চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শহীদুল জহিরের মৃত্যুদিনে ‘জীবন ও রাজনৈতিক বাস্তবতা’

বাংলা কথাসাহিত্যে শক্তিশালী নাম শহীদুল জহির। তাঁর মৃত্যুদিনে মঞ্চে তারেই প্রথম উপন্যাসের মঞ্চায়ন>>>

বাংলা কথাসাহিত্যে শক্তিশালী নাম শহীদুল জহির। লেখনীতে জাদু বাস্তবতার অনন্য এই কারিগরের মৃত্যুবার্ষিকী শনিবার (২৩ মার্চ)। আর এই দিনে তার লেখা মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক অনন্য উপন্যাস ‘জীবন ও রাজনৈতিক বাস্তবতা’র মঞ্চায়ন শিল্পকলায়। যার মূল কারিগর মঞ্চের আলোচিত নাম সৈয়দ জামিল আহমেদ।

স্পর্ধার ব্যানারে ১৪ মার্চ রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমীতে শহীদুল জহিরের লেখা উপন্যাস থেকে একই নামে ‘জীবন ও রাজনৈতিক বাস্তবতা’ নাটকটির উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হয়। টানা সাতদিন চলে নাটকটির মঞ্চায়ন। ২০ মার্চ ছিল নাটকটির শেষ প্রদর্শনী। তবে শহীদুল জহিরের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আরো তিন দিন নাটকটির শো করছে স্পর্ধা।

বিজ্ঞাপন

শহীদুল জহিরের উপন্যাস অবলম্বনে নাটকটি ইতিমধ্যে বেশ সাড়া ফেলেছে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে। ২৩ মার্চ এই সাহিত্যিকের মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানিয়ে থাকছে নাটকটির একটি প্রদর্শনী। এরপর ২৪ ও ২৫ মার্চ থাকবে প্রদর্শনী। ২৫ মার্চ শেষ দিন হওয়ায় এদিন দুটি শোয়ের আয়োজন করেছে স্পর্ধা।

১৯৫৩ সালের ১১ সেপ্টেম্বর পুরান ঢাকার নারিন্দার ভজহরি সাহা স্ট্রিটে জন্মগ্রহণ করেন শহীদুল জহির। ১৯৮১ সালে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে সহকারী সচিব পদে যোগ দেন। ২০০৮ সালের ২৩ মার্চে তার মৃত্যুর আগ পর্যন্ত পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে সচিব পদে কাজ করে গেছেন।

‘জীবন ও রাজনৈতিক বাস্তবতা’ শহীদুল জহিরের লেখা প্রথম উপন্যাস। যা তিনি লিখেছিলেন ১৯৮৮ সলে। এরপর তার লেখা ‘সে রাতে পূর্ণিমা ছিল’, ‘মুখের দিকে দেখি’, ‘আবু ইব্রাহীমের মৃত্যু’ নামের উপন্যাসগুলোও সাহিত্যাঙ্গনে বেশ সমাদৃত হয়।

বিজ্ঞাপন