশা প্রকাশ করছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

এছাড়াও রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদের বিরুদ্ধে করা প্রতারণা মামলার তদন্তভার ডিবির কাছ থেকে র‌্যাবের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

বিজ্ঞাপন

বুধবার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস বিভাগে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার আব্দুল বাতেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পরিপ্রেক্ষিতে সাহেদের বিরুদ্ধে করা মামলাটি হস্তান্তর করা হচ্ছে। তার কাছ থেকে অস্ত্র ও মাদক উদ্ধারের ঘটনায় করা মামলাটি তদন্ত করবে ডিবি।’

‘‘সাহেদকে গ্রেপ্তার থেকে শুরু করে র‌্যাব কাজ করেছে। মামলা ডিবি তদন্ত করছিল। পাঁচদিন আমাদের কাছে রিমান্ডে ছিল, অনেক তথ্য আমরা পেয়েছি। আজকের মধ্যে হয় তো র‌্যাবে আসামি হস্তান্তর করা হবে।’’

এর আগে প্রতারণার মামলায় গ্রেপ্তার সাহেদের মামলা তদন্তের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করে র‌্যাব। পরে র‌্যাবকে তদন্তের অনুমোদন দেয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

সাহেদকে গ্রেপ্তারের পর তাকে নিয়ে অভিযানে উদ্ধার অস্ত্র কোনো কাজে ব্যবহৃত হয়েছে কি না- এমন প্রশ্নে আব্দুল বাতেন বলেন, ‘অস্ত্রটি কোথাও ব্যবহারের তথ্য পাওয়া যায়নি। আমরা তদন্ত করছি। মাঝেমাঝে অপরাধীরা বৈধ অস্ত্রের পাশাপাশি অপরাধ আড়াল করতে অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করে থাকে।’

জোবেদা খাতুন সার্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা  জেকেজি হেলথ কেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনার মামলা সম্পর্কে আব্দুল বাতেন বলেন, ‘চেয়ারম্যান নয়, আহ্বায়ক হিসেবে ডা. সাবরিনা চৌধুরীর সম্পৃক্ততা পেয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। আশা করছি এ মামলায় আমরা দ্রুতই চার্জশিট দিতে পারব।’

গ্রেপ্তারের আগে বিভিন্ন মিডিয়ায় ডা. সাবরিনা নিজেকে জেকেজির চেয়ারম্যান পরিচয় দিলেও ডিবির তদন্তে তা পাওয়া যায়নি বলে জানান তিনি।

আব্দুল বাতেন বলেন, ‘চেয়ারম্যান হিসেবে কোনো ডকুমেন্ট আমরা পাইনি। তবে আহ্বায়ক হিসেবে সম্পৃক্ত থাকার কাগজ পাওয়া গেছে।’

জালিয়াতির অভিযোগ থাকায় ১২ জুলাই ডা. সাবরিনাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় ডাকে তেজগাঁও থানা পুলিশ। তবে কোনো সদুত্তর দিতে না পারায় তাকেও গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

পরবর্তীতে ১৩ জুলাই সাবরিনার তিনদিনের ও ১৭ জুলাই ফের দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার শাখরা কোমরপুর বেইলি ব্রিজের পাশে নর্দমার মধ্যে থেকে গত ১৫ জুন বোরকা পরা অবস্থায় সাহেদকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।