চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শাল্লায় হিন্দুদের বাড়িতে হামলায় ক্যালগেরি প্রবাসীদের নিন্দা

সুনামগঞ্জের শাল্লায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়িতে হামলা ও লুটপাটের ঘটনায় কানাডার ক্যালগেরিতে বসবাসরত সিলেট প্রবাসীরা সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি তাদের

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কলামিস্ট, উন্নয়ন গবেষক ও সমাজতাত্ত্বিক বিশ্লেষক মোঃ মাহমুদ হাসান। প্রবাসীদের পক্ষে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন: বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খৃষ্টানসহ নানা মত ও পথের মানুষের সমন্বয়ে বৃহত্তর সিলেটের সুনাম ও সুখ্যাতি কালের পরিক্রমায় একটি সুন্দর সমাজ ব্যবস্থার প্রকৃষ্ট উদাহরণ। সম্প্রতি মাওলানা মমিনুল হকের ধর্মসভাকে কেন্দ্র করে এক যুবকের ফেসবুক পোস্ট নিয়ে তিনটি গ্রামের হাজার হাজার সনাতন ধর্মাবলম্বী মানুষের উপর যে বর্বরোচিত হামলার ঘটনা ঘটেছে ক্যালগেরি প্রবাসী সিলেটবাসী তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

হাজার বছরের সামপ্রদায়িক সম্প্রীতির ইতিহাসকে সমুজ্জ্বল রাখতে সদাসয় সরকার দ্রুত আইনানুগ কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে দেশে ও প্রবাসে অবস্থানরত শান্তি প্রিয় সিলেটবাসীদের মধ্যে বিরাজমান গভীর উদ্বেগ নিরসনে সচেষ্ট হবেন। অদূর ভবিষ্যতে বাংলাদেশে যাতে এমন পৈশাচিক ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয়, তার জন্য দৃষ্টান্তমুলক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিও জানানো হয় সেখানে।

সিলেট এসোসিয়েশন অব ক্যালগেরির সভাপতি রুপক দত্ত বলেন, সাম্প্রদায়িক অপশক্তি দেশ ও জাতির শত্রু। সাম্প্রদায়িক শক্তি যে ধর্মেরই হোক না কেন এরা কখনো উন্নয়ন আর প্রগতির সহায়ক নয়।

শাল্লার ঘটনায় চরম উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি বলেন, প্রশাসন ও রাজনৈতিক দলগুলো কোনভাবেই এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনার দায় এড়াতে পারেন না।

বিজ্ঞাপন

বঙ্গবন্ধু পরিষদের সহ সভাপতি প্রকৌশলী মোহাম্মদ কাদির তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির এমন ঘৃণ্য আস্ফালন জাতির জন্য চরম লজ্জার। দ্রুত সকল অপরাধী ও অন্তরালে থাকা সহযোগীদের আইনের আওতায় আনতে তিনি জোর দাবি জানান। ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণসহ প্রশাসন ও রাজনীতিবিদদের ব্যর্থতা খতিয়ে দেখার জন্য তিনি উদাত্ত আহবান জানান।

সাবেক ছাত্রনেতা ও বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব কিরন বনিক শংকর বলেন, সুনামগঞ্জের শাল্লার নোয়াগাঁও গ্রামে সাম্প্রতিক যে নারকীয় ঘটনা ঘটে গেল তার সম্পর্কে কিছু বলতে গেলেই লজ্জায় মাথা নিচু হয়ে যায়। স্বাধীনতার অর্ধশতাব্দী পরেও যে দেশ আর জাতি নিয়ে গর্ব করি সেই দেশে জন্মেছি বলে আবার লজ্জাও হয়।

তিনি দেশে এবং দেশের বাহিরে সকল বাংলাদেশী যাদের এই ঘটনায় বিবেকে আঘাত লেগেছে, সবাইকে সম্মিলিতভাবে তীব্র নিন্দা, ঘৃণা ও সরকারের কঠোর হস্তক্ষেপের দাবি জানান।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার মাসে এসব কর্মকাণ্ড স্বাধীনতার মূল আদর্শের পরিপন্থি। এই দেশের স্বাধীনতা অর্জনে সকল ধর্ম বর্নের অবদান সমান ছিল তাই সকলের সমঅধিকার থাকা বাঞ্চনীয়।

দোষীদের শনাক্ত করে দল মতের উর্ধ্বে উঠে দ্রুত সকল অপশক্তিকে বিচারের আওতায় এনে তিনি কঠোর শাস্তির দাবি জানান।