চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানে বিশ্বব্যাপী কড়া প্রতিক্রিয়া

মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের পর দেশটির স্টেট কাউন্সিলর ও ক্ষমতাসীন দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) নেত্রী অং সান সু চি-সহ অন্য নেতাদের আটকের ঘটনায় কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বিশ্ব নেতৃত্ব।

জাতিসংঘ
মিয়ানমারের ঘটনায় গভীর নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ। আইন বিভাগ, নির্বাহী বিভাগ ও বিচার বিভাগের সব ক্ষমতা সেনাবাহিনীর হাতে চলে যাওয়ায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে সংস্থাটি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

জাতিসংঘের সেক্রেটারি জেনারেলের একজন মুখপাত্রের পাঠানো বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এই ঘটনা দেশটির গণতান্ত্রিক পুনর্গঠন বিপর্যস্ত করবে। সেনা নেতৃত্বকে মিয়ানমারের জনগণের চাওয়াকে শ্রদ্ধা জানানোর এবং গণতন্ত্রের নিয়ম মেনে চলার আহ্বান জানায় জাতিসংঘ।

গণতন্ত্র, শান্তি, মানবাধিকার ও আইনের শাসন নিশ্চিত করতে জাতিসংঘ মিয়ানমারের জনগণের পাশে আছে বলেও জানানো হয় বিবৃতিতে।

যুক্তরাষ্ট্র
মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি ও অন্যান্য নেতাদের দ্রুত মুক্তি দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এই অভ্যুত্থানের ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় সেনাবাহিনীকে কড়া সতর্ক বার্তা দিয়েছে দেশটি।

হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র জেন সাকি এক বিবৃতিতে বলেন, সাম্প্রতিক নির্বাচনের ফলাফল বদলের চেষ্টার বিরোধিতা করে যুক্তরাষ্ট্র। আর যদি এসব পদক্ষেপ ফিরিয়ে না নেওয়া হয় তাহলে দায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, আমরা সেনাবাহিনী ও অন্যান্য দলগুলোকে গণতন্ত্রের  নিয়ম ও আইনের শাসন মেনে চলার আর যাদের আটক করা হয়েছে তাদের মুক্ত করার আহ্বান জানাচ্ছি।

চীন
চীন তাদের প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছে, সবই তাদের নজরে আছে।  পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, চীনের বন্ধু প্রতিবেশি মিয়ানমার। আশা করি সব পক্ষই সংবিধানের ভিত্তিতে নিজেদের পার্থক্য মানিয়ে নিবে এবং স্থিরতা নিশ্চিত করবেন।  এখনও পরিস্থিতি আরো বেশি বোঝার পদ্ধতিতে আছে বলেই জানিয়েছে চীন।

ভারত
মিয়ানমারের ঘটনায় প্রতিবেশী দেশ ভারত গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, গভীর উদ্বেগের সাথে মিয়ানমারের বিষয়গুলো দেখছি আমরা। আমাদের বিশ্বাস আইনের শাসন ও গণতান্ত্রিক পদ্ধতি অবশ্যই পালন করা হবে। আমরা খুব কাছ থেকে বিষয়গুলো পর্যবেক্ষণ করছি।

সেনাবাহিনী ও বেসামরিক সরকারের মধ্যে নির্বাচনে জালিয়াতি নিয়ে বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই সোমবার মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থান ঘটে। এর পরপরই সু চি, দেশটির প্রেসিডেন্ট এবং এনএলডির শীর্ষ রাজনীতিকদের আটক করে সেনাবাহিনী।

পরে সেনাবাহিনী এক ঘোষণায় জানায়, আগামী ১ বছরের জন্য মিয়ানমারের ক্ষমতায় থাকবে তারা।