চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Cable

‘শরিফুলের নামাজ পড়ার ধরন দেখে দলে নেয় জেএমবি’

Nagod
Bkash July

দিনাজপুরের কাহারোলে ইসকন মন্দিরে বোমা হামলা এবং ইতালীয় নাগরিক ডা. ফাদার পিয়েরো পারোলারিকে গুলি করে হত্যাচেষ্টায় জড়িত শরিফুল ইসলামকে বগুড়ার একটি মসজিদ থেকে দলে ভিড়িয়ে ছিলো জেএমবি। মূলত ওই নামাজ পড়ার ধরন দেখে তাকে দলে নেওয়া সিদ্ধান্ত নেন জঙ্গি নেতারা।

Reneta June

ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে দেওয়া ৬ পৃষ্টার জবানবন্দিতে এসব তথ্য জানান শরিফুল।

বৃহস্পতিবার দিনাজপুরের অতিরিক্ত চীফ জুটিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ওই দুই ঘটনায় জড়িত বলে স্বীকার করে জবানবন্দি দেন তিনি।

‘বগুড়ায় পড়াশুনা করতে আসার পর একটি মসজিদে নিয়মিত নামাজ পড়তে যেতাম। সেখানে এক ব্যক্তির মাধ্যমে আমার সঙ্গে যোগাযোগ হয় জেএমবির এক তাত্ত্বিক নেতার। ওই নেতাই আমাকে বিভিন্ন বিষয়ে পারদর্শি করে তোলেন।’ জবানবন্দিতে বলেন শরিফুল।

তিনি আরো বলেন, ‘ইতালীয় নাগরিককে হত্যার নির্দেশ আসার পর অামার কাছে অস্ত্র এবং মোটরসাইকেল পৌঁছে দেওয়া হয়। আমি মোটরনসাইকেল চালাচ্ছিলাম। আমার পেছনে আরো দুইজন ছিলো। গুলি করে মাঝে বসে থাকা ব্যক্তি। আমরা নিশ্চিত ছিলাম ওই বিদেশী মারা গেছে। কিন্তু পরে আমাদের জানানো হয় সে মরেনি। অপারেশন শেষে আমাদের কাছে থাকা অস্ত্র ফিরত নেওয়া হয়।’

তবে ওই তাত্ত্বিক নেতা বা অন্য কোনো সঙ্গীর নাম বলতে পারেনি শরিফুল ইসলাম। কারণ এরা সাংগঠনিক নাম ব্যবহার করেছে। কেউ কারো প্রকৃত নাম জানে না। 

পুলিশকে শরিফুল জানিয়েছে, জেএমবির একজন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ক্যাডার সে। তার বাড়ী গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায়।

গত ১০ ডিসেম্বর দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার ইসকন মন্দিরে ধর্মীয় সভা চলাকালে রাত সাড়ে ৮টায় ঘটে বোমা হামলা ও গুলি বর্ষণের ঘটনা। এতে দু’জন আহত হয়।

উপস্থিত জনতা একটি মোটরসাইকেলসহ শরিফুলকে আটক করে। পরের দিন মোসাব্বির আলম খন্দকার (২২) নামে আরও এক দুর্বৃত্তকে বীরগঞ্জ সিংড়া বন এলাকা থেকে আটক করা হয়।

এর আগে গত ১৮ নভেম্বর ইতালীয় নাগরিক ডা. ফাদার পিয়েরো পারোলারিকে গুলি করে হত্যার চেষ্টা চালায় দুর্বৃত্তরা।

BSH
Bellow Post-Green View