চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মিয়ানমারে শতাধিক নিহত, সহিংসতা বন্ধের আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

মিয়ানমারে সামরিক জান্তার সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপনের মধ্যেই নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছে।

শনিবার ইয়াঙ্গুন, মান্দালয়সহ বিভিন্ন শহরে হুমকি উপেক্ষা করে বিক্ষোভের সময় নিরাপত্তা বাহিনী গুলি ছুঁড়লে কমপক্ষে ১১৪ জন নিহত হয়। আহত হয় আরও অনেকে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এর পরিপ্রেক্ষিতে সহিংসতা বন্ধে জান্তা সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিনকেন বলেন: শনিবারের হত্যাকাণ্ডে ভীত। তবে বার্মার সাহসী জনগণ সেনাবাহিনীর সন্ত্রাসের রাজত্বকে প্রত্যাখ্যান করেছে।

জাতিসংঘের সেক্রেটারি জেনারেল অ্যান্টোনিও গুতেরেসও জানিয়েছেন: তিনি গভীরভাবে হতবাক।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে রাজধানী নেপিদোতে সামরিক কুচকাওয়াজে দেয়া ভাষণে গণতন্ত্র সুরক্ষার প্রতিশ্রুতির পাশাপাশি আবারো দ্রুত নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মিয়ানমার সেনাপ্রধান জেনারেল মিন অং হ্লাইং।

সেনাবাহিনী ও বেসামরিক সরকারের মধ্যে নির্বাচনে জালিয়াতি নিয়ে চলমান উত্তেজনার মধ্যে ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থান ঘটে।

এর পরপরই এনএলডির শীর্ষ নেত্রী অং সান সু চি, দেশটির প্রেসিডেন্ট এবং মন্ত্রিসভার সদস্যসহ প্রভাবশালী রাজনীতিকদের আটক করে সেনাবাহিনী।

পরে সেনাবাহিনী এক ঘোষণায় জানায়, আগামী ১ বছরের জন্য মিয়ানমারের ক্ষমতায় থাকবে তারা।

গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকারকে সরিয়ে দিয়ে সেনা অভ্যুত্থানের ঘটনায় হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ করতে রাস্তায় নেমে আসে। বড় জনসমাগমে নিষেধাজ্ঞা ও রাত্রিকালীন কারফিউ থাকা সত্ত্বেও তারা বিক্ষোভ দেখায়।

দেশটিতে চলমান আন্দোলনে নিহতের সংখ্যা ৪০০ জনেরও বেশি বলে জানিয়েছে অ্যাস্টিস্ট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিকাল প্রিজনার্স।

বিজ্ঞাপন