চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ধর্ষণের শাস্তি নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় স্কুলছাত্রী স্মৃতি আক্তার রীমাকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছে পরিবার ও সহপাঠীরা।

এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে তারা প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

বিজ্ঞাপন

শনিবার দুপুরে হোসেনপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে ঘণ্টাব্যাপী এ মানবন্ধন হয়। হোসেনপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় আয়োজিত মানববন্ধনে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, নিহতের পরিবার ও এলাকার মানুষ অংশ নেন।

রীমার সহপাঠীরা বলেন, রীমাকে যারা ধর্ষণের পর হত্যা করেছে আমরা তাদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও কঠোর শাস্তি দাবি করছি। এ ঘটনায় আমরা আতঙ্কিত। আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দাবি জানাই, জড়িতদের এমন শাস্তি দেয়া হোক আর যেন এ ধরনের ঘটনা না ঘটে।

বিজ্ঞাপন

রীমার শিক্ষককরাও একই দাবি জানিয়ে বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ সকলের কাছে দাবি, আর যেন কোনো মায়ের বুক খালি না হয়। ভুক্তভোগী পরিবারের নিরাপত্তার দাবিও জানিয়েছেন শিক্ষকরা।

রীমার পরিবারের দাবি, এ ঘটনায় মামলার আসামিরা মামলা তুলে নেয়ার জন্য হুমকি দিচ্ছে। তারা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। তারা মেয়ে হত্যার বিচারের জন্য প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। একইসঙ্গে তারা তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছেন।

গত বুধবার রাতে কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার চরফরাদী এলাকায় নানা বাড়িতে বেড়াতে এসে গণধর্ষণ ও হত্যার শিকার হয় পার্শ্ববর্তী হোসেনপুর উপজেলার জামাইল গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের মেয়ে ও হোসেনপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী স্মৃতি আক্তার রীমা। বৃহস্পতিবার সকালে নানা বাড়ির পেছনে একটি গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় তার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে রীমার মা বাদী হয়ে চরফরাদী গ্রামের জাহিদ, পিয়াস, রুমান ও রাজু নামে চার যুবককে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে পাকুন্দিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন। রাতে টয়লেটে গেলে আসামিরা মেয়েটিকে অপহরণ করে পালাক্রমে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয় বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

Bellow Post-Green View