চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রোজিনার পরিচালনায় প্রথম সিনেমাতে নায়ক নিরব

একাধিক মাইলফলক ও জনপ্রিয় সিনেমার নায়িকা রোজিনা প্রযোজনার পরে এবারই প্রথম পরিচালনায় আসছেন। তার পরিচালিত প্রথম সিনেমা হতে যাচ্ছে ‘ফিরে দেখা’। আর সেই সিনেমাতে নায়ক হচ্ছেন হালের আলোচিত নিরব।

রবিবার বিকেলে চিত্রনায়িকা রোজিনা চ্যানেল আই অনলাইনকে খবরটি নিশ্চিত করে জানান, নিরবকে নিয়ে পহেলা মার্চ ‘ফিরে দেখা’ সিনেমার শুটিংয়ে যাচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন

এর আগে প্রয়াত কিংবদন্তী চিত্রনায়ক রাজ রাজ্জাক পরিচালিত ‘মন দিয়েছি তোমাকে’ সিনেমাতে অভিনয় করেছিলেন নিরব। সাহারার বিপরীতে ২০১২ নিরব অভিনীত ওই সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছিলেন। এবার আরেক গুণী চিত্রতারকা রোজিনার পরিচালনায় সিনেমা করতে যাচ্ছেন তিনি। ইতোমধ্যেই রোজিনার সঙ্গে ‘ফিরে দেখা’ কয়েক দফায় আলোচনা করেছেন বলে জানান নিরব।

সিনেমাটি তার ক্যারিয়ারের অর্জন হতে যাচ্ছে জানিয়ে নিরব বলেন, রোজিনা আপু এবং আমার দুজনেই বাড়ি রাজবাড়ি জেলাতে। উনি দেশের গর্ব, আমাদের রাজবাড়ির গর্ব। একই এলাকার মানুষ হওয়ার তার প্রতি ইতোমধ্যেই আমার অন্যরকম আন্তরিকতা তৈরি হয়েছে। পাশাপাশি আমাদের বোঝাপড়াও মজবুত হয়েছে। এতোদিনের অভিজ্ঞতা দিয়ে তিনি সিনেমা করতে যাচ্ছেন। সেখানে আমি নায়ক। আমার জন্য অন্যরকম পাওয়া। আশা করছি, ঠিকভাবে কাজটি শেষ হবে এবং আগামীতে আরো কাজ হবে।

‘ফিরে দেখা’ সরকারী অনুদান প্রাপ্ত সিনেমা। ২০১৯-২০ অর্থ বছরে রোজিনা এ সিনেমার জন্য অনুদান পেয়েছেন। তিনি বললেন, ফিরে দেখা নির্মিত হবে রোজিনা ফিল্মসের ব্যানারে। এ প্রডাকশন থেকে আগে দোলনা, জীবন ধারা, রাঁধা কৃষ্ণসহ অনেকগুলো সিনেমা করেছি। তাছাড়া রবীন্দ্রনাথ, শরৎ চন্দ্র, হুমায়ূন আহমেদ, জাফর ইকবালের গল্প নিয়ে নাটক বানিয়েছি ও প্রযোজনা করেছি। তবে সিনেমা পরিচালনা করিনি। এবারই নিরবকে নিয়ে ফিরে দেখা ছবির মাধ্যমে প্রথমবার পরিচালনা করতে যাচ্ছি। আরও শিল্পীরা থাকবে। আশা করছি, চলতি মাসের মধ্যে অন্যদের চূড়ান্ত করতে পারবো।

মুক্তিযুদ্ধের সময়ের গল্প নিয়ে ‘ফিরে দেখা’ সিনেমার কাহিনী। চিত্রনাট্য করেছেন রোজিনা নিজেই। গোয়ালন্দ উপজেলার কুমড়াকাধি গ্রামের একটি পরিবার ও রোজিনার স্মৃতি থেকে কিছু ঘটনা নিয়ে ছবির গল্প। তিনি বলেন, ‘গোয়ালন্দ আমার নানাবাড়ি। যুদ্ধের সময় আমি সেখানেই ছিলাম। বোঝার মতো বয়স ছিল তখন। সিনেমায় আমার দেখা যুদ্ধের সময়ের কিছু ঘটনাও থাকবে।’

দুই শতাধিক ছবির এ অভিনেত্রী বললেন, গল্পে যুদ্ধকালীন গোয়ালন্দের নদী ও এর আশপাশের গ্রাম আছে। গল্পের এলাকাতেই সিনেমা শুটিং হবে। ঘরে ঘরে যুদ্ধ হয়েছিল। এর মধ্যে রাজবাড়ির একটি পরিবারের গল্প নিয়েই এ সিনেমা। অনেকগুলো বছর আগে গল্পটা শুনেছিলাম। এবার সেই গল্প তুলে ধরছি ‘ফিরে দেখা’ সিনেমা। বিশ্বাস করি সাকসেস হবো। নিরবের মধ্যে ভালো কাজের চেষ্টা ও আগ্রহ আমাকে মুগ্ধ করেছে। আশা করছি সবার সুন্দর সহযোগিতা আমার সঙ্গে থাকবে।