চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

যেসব কারণে গত পাঁচ বছর অভিনয় থেকে দূরে শ্রাবণ্য

পাঁচ বছর পর ফিরেই নায়িকা প্রধান তিন গল্পে শ্রাবণ্য তৌহিদা…

সবসময় উপস্থাপনায় দেখা যায় শ্রাবণ্য তৌহিদাকে। দেশের অন্যতম সুপরিচিত উপস্থাপিকা হিসেবে তার আলাদা সুনাম। তবে কালেভদ্রে অভিনয়ও করতেন শ্রাবণ্য। কিন্তু গত পাঁচ বছর তাকে অভিনয় পাওয়া যায়নি, ছিলেন শুধু উপস্থাপনা নিয়ে।

নতুন খবর জানালেন শ্রাবাণ্য। জানালেন, পাঁচ বছর পর অভিনয়ে ফিরেছেন। ঈদুল আযহার জন্য তিনটি নাটকে তিনি অভিনয় করেছেন। যেখানে তার সহশিল্পী সজল, ইরফান সাজ্জাদ ও খায়রুল বাশার।

বিজ্ঞাপন

চ্যানেল আই অনলাইন এর সঙ্গে আলাপে শ্রাবণ্য তৌহিদা জানান, সবগুলোতে তিনি একেবারে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

নাটকগুলো হচ্ছে, ইমদাদুল হক মিলনের চিত্রনাট্যে নূর আনোয়ার হোসেনের পরিচালনায় রোমান্টিক নাটক বিয়ের কদিন আগে, সাইকো থ্রিলার ও কাপলদের টানাপোড়নের গল্পের নাটক ‘ভাঙনের পর’, যেটির পরিচালক রাইসুল তমাল এবং গল্প চিত্রনাট্য রুদ্র হকের।

অন্যটি রুদ্র হকের গল্প ও চিত্রনাট্যে মাহমুদ দিদারের পরিচালনায় ‘প্রিয় ডাকবাক্সো’, যেখানে এযুগের প্রেম এবং আগের যুগের প্রেমের অন্যরকম একটা স্বাদ পাওয়া যাবে।

শ্রাবণ্যের কথা, এছাড়াও অনেকগুলো চিত্রনাট্য তিনি পেয়েছিলাম। সেগুলো তার মনে ধরেনি বলে অভিনয় করিনি। তবে যে তিনটি কাজ করেছেন, সেগুলো বলা যায় নায়িকা প্রধান গল্প।

গত পাঁচ বছর কেন অভিনয় করেননি জানতে চাইলে শ্রাবণ্য বলেন, আসলে অভিনয়টাই করতে চাইনি। এবার যে তিনটি নাটক করেছি সেখানে অনেক সময় দিতে হয়েছে। তিনটি কাজের জন্য শুটিং করেছি ছয়দিন। ভোর থেকেই মধ্যরাত পর্যন্ত শুটিং হাউজে কাটতো। এতো দীর্ঘসময় ম্যানেজ করার সুযোগ ছিল না। কারণ আমি ডাক্তারি পেশায় জড়িত।

কিন্তু শ্রাবণ্যের কাছে তার ভক্তরা আবদার করেন, তিনি যেন বিশেষ দিন উপলক্ষে অন্তত দু-তিনটি নাটক করেন। ভক্তদের অনুরোধ রাখতেই অভিনয় করেছেন শ্রাবণ্য।

অবশ্য আরও কারণ তিনি জানালেন। শ্রাবণ্য বললেন, আমার নিজের অনেক ইমপ্রুভমেন্ট দরকার। নিজেকে ঝালাই ও প্রমাণ করার জন্য অভিনয় করলাম। আগামীতেও ভালো চিত্রনাট্য ও সময়ের সঙ্গে ব্যাটে-বলে মিললে অভিনয় করবো।

ক্রিকেট বিষয়ক অনুষ্ঠান, কর্পোরেট শো, রিয়েলিটি শো থেকে তারকাদের নিয়ে শোগুলো করে আলাদা জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন শ্রাবণ্য তৌহিদা। উপস্থাপনা তার কাছে এখন অনেকটা ডাল ভাতের মত সহজ মনে হলেও অভিনয় করা খুব কঠিন বলে মনে করেন শ্রাবণ্য।

তিনি বলেন, যখন উপস্থাপনা শুরু করেছিলাম অভিজ্ঞ ছিলাম না। ধীরে ধীরে শিখেছি। অভিনয়ে আমি অভ্যস্ত নই। এবারের কাজগুলো থেকে অনেককিছু শিখেছি। সজল ভাই আমাকে খুব সহযোগিতা করেছেন এবং বলেছেন আমি ‘কুইক লার্নার’। পরে সেভাবেই অভিনয়ের চেষ্টা করেছি। এছাড়া অন্য কাজগুলো থেকেও এক্সপ্রেশন ডেলিভারি, সংলাপ বলাসহ অনেককিছু শিখেছি।

ঈদের তিনটি নাটক ছাড়াও সরকারি বেসরকারি টিভির বিভিন্ন শোতে উপস্থাপনায় পাওয়া যাবে শ্রাবণ্য তৌহিদাকে। এর মধ্যে ক্রিকেট শো, সাত দিনব্যাপী একটি মিউজিক্যাল লাইভ শো থাকছে।

শ্রাবণ্য তৌহিদা বলেন, দফায় দফায় লকডাউনের কারণে তুলনামূলক কাজ কম হয়েছে। এর মধ্যেও বেছে বেছে ভালো অনুষ্ঠানগুলো করার চেষ্টা করছি।

বিজ্ঞাপন