চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘মৃত্যুদণ্ডের আইন করায় ধর্ষণের প্রকোপ বন্ধ হবে’

ধর্ষণ নামের পাশবিকতা নিয়ন্ত্রণে আইন সংশোধন করে মৃত্যুদণ্ডের বিধান সংযুক্ত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুগোপযোগী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন।

এ সিদ্ধান্তের ফলে এসিড সন্ত্রাসের মতো ধর্ষণের প্রকোপও বন্ধ হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

বুধবার সকালে লালমোহন প্রেসক্লাব ও ঢাকাস্থ লালমোহন থানা ছাত্র-ছাত্রী কল্যাণ সংস্থার আয়োজনে সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন এমপি শাওন।

বিজ্ঞাপন

এসময় তিনি বলেন: ধর্ষণকারী কারও ভাই নয়, কারও ছেলে নয়, কারও বাবা নয়। তার পরিচয় সে একজন ধর্ষক। এদের সামাজিকভাবে বয়কট করতে হবে। ধর্ষণ একটা পাশবিকতা। এর ফলে আমাদের মেয়েরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সেজন্য আওয়ামী লীগ সরকার আইনটি সংশোধন করে ধর্ষণের শাস্তি যাবজ্জীবনের সঙ্গে মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে আইন পাস করেছে।

শাওন বলেন: ধর্ষণের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার পাশাপাশি সমাজ থেকে এজাতীয় ঘটনার বিরুদ্ধে জনসচেতনতা বাড়াতে হবে। সেই সাথে অভিভাবকদের সতর্ক থাকতে হবে।

লালমোহন প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুস সাত্তারের সভাপতিত্বে ও ঢাকাস্থ লালমোহন থানা ছাত্র-ছাত্রী কল্যাণ সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মোঃ রিজভী খানের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন লালমোহন সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাসেুলর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম হাওলাদার, ভাইস চেয়ারম্যান আবুল হাসান রিমন, ওসি মাকসুদুর রহমান মুরাদ, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ রফিকুল ইসলাম।

সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন করিমূন্নেছা-হাফিজ মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আব্বাছ উদ্দিন, আশ্রাফ নগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান কামরুল, মাদ্রাসা সুপার আলামিন, লালমোহন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি রিপন শান, উপজেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী মোঃ তানজিদ, ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম, নারী নেত্রী সালমা জাহান বুলু, কলেজ শিক্ষার্থী সুমাইয়া আক্তার নদী, ঢাকাস্থ লালমোহন থানা ছাত্র-ছাত্রী কল্যাণ সংস্থার সভাপতি আব্দুল্লা আল নোমান প্রমূখ। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন লালমোহন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জসিম জনি।