চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা শিথিল, হুয়াওয়ের প্রত্যাখ্যান

যুক্তরাষ্ট্র আমাদের ছোট করে দেখেছে: হুয়াওয়ে প্রতিষ্ঠাতা

চীনের জনপ্রিয় স্মার্টফোন নির্মাতা কোম্পানি হুয়াওয়ের ওপর আরোপিত বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞা সাময়িকভাবে কিছুটা শিথিল করেছে মার্কিন সরকার।

হুয়াওয়ের বর্তমান গ্রাহকদের ভোগান্তি কমাতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের এই নতুন সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করেছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্মার্টফোন নির্মাতা হিসেবে পরিচিত হুয়াওয়ে কর্তৃপক্ষ। জানিয়েছে, তারা মার্কিন অবরোধের জন্য আগে থেকেই প্রস্তুত ছিল।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, মার্কিন বাণিজ্য বিভাগ আপাতত হুয়াওয়ে টেকনোলজিস কোম্পানি লিমিটেডকে আমেরিকায় প্রস্তুত পণ্য কেনার অনুমতি দিয়েছে যেন সেটি চলমান নেটওয়ার্ক ধরে রাখতে পারে এবং বাজারে থাকা ডিভাইসগুলোর জন্য নিয়মিত সফটওয়্যার আপডেট দিতে পারে।

তবে বিশ্বের সবচেয়ে বড় টেলিযোগাযোগ সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী এই কোম্পানি নতুন কোনো ডিভাইস তৈরির জন্য কোনো আমেরিকান যন্ত্র বা যন্ত্রাংশ কিনতে পারবে না। এর জন্য বিশেষ লাইসেন্স অনুমোদন লাগবে, যা যুক্তরাষ্ট্র দেবে বলে মনে হয় না।

হুয়াওয়েকে এনটিটি লিস্ট বা কালো তালিকাভুক্ত করার কারণ হিসেবে মার্কিন সরকার জানিয়েছে, প্রতিষ্ঠানটির এমন কিছু কর্মকাণ্ডে সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে যা যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা বা পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক স্বার্থের বিরুদ্ধে যায়।

বিজ্ঞাপন

সোমবার এক বিবৃতিতে মার্কিন বাণিজ্যমন্ত্রী উইলবার রস জানান, হুয়াওয়েকে বিকল্প ব্যবস্থা করার সময় দেয়ার জন্যই আপাতত নিষেধাজ্ঞায় কিছুটা শৈথিল্য আনা হয়েছে।

১৯ আগস্ট পর্যন্ত এই লাইসেন্সের মেয়াদ থাকবে।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের এই সাময়িক ‘সুযোগ’-এ বেশ ক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতা রেন জেংফেই। তিনি বলেছেন, নিষেধাজ্ঞার এই সাময়িক ছাড়ের তেমন কোনো গুরুত্বই নেই প্রতিষ্ঠানটির কাছে।

মঙ্গলবার সিসিটিভি’কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে জেংফেই বলেন, ‘মার্কিন সরকারের এখনকার কর্মকাণ্ডের অর্থ, তারা আমাদের যোগ্যতাকে খাটো করে দেখছে।’

জেংফেই জানান, হুয়াওয়ের জটিলতা যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসনের সঙ্গে, তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নয়। তার প্রতিষ্ঠান যুক্তরাষ্ট্র থেকে যেসব চিপ কেনে সেগুলো চাইলেই নিজে বানানোর যোগ্যতা রাখে। তবে তারমানে এই নয় যে, তারা আমেরিকান চিপ কেনা বন্ধ করে দেবেন।

অন্যদিকে মার্কিন বাণিজ্য বিভাগ জানিয়েছে, অবরোধ শিথিল করার সিদ্ধান্তের সময়সীমা বেঁধে দেয়া ৯০ দিন থেকে আর বাড়ানো হবে কিনা তা যাচাই করে দেখা হবে।