চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মার্চে সাত’শ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন

১৫ থেকে ২৫ মার্চের মধ্যে প্রথম ধাপে প্রায় ৭শ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য প্রস্তুত নিবার্চন কমিশন। আগামী সপ্তাহে সংরক্ষিত নারী আসন এবং মেম্বার পদের ব্যালট পেপার ছাপানোর কাজ শুরু হবে। ৫ জুনের মধ্যে সারাদেশে প্রায় ৪ হাজার ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন হবে বলে জানিয়েছে ইসি।

মার্চের শেষ থেকে জুনের শুরু পর্যন্ত সারাদেশ জুড়েই আবার চলবে নির্বাচনী উৎসব। প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে সারাদেশের প্রায় সাড়ে ৪ হাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের সব প্রস্তুতি শেষ করেছে ইসি। এরই মধ্যে ভোটকেন্দ্রের তালিকাসহ রিটার্নিং অফিসারদের নাম চেয়ে মাঠ পর্যায়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে। ৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে সব ইউনিয়নের ভোটার সিডি প্রস্তুত রাখার জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র প্রকল্প বিভাগে চিঠিও দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। আগামী সপ্তাহের শুরুতেই আইন মন্ত্রণালয় বিধিমালা পাঠিয়ে দেবে।

মার্চের ১৫ থেকে ২৫ মার্চের মধ্যে প্রথম দফা নির্বাচন হবে বলে জানিয়েছেন ইসি সচিব মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম। তিনি বলেন, আইনের কারণে আমার মার্চ মাসে কিছু নির্বাচন করতে হবে, কারণ ২৮ মার্চ বেশ কিছু ইউনিয়ন পরিষদের মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে। সম্ভাব্য পরিকল্পানা হলো যে আমরা ১৫ মার্চ থেকে ২৫ মার্চ এই সময়ের মধ্যে নির্বাচন করবো।কারণ ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস আছে।

এপ্রিলে এইচএসসি পরীক্ষা থাকার কারণে সমন্বয় করে কিভাবে ইউপি নির্বাচন করা যায় সে বিষয়ে বৃহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বৈঠক করবে ইসি। তবে শুরু হয়ে যাচ্ছে ব্যালট পেপার ছাপানোর কাজ।

নির্বাচন কমিশন সচিব মোহামম্দ সিরাজুল ইসলাম আরো বলেন, ৬ জুন রোজা তাই মার্চ আর ৫ জুন এই সময়ের মধ্যে আমার ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন করতে হবে। সংরক্ষিত মহিলা আসন যেগুলো আছে এবং সাধারণ মেম্বারের যে পদগুলো আছে এ গুলোর ব্যালট কমন ব্যালট হবে। আগেই বিজি প্রেসকে আদেশ দিয়ে দিবো তারা যেন ব্যালট পেপার ছাপিয়ে ফেলে।

দফায় দফায় ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠানে আইন শৃংঙ্খলা বাহিনীর দায়িত্ব নিয়ে আলাদা করে পুলিশ বাহিনীর সঙ্গে বৈঠক করবে নির্বাচন কমিশন।