চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সানডে নাইটে স্বস্তিতে বড়রা

শনিবার রাতে মাঠে নেমেছিল ইউরোপের বড় লিগগুলোর বেশ কয়েকটি বড় দল। ম্যাচ শেষে একমাত্র চেলসি ছাড়া স্বস্তিতে সবাই। লিভারপুল, ম্যানচেস্টার সিটি, রিয়াল মাদ্রিদ, জুভেন্টাস, বায়ার্ন মিউনিখ ও টটেনহ্যামের সবাই জয় পেয়েছে। হেরেছে শুধু ইংলিশ ক্লাব চেলসি।

টটেনহ্যামে হোসে মরিনহোর অভিষেক খারাপ হয়নি। বিরতির সময় দু’গোলে এগিয়ে। ম্যাচের শেষ ২০ মিনিটে যদিও ওয়েস্ট হ্যামের কামড় সহ্য করতে হয়। সেই কামড়ে টটেনহ্যামের রক্ষণ কিছুটা হলেও চুপসে গিয়েছিল। তারপরও ম্যাচ জিতে আপাতত স্বস্তি। স্পাররা জিতেছে ৩-২ গোলে।

ওয়েস্ট হ্যামের বিরুদ্ধে দল নামানোর আগে ফুটবলারদের সঙ্গে কথা বলেছিলেন মরিনহো। কথা শুনেছেন হ্যারি কেনরা। কোরিয়ান ফুটবলার সন হিউং মিনের গোলে শুরু। তারপরে লুকাস মৌরার গোল। কেনের গোল সবচেয়ে দামি। এই গোলের পরে তিনি টটেনহ্যামের তৃতীয় সর্বোচ্চ স্কোরার। কেনের মোট গোলের সংখ্যা ১৭৫। তার আগে দুই ফুটবলার জিমি গ্রিভস (২৬৬) ও ববি স্মিথ (২০৮)।

কেনের গোল ছাড়াও মরিনহোর সাফল্য সনের মতো ফুটবলারকে আলোয় ফিরিয়ে আনা। দলে মারাত্মক কোনো পরিবর্তন না করে কিছু ফুটবলারকে পছন্দের পজিশন দিয়েছিলেন। সাফল্য সেখানেই। টটেনহ্যামের আক্রমণে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য শুধু গোল নয়, সন ম্যাচেরও সেরা।

কেনের এই গোলের পর টটেনহ্যাম কিছুটা ঝিমিয়ে পড়েছিল। তার ফল হাতেনাতে পায়ও। এই হারে আরও চাপে পড়লেন ওয়েস্ট হ্যামের কোচ ম্যানুয়েল পেল্লেগ্রিনি। শেষ সাত ম্যাচে থেকে দু’পয়েন্ট পায়নি তার দল। অবনমনের আবর্তে ঘুরপাক খাচ্ছে ওয়েস্ট হ্যাম।

অন্যদিকে, হাসছেন মরিনহো। তিন পয়েন্ট ঘরে তুলে লিগে কিছুটা এগিয়ে গেছে টটেনহ্যাম। এবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচ অলিম্পিয়াকোসের বিরুদ্ধে।

বিজ্ঞাপন

ওদিকে থামানো যাচ্ছে না ইয়ুর্গেন ক্লপের লিভারপুলকে। গতবার খেতাব হাতছাড়া হয়েছিল অল্পের জন্য, এবার প্রতিপক্ষকে কোনোরকম সুযোগ দিতে রাজি নয় অলরেড’রা। অ্যাওয়ে ম্যাচে ক্রিস্টাল প্যালেস কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বীতা ছুঁড়ে দিতে পারে বলে ম্যাচের আগে সতর্ক করেছিলেন ক্লপ। ম্যাচে হয়ও তাই। ঘরের মাঠে দারুণ লড়াই করে ক্রিস্টাল প্যালেস। কিন্তু শক্তিশালী লিভারপুলের কাছে হেরে বসে তারা। পিছিয়ে পড়ে ম্যাচে ফিরেও ১-২ গোলে লিভারপুলের কাছে হারতে হয় ক্রিস্টালকে।

লিভারপুলের হয়ে দু’টি গোল সাদিও মানে ও রবের্তো ফিরমিনোর। এই জয়ে ১৩ ম্যাচের ১২টি’তে জয়লাভ করে দ্বিতীয়স্থানে থাকা লেস্টার সিটির চেয়ে ৮ পয়েন্টের ব্যবধান বজায় রাখল শীর্ষস্থানে থাকা লিভারপুল।

অন্য ম্যাচে এগিয়ে গিয়েও ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটির কাছে হেরেছে চেলসি। প্রথমার্ধেই নিশ্চিত হয়ে যায় খেলার ফলাফল। ২১ মিনিটে এনগোলো কন্তের গোলে ‘দ্য ব্লুজ’ এগিয়ে গেলেও ২৯ মিনিটে ডি ব্রুইন ও ৩৭ মিনিটে রিয়াদ মাহরেজের গোলে জয় নিশ্চিত হয় পেপ গার্দিওলার দলের। পাশাপাশি ব্রাইটনকে ২-০ গোলে হারিয়ে চলতি প্রিমিয়ার লিগে দুর্দান্ত ফর্ম অব্যাহত রেখেছে লেস্টার সিটি।

ইতালিয়ান লিগে আবার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো না খেললেও জিতেছে জুভেন্টাস। পিছিয়ে পড়েও আটালান্টাকে তারা ৩-১ গোলে হারায়। গঞ্জালো হিগুয়েনের জোড়া গোলের পর ইনজুরি টাইমে গোল পাওলো দিবালার।

বুন্দেসলিগায় বায়ার্ন মিউনিখ ৪-০ হারায় ডুসেলডর্ফকে। গোল করেন বেঞ্জামিন পাভার্দ, কোরেন্টিন তোলিসো, সের্জে নাব্রি ও ফিলিপে কৌতিনহো।

লা লিগায় দিনের শুরুতে জয় পেয়েছিল বার্সেলোনা। পরে তাদের অনুসরণ করে রিয়াল মাদ্রিদ। রিয়াল সোসিয়েদাদকে তারা হারায় ৩-১ গোলে। দলের হয়ে গোল করেন করিম বেনজেমা, ভালভার্দে ও লুকা মদ্রিচ। এই জয়ে ১৩ ম্যাচে ২৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়স্থানে রিয়াল। সমানসংখ্যক ম্যাচে ২৮ পয়েন্ট হলেও গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় শীর্ষে বার্সেলোনা। রিয়াল-বার্সার রাতে ড্র করেছে তাদের আরেক প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

বিজ্ঞাপন