চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রাখাইনের অধিকাংশ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ বন্ধ রাখছে মিয়ানমার

পরিস্থিতি স্থিতিশীল না থাকার কথা বলে মিয়ানমারের আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে রাখাইন রাজ্যের বেশিরভাগ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির জাতীয় নির্বাচন কমিটি।

রয়টার্স জানায়, আগামী ৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া মিয়ানমারের জাতীয় নির্বাচনে রাখাইনের অধিকাংশ ভোট কেন্দ্র বন্ধ রাখবে মিয়ানমার। কারণ হিসেবে ওই অঞ্চলের অস্থিতিশীল পরিবেশকে দায়ী করেছে নির্বাচন কমিটি।

বিজ্ঞাপন

এই অঞ্চলের বেশিরভাগ সংসদীয় আসন মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চির বিরোধীদের হাতে রয়েছে, যেখানে নিয়মিত জাতিগত সংঘাতের কারণে অস্থিতিশীল পরিবেশ বিরাজ করে।

বিজ্ঞাপন

ক্ষমতাসীন ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি দাবি করেছে, বুধবার নির্বাচনী প্রচারণাকালে তাদের তিনজন প্রার্থী রাখাইনে অপহৃত হয়েছেন। এই বিষয়ে পুলিশ কিংবা আরাকান বিদ্রোহী গ্রুপ কোনো মন্তব্য বা বিবৃতি দেয়নি।

বিজ্ঞাপন

এই পরিস্থিতিতে শুক্রবার নির্বাচন কমিটি বলছে, রাখাইনের কিছু এলাকায় সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের অন্তরায়। ১৭টি এলাকার মধ্যে ৯টি এলাকায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে না। বাকি ৪টিতেও কিছু সময় ভোট গ্রহণ করা হবে।

এই বিষয়ে  আরাকান লিগ ফর ডেমোক্রেসির মুখপাত্র বলছেন, এটি আমাদের নির্বাচনে বিরাট প্রভাব ফেলবে। সাধারণত কখনোই ১০০ শতাংশ অবাধ ও সুষ্ঠু ভোট করা যায় না। আর বিগত সময়ের চেয়ে এবার নির্বাচন পরিস্থিতি নাজুক হবে।

এই বিষয়ে মিয়ানমার সরকারের পক্ষ থেকে অবশ্য কোনো ধরনের মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

সর্বশেষ ২০১৫ সালের নির্বাচনে আরাকান ন্যাশনাল পার্টি রাখাইন রাজ্যের বেশিরভাগ আসন ও দেশব্যাপী তৃতীয় সর্বোচ্চ সংখ্যক ভোট পেয়েছিল। দলটি মিয়ানমারে একটি ফেডারেল ব্যবস্থা চায়।

রাখাইন রাজ্য নতুন করে আলোচনায় আসে ২০১৭ সালে, যখন ৭ লাখ ৩০ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা জাতিগত নিধনের শিকার হয়ে দেশত্যাগ করে বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়।