চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

যেকোনো রিয়েলিটি শো আমি ভীষণ এনজয় করি: ফেরদৌস

ফেরদৌস আহমেদ, বাংলাদেশের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক। শুধু বাংলাদেশে নয়, নায়ক হিসেবে তার সুনাম আছে ভারতেও। বর্তমানে চলচ্চিত্রে তাকে খুব বেশি দেখা না গেলেও টেলিভিশনের বিভিন্ন রিয়েলিটি শো’তে নিয়মিতই দেখা যাচ্ছে তাকে। চলচ্চিত্রে বর্তমান ব্যস্ততা, সাম্প্রতিক সময়ের রিয়েলিটি শো নিয়ে নিজের পর্যবেক্ষণ ও আশার কথা চ্যানেল আই অনলাইনকে জানালেন তিনি:

কেমন আছেন ফেরদৌস ভাই?
জ্বী, অনেক ভালো আছি।

বিজ্ঞাপন

আপনার সিনেমাসহ অন্যান্য কাজকর্মের কী অবস্থা, কেমন চলছে?
এইতো সবকিছুই ভালো চলছে।

আপনার অভিনীত ‘গাঙচিল’ ছবিটির শুটিং কোন পর্যায়ে রয়েছে?
এখন পর্যন্ত বলা যায় ফিফটি পার্সেন্ট কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এই বৃষ্টির ঝামেলা শেষ হলে আমরা হয়তো অক্টোবরে আবার ‘গাঙচিল’-এর শুটিং শুরু করব। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে এই ছবির সমস্ত কাজ শেষ করার প্ল্যান রয়েছে।

তারমানে মুক্তির পরিকল্পনা আগামী বছর?
হ্যাঁ, এবছর তো প্রশ্নই ওঠে না। আমাদের কাজ শেষ করতেই নভেম্বর-ডিসেম্বর লেগে যাবে। আগামী বছরেই ছবিটি মুক্তি পাবে হয়তো।

কলকাতায় একটা সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন ওইটার কী খবর এখন?
এটাতো আমার ভিসা জটিলতার জন্য আটকে আছে। ওই ছবির নাম ‘দত্ত’। আমার জন্যই এই ছবির কাজ আটকে আছে। তবে এরমধ্যে লন্ডনে আর একটি সিনেমার শুটিং করে এসেছি।

এটা কোন ছবি?
ওই ছবির নাম ‘যদি আরেকটু সময় পেতাম’। ছবির পরিচালক জিএম ফারুক। এই ছবিতে আমার বিপরীতে একজন বিদেশী নায়িকা অভিনয় করেছেন।

এই ছবির শুটিং কি শেষ?
হ্যাঁ, এই ছবির শুটিং শেষ হয়েছে।

সিনেমার বাইরেতো ইদানিং আপনাকে প্রচুর রিয়েলিটি শো’র বিচারক হিসেবে দেখছি। এই সময়ের রিয়েলিটি শো নিয়ে আপনার পর্যবেক্ষণ কী?
প্রত্যেকটি রিয়েলিটি-শো নিয়ে আমি এক্সাইটেড থাকি। কারণ এখন যে সময়, যে যুগ এসেছে আমরা যদি মিডিয়ার দিকে তাকাই তাহলে দেখবো, ম্যাক্সিমাম ক্ষেত্রে তারাই খুব ভালো অবস্থানে আছেন যারা বিভিন্ন রিয়েলিটি শো থেকে উঠে এসেছেন। রিয়েলিটি শো থেকে যারা উঠে আসছে তাদের বেশিরভাগকেই দেখছি ভালো কাজের সাথে সম্পৃক্ত। রিয়েলিটি শো থেকেই উঠে আসা প্রতিযোগীদের মধ্য থেকেই কিন্তু আমরা বিভিন্ন সেক্টরে স্টার, সুপারস্টার পেয়েছি। নিত্য সংগীত মডেলিং সব সেক্টরে। সেই দিক থেকে রিয়েলিটি-শো কে আমি খুব পজিটিভলি দেখি। আমার মনে হয় এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি রিয়েলিটি শো’র বিচারক আমি ছিলাম। আমি আসলে বিষয়টা এনজয় করি।

সর্বশেষ ‘মেনস ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি চ্যানেল আই হিরো-কে হবে মাসুদ রানা?’তেও আপনি প্রধান বিচারক…
মাসুদ রানা খুঁজে বের করার মতো এই উদ্যোগটা কিন্তু খুবই পজিটিভ। যে কোনো চরিত্রের জন্য একটি রিয়েলিটি শো আয়োজন এটা কিন্তু খুবই দুরুহ কাজ। আর মাসুদ রানা চরিত্রটা আমাদের জন্য একটা ড্রিম। আমরা ছোট থেকে বড় হয়েছি মাসুদ রানা চরিত্রটা পড়ে। ফলে এটার আয়োজন একদিক থেকে যেমন বিরাট একটা চাপের, অন্যদিকে যারা প্রতিযোগী তাদের জন্য আরো বেশি চাপের ছিল। এই শো’টির প্রিলিমিনারি বাছাই পর্ব নিয়ে বহু বিতর্ক হয়েছে। কিন্তু যারা বিচারকের আসনে ছিলেন, তারা প্রত্যেকেই নিজেদের জায়গায় পরীক্ষিত।

যারা বিচারক ছিলেন, তাদের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন উঠার কোনো যৌক্তিক কারণ নেই। হ্যাঁ, তাদের আরেকটু ফ্লেক্সিবল হওয়া উচিত ছিলো, কারণ আমি ব্যক্তিগত ভাবে মনি করি ‘বাহ্যিক সৌন্দর্য দিয়ে ট্যালেন্ট বিচার করা যায় না। মানুষের ভেতরে একটা আলাদা সৌন্দর্য রয়েছে, অনেকেই আছে যারা ইন্ট্রুভার্ট। তাদের বিষয়গুলোও দেখা উচিত। কিন্তু মাসুদ রানার বিভিন্ন ক্লিপিং শেয়ার করে যেভাবে ট্রল করা হচ্ছে, রোস্টিং হচ্ছে এগুলো ভালো চোখে দেখি না। প্রতিযোগীদের সাথে আমরাও তো মজা করি, এখন এটা একটা মুশকিল হলো যে, জাজ হয়তো একটু কনটেস্টদের সাথে দুষ্টুমি করছে কিংবা উইটিং করছে, তখন সেটার আগে-পিছের অংশটুকু কেটে সোশ্যাল মিডিয়া বা ইউটিউবে দিয়ে দিলো! এটা খুব ভালো প্র‌্যাকটিস না। আর যারা টুকরো ক্লিপ দেখে হইচই ফেলে দিচ্ছেন, তাদের বলি: যতটুকু দেখলাম ততটুকুই বিশ্বাস করে ফেললাম, এমনটা যেন না হয়। আমি আসলে উভয়পক্ষের থেকেই বলছি। কারণ ‘মেনস ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি চ্যানেল আই হিরো-কে হবে মাসুদ রানা?’র বাছাই পর্বের বিচারক হিসেবে যারা ছিলেন, তারা প্রত্যেকেই সেন্সিবল।

বিচারক হিসেবে রিয়েলিটি শোগুলোকে কেমন দেখতে চান?
নিজেরও কিছু দায়িত্ব আছে। বিবেকবোধকে জাগ্রত করা সবচেয়ে বেশি জরুরী। কাণ্ডজ্ঞান কে কাজে লাগাতে হবে। আর শিক্ষিত হলে হবে না, সুশিক্ষিত হতে হবে। শুধু নাগরিক হলে হবে না, সুনাগরিক হতে হবে। এই পাঠগুলো রিয়েলিটি শো দেয়।

এসব কারণেই রিয়েলিটি-শো আমার কাছে দারুণ এক্সাইটমেন্ট এর জায়গা, আমি ভীষণ এনজয় করি। চোখের সামনে কথিত সাধারণ একটা মানুষ অসাধারণত্বের দিকে যাচ্ছে, তার ভেতরের ট্যালেন্ট বের হয়ে আসছে আমাদের বা সকলের হাত ধরে, আই রিয়েলি এনজয় ইট! এটা কে যেনো নানাভাবে আলোচিত-সমালোচিত করে জায়গাটা নষ্ট না করেন, এটা সবার প্রতিই আমার অনুরোধ।

Bellow Post-Green View