চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মিন্নির আইনজীবী না পাওয়ার পেছনে শম্ভু-সুনাম?

বরগুনায় রিফাত শরীফ হত্যার পর যখন নয়নের গডফাদারদের নাম আলোচিত হচ্ছিল, অন্যদিকে দৃষ্টি নিতে তারাই রিফাতের বাবাকে দিয়ে মিন্নির বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন এবং মানববন্ধন করিয়েছে বলে অভিযোগ করছেন বরগুনাবাসী অনেকে।

সংসদ সদস্য শম্ভু এবং তার ছেলে সুনাম দেবনাথের কারণেই মিন্নি প্রথমে আইনজীবী পাননি বলেও অভিযোগ করেন তারা।

বিজ্ঞাপন

বরগুনায় রিফাত হত্যার পর হত্যাকারীদের মাদক ব্যবসা এবং বিভিন্ন অপরাধের প্রশ্রয়দাতা হিসেবে সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর ছেলে সুনাম দেবনাথ এবং পৌরসভার প্যানেল মেয়রের ছেলে, মঞ্জুরুল আহসান জনের নাম উঠে আসে। এ অবস্থায় ঘটনার ১৮ দিন পর রিফাত শরীফের বাবা দুলাল শরীফকে নিয়ে প্রেসক্লাবে আসেন সুনাম দেবনাথ এবং সেদিনই তিনি প্রথম রিফাতের স্ত্রী মিন্নির গ্রেপ্তার দাবি করেন।

মিন্নির বিচারের দাবিতে রিফাতের বাবাকে নিয়ে মানববন্ধনও করেন সুনাম দেবনাথ এবং মঞ্জুরুল আহসান জন। এরপরই মামলার সাক্ষী থেকে আসামি হিসেবে মিন্নি গ্রেপ্তার হন বলে জানিয়েছেন বরগুনা জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি জুবায়ের আদনান অনিক।

বিজ্ঞাপন

ওই প্রভাবশালীদের কারণেই মিন্নিকে আদালতে তোলার প্রথম দিন তার পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিল না বলেও অভিযোগ করেন অনেকে।

রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থান থেকে বিভিন্ন সংগঠন মিন্নিকে আইনী সহায়তা দিতে আসে এবং প্রবল সমালোচনার মুখে বরগুনার আইনজীবীরা মিন্নির পক্ষে দাঁড়াতে রাজি হন। তখন সেই আইনজীবীদেরকে রাতে নিজ কার্যালয়ে ডেকে বৈঠক করেন সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু। সেখানে তার ছেলে সুনাম দেবনাথ এবং বাদী পক্ষের আইনজীবীও উপস্থিত ছিলেন।

বরগুনার মানুষ বলছেন, হত্যাকারীরা কার লোক তা সবাই জানে। তাই সেই প্রভাবশালীরা তাদের অপরাধ ঢাকতে তদন্ত এবং বিচার কাজকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছেন বলেও অভিযোগ তাদের।

আরও দেখুন ওবায়দুল রশিদের ভিডিও প্রতিবেদনে:

Bellow Post-Green View