চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মানুষের এতো ভালোবাসা পেয়ে সত্যিই আমি ধন্য: সাবিনা ইয়াসমিন

১৯৬৭ সালে ‘আগুন নিয়ে খেলা’ এবং ‘মধুর জোছনা দীপালি’ গানটির মধ্য দিয়ে প্লেব্যাক গায়িকা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন বাংলা গানের জনপ্রিয় ও কিংবদন্তী শিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন।

শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) ৬৭ বছরে পা রাখলেন গুণী এই শিল্পী। তাঁর জন্মদিনকে বরাবরই বিশেষ ভাবে পালনের উদ্যোগ নেয় চ্যানেল আই। সর্বশেষ ২০১৯ সালেও এই কিংবদন্তী শিল্পীর জন্মদিনে লাল গালিচা সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়। সেবার তিনি রাখঢাক না করেই বলেছিলেন, ‘আমার বিগত জীবনের যে কোনো জন্মদিনের চেয়ে এই জন্মদিনটি বিশেষ হয়ে রইলো!’

২০১৯ সালে চ্যানেল আইয়ে সাবিনা ইয়াসমিনের জন্মদিন উদযাপনের ছবি

করোনা পরিস্থিতির কারণে গত বছর এমন আয়োজনের সুযোগ না পেলেও গুণী এই শিল্পীকে নিয়ে একাধিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে চ্যানেল আই। করোনা পরিস্থিতির কারণে এ বছরও ঘরেই জন্মদিনের এই বিশেষ দিনটি কাটাচ্ছেন সাবিনা ইয়াসমিন।

শনিবার বিকেলে এই গুণী শিল্পী কথা বলেন চ্যানেল আই অনলাইনের সাথে। কীভাবে কাটছে দিনটি, জানতে চাইলে অসংখ্য জনপ্রিয় গানের এই শিল্পী বলেন, ‘সারাদিন শুধু টেলিফোন ধরতে ধরতেই কেটে যাচ্ছে। সবার এতো ভালোবাসা পেয়ে ধন্য বোধ করছি।’

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, বিশেষ কোনো আয়োজন নেই। পরিচিত-অপিরিচিত অনেকেই শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন, সবার সাথে কথা বলছি। আমার মেয়ে আসবে, কাছের কয়েকজন বন্ধু-বান্ধব আসবেন। সব মিলিয়ে আট-দশ জন। তাদের সাথেই সময় কাটাবো।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও সারাদিন সাবিনা ইয়াসমিনকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন শোবিজের মানুষ থেকে শুরু করে সাধারণ ভক্ত অনুরাগীরাও। এগুলো চোখে পড়ছে কিনা, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ, একটু আগে থেকেই দেখতে চেষ্টা করছি। বহু মানুষ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এই দিনটি মনে রেখে যারা প্রতিবছর শুভ কামনা জানান, তাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। মানুষের এতো ভালোবাসা পেয়ে সত্যিই আমি ধন্য।’

২০১৯ সালে চ্যানেল আইয়ে সাবিনা ইয়াসমিনের জন্মদিন উদযাপনের ছবি

বিশেষ এই দিনে সবার উদ্দেশে গানের এই কিংবদন্তী বলেন, ‘সময়টা ভালো না। মহামারী করোনার মধ্যে সবাই যেন নিরাপদে থাকেন। আমার জন্মদিনে একটাই চাওয়া, সবাই যেন পরিবারের মানুষদের নিয়ে সুস্থভাবে জীবন যাপন করতে পারেন, আল্লাহর কাছে আমার এই প্রার্থনাই থাকলো।

১৯৫৪ সালের ৪ সেপ্টেম্বর ঢাকায় জন্ম নেন সাবিনা ইয়াসমিন। সংগীতে বিশেষ অবদানের জন্য সাবিনা ইয়াসমিন ১৯৯৬ সালে স্বাধীনতা পদক এবং ১৯৮৪ সালে একুশে পদকে ভূষিত হন। বাংলা সিনেমায় প্লে-ব্যাক গায়িকা হিসাবে সবচেয়ে বেশি পরিচিত তিনি।

সেরা নারী প্লে-ব্যাক গায়কের জন্য বাংলাদেশ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ১৩ বার পেয়ে তিনি রেকর্ড করেছেন। চলচ্চিত্রের জন্য ১,৫০০ টিরও বেশি গান রেকর্ড হয়েছে তার এবং এ যাবত সাবিনা ইয়াসমিনের কণ্ঠে ১০ হাজারেরও বেশি গান রেকর্ড হয়েছে।

বিজ্ঞাপন