চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শ্রীলঙ্কার বিমানবন্দর থেকে শক্তিশালী বোমা উদ্ধার

শ্রীলঙ্কার প্রধান বিমানবন্দরে শক্তিশালী বোমা পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ। পরে বিমান বাহিনী বোমাটি নিষ্ক্রিয় করতে সফল হয়।

পুলিশের একটি সূত্র বার্তা সংস্থা এএফপি’কে জানায়, স্থানীয় সময় রোববার রাতের দিকে রাজধানী কলম্বোতে বন্দরনায়েক আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের মূল টার্মিনালের সামনে একটি প্রধান সড়কে ‘ঘরে তৈরি’ একটি পাইপ বোমা পাওয়া যায়। সড়কটি রোববার ইস্টার সানডের অনুষ্ঠানে সিরিজ বোমা হামলার ঘটনার পর কড়া নিরাপত্তার সঙ্গে খোলা রাখা হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

পুলিশের ওই সূত্র গণমাধ্যমকে জানায়, একটি পাইপের ভেতর বিস্ফোরক ঢুকিয়ে বোমাটি তৈরি করা হয়েছিল।

শ্রীলঙ্কান বিমান বাহিনীর মুখপাত্র গ্রুপ ক্যাপ্টেন গিহান সেনেভিরত্নে জানিয়েছেন, এই আইডি’টি (ইমপ্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস- পরিবর্তিত বিস্ফোরক যন্ত্র) স্থানীয়ভাবে তৈরি করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

‘এটি একটি ছয় ফুট লম্বা পাইপ বোমা। রাস্তার পাশে এটি রেখে দেয়া হয়েছিল। আমরা সেখান থেকে বোমাটি সরিয়ে নিয়ে বিমান বাহিনীর একটি আলাদা ঘাঁটিতে নিয়ে গিয়ে নিরাপদে বোমাটি নিস্ক্রিয় করতে সফল হয়েছি,’ বলেন তিনি।

এ ঘটনার ফলে বিমানবন্দরের দৈনন্দিন ফ্লাইটগুলো কিছু সময়ের জন্য জটিলতার মুখে পড়লেও পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসে।

বিজ্ঞাপন

কড়া নিরাপত্তা তল্লাশির কারণে শ্রীলঙ্কার জাতীয় এয়ারলাইনার শ্রীলঙ্কান এয়ারলাইন্স ইতোমধ্যে বন্দরনায়েক বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়নে আগ্রহী যাত্রীদের ফ্লাইট ছাড়ার সময়সূচির অন্তত চার ঘণ্টা আগে চেক-ইন কাউন্টারে রিপোর্ট করতে অনুরোধ জানিয়েছে।

রোববার সকালে শ্রীলঙ্কায় ইস্টার সানডের অনুষ্ঠানে গির্জা ও পাঁচ তারকা হোটেলসহ মোট আটটি স্থানে সিরিজ বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে এ পর্যন্ত ২৯০ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ঘটনায় সাড়ে ৪শ’রও বেশি আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ।শ্রীলঙ্কা-ইস্টার সানডে-বোমা হামলা-বিমানবন্দরে বোমা

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে রোববার রাত পর্যন্ত ১৩ জনকে সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার করা হয়। সোমবার সকালে গ্রেপ্তারের সংখ্যা বেড়ে ২৪ জনে দাঁড়িয়েছে বলে পুলিশ মুখপাত্র রুয়ান গুনাসেকেরার বরাত দিয়ে জানিয়েছে কলম্বো গার্ডিয়ান। ওই ঘটনার পর পুরো এলাকায় কারফিউ জারি করা হয়েছে।

সরকারের পক্ষ থেকে ফেসবুক-টুইটারসহ সকল সামাজিক মাধ্যম সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে।

তবে এ হামলার দায় এখনো কোন সংগঠন স্বীকার করেনি। তবে দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেছেন, সম্ভবত কোন একটি সংঘবদ্ধ দল এ হামলা করেছে।

হতাহতদের মধ্যে দুই বাংলাদেশিসহ বিপুল সংখ্যক বিদেশি পর্যটক রয়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। নিহতদের মধ্যে প্রায় নয়টি দেশের নাগরিক রয়েছেন বলে ওই হাসপাতালের বরাত দিয়ে জানিয়েছেন বিবিসি।

Bellow Post-Green View