চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মোস্তাফিজ-মিঠুনে প্রাইম ব্যাংক, শাকিলে জিতল শেখ জামাল

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ঝলমলে এক ফিফটিতে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে জয়ের পুঁজি এনে দিয়েছিলেন মোহাম্মদ মিঠুন। সেটি খুব ভালোভাবে কাজে লাগিয়েছেন তার সতীর্থ পেসার মোস্তাফিজ-রুবেল-শরিফুল। প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে দলকে এনে দিয়েছেন ৩ রানের রোমাঞ্চকর জয়।

বৃহস্পতিবার বিকেএসপির-৩ নম্বর মাঠে শুরুতে ব্যাট করে নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেটে ১৫১ রানের বড় পুঁজি জমায় প্রাইম ব্যাংক। জবাব দিতে নেমে নির্ধারিত ওভার খেলে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৪৮ পর্যন্ত যেয়ে থামে প্রাইম দোলেশ্বর।

বিজ্ঞাপন

প্রাইম ব্যাংকের দেড়শর দিনে ৫ চার ও এক ছয়ে ৫০ বলে ৫৫ রান করেছেন মিঠুন। অধিনায়ক এনামুল হক বিজয় এক চার ও ২ ছয়ে ১৮ বলে ২৯, নাহিদুল ইসলাম ১৮ বলে ২০ এবং অলক কাপালির এক চার ও ২ ছক্কায় ১৪ বলে ২৬ রানে ভালো সংগ্রহ জমায় দলটি।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে প্রাইম দোলেশ্বরের ব্যাটসম্যানরা শুরু তো করেছেন, ইনিংস বড় করতে পারেননি কেউই। সাইফ হাসান ১৩, মার্শাল আইয়ুব ২২, ফজলে মাহমুদ ২১, শরিফুল্লাহ ১৯, অধিনায়ক ফরহাদ রেজার ১৩ রান এগোয় তারা।

শেষদিকে কামরুল ইসলাম রাব্বির ঝড়ে জয়ের আশাও জাগে একসময়। ২ চার ও ৪ ছক্কায় এ পেসার ১২ বলে অপরাজিত ৩৮ রানের ইনিংস খেলে রোমাঞ্চ ছড়ান। কিন্তু দল আটকে যায় জয় থেকে ৩ রান দূরে। বলে হাতেও কামরুল ২ উইকেট নিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

প্রাইম ব্যাংকের বোলাররা দারুণ করেছেন। মোস্তাফিজ ৪ ওভারে ২৫ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন। রুবেল খরুচে, ৪৬ রানে ২ উইকেট তার। শরিফুল ইসলাম ৪ ওভারে মাত্র ১৫ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন। নাঈম হাসান এক উইকেট নিলেও ৩ ওভারে দিয়েছেন মাত্র ১৯ রান।

বিকেএসপির অন্য ম্যাচে, ৪-নম্বর মাঠে পারটেক্স স্পোর্টিং ক্লাবকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব।

শুরুতে ব্যাট করে ১৯.৩ ওভারে ১০৪ রানে গুটিয়ে যায় পারটেক্স। আব্বাস মুসা ২০, ইশারুল ইসলাম ১৯ ও ধিমান ঘোষ ১৯ রান এনেছেন।

পারটেক্সের বেহাল দশার কারণ সালাউদ্দিন শাকিল। এ পেসার ৩.৩ ওভারে ১৬ রান খরচায় ৫ উইকেট দখল করেছেন। ইলিয়াস সানির ঝুলিতে গেছে ২টি উইকেট।

জবাব দিতে নেমে শেখ জামালকে জয় তুলতে খেলতে হয়েছে ১৭.২ ওভার, হারাতে হয়েছে ৪ উইকেট। মোহাম্মদ আশরাফুল ১৭, নাসির হোসেন ২২, অধিনায়ক সোহান ৩০ ও ইলিয়াস সানি অপরাজিত ২৭ রানে জয় নিশ্চিত করেন।

বিজ্ঞাপন