চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মডেলিং থেকে সিনেমায়: নায়ক নয়, ‘নবাব এলএলবি’র ভিলেন

নায়ক নয়, ভিলেন হওয়ার স্বপ্ন নিয়েই সিনেমায় পা রেখেছেন সীমান্ত…

লুৎফুর রহমান খান ওরফে এল আর খান সীমান্ত ছিলেন মূলত মডেল। র‍্যাম্প শো, ফটোশুট, বিলবোর্ডের মডেলিং কিংবা ব্রান্ড এম্বাসেডর হিসেবে কাজ করেছেন। কিন্তু টার্গেট ছিল সিনেমা। দাঁতে কামড় দিয়ে পড়ে ছিলেন। কখনই নায়ক হওয়ার স্বপ্ন ছিল না তার। চেয়েছিলেন ভিলেন হতে। সেই স্বপ্ন সত্যি হয়ে ধরা দিচ্ছে। তিনি হচ্ছেন নির্মিতব্য ‘নবাব এলএলবি’ ছবির ভিলেন।

বৃ্হস্পতিবার সন্ধ্যায় ‘নবাব এলএলবি’-এর পরিচালক অনন্য মামুন জানিয়েছেন, এল আর খান সীমান্ত হবেন এই ছবির ভিলেন। এর আগে তিনি তার ‘সাইকো’ ছবি নিয়ে কাজ করে স্বাচ্ছন্দ্য পেয়েছেন। তাই নতুন করে আবারও ‘নবাব এলএলবি’তে নিচ্ছেন তাকে। চ্যানেল আই অনলাইনকে নির্মাতা মামুন বলেন, এল আর সীমান্তের চরিত্রটি এ ছবিতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

বিজ্ঞাপন

ফেসবুকে পরিচালকের এমন ঘোষণার পর এল আর খান সীমান্তের কিছু ছবি রীতিমত ভাইরাল হয়ে যায়! সুঠাম দেহ, উচ্চতায় ছয় ফুট, লুক সবকিছু দেখে কেউ কেউ মনে করেছেন এল আর সীমান্ত যেন তামিল ছবির ভিলেন!

বিজ্ঞাপন

রাতে চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে এল আর খান সীমান্ত জানান, তিনি পুরোপুরি বাংলাদেশি। বলেন, ‘নবাব এলএলবি’ আমার চতুর্থ ছবি। এর আগে আনন্দ অশ্রু, সাইকো, ক্যাসিনো ছবিতে কাজ করেছি। এগুলো মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। সবগুলো ছবিতে নেগেটিভ চরিত্রে কাজ করেছি। ভিলেন হিসেবে পার্শ্ব চরিত্র থাকলেও স্ক্রিনে এলেই মনে হবে প্রধান ভিলেন।

শুরু থেকেই ভিলেন চরিত্র টানতো এল আর খান সীমান্তকে। বললেন, অনেক আগে একটা নাটকে কাজ করেছি সেখানেও নেগেটিভ চরিত্র ছিল। ছোটবেলা থেকে সিনেমা দেখলে নেগেটিভ চরিত্রগুলো বেশি গুরুত্বপূর্ণ মনে হতো। তামিল হলিউড বলিউডের ছবিগুলোতে নায়কের চেয়ে ভিলেনের এক্টিভিটিস ভালো লাগে। তাই ভিলেন হিসেবেই আমি প্রতিষ্ঠা পেতে চাই।

তিনি বলেন, চরিত্রটি যদি সঠিকভাবে স্ক্রিনে ফুটিয়ে তোলা যায় তবে দর্শক গ্রহণ করবে। সেটা তামিল হোক বা আমাদের ইন্ডাস্ট্রিতে। প্রয়াত রাজীব, হুমায়ূন ফরিদী সাহেবরা বাংলা ছবির ভিলেন হয়েই দাপিয়ে কাজ করেছেন। তাদের নামে অনেক ছবি চলতো। এখনো মানুষ তাদের মনে রেখেছেন। তারা নিজেদের চরিত্র দিয়ে প্রমাণ করেছেন। আমি এটাই চাই। বড় সুযোগ পেয়েছি। সকলের সাপোর্ট পেলে কাজে লাগাতে পারবো।

মিডিয়াতে যুক্ত হওয়ার আগে ডিফেন্সে কর্মরত ছিলেন এল আর খান সীমান্ত। তবে মুক্ত স্বাধীন হওয়ার বাসনা ছিলো তার রন্ধ্রে। ৯ বছর চাকরীর পর ছেড়ে দেন। পরে কারাতে ফেডারেশন থেকে ফাইটিং শিখে তিনি ২০০৭ সালে ব্লাক বেল্ট গোল্ড মেডেল অর্জন করেন। নিজেই দেখে জেনে বুঝে বিভিন্নভাবে নিজেকে প্রস্তুত করেছেন এল আর খান সীমান্ত। ধীরে ধীরে মিডিয়া জুড়ে স্বপ্ন তার বাড়তে থাকে।

‘নবাব এলএলবি’ ছবিতে অভিনয় করবেন দেশের শীর্ষ অভিনেতা শাকিব খান, মাহিয়া মাহি, অর্চিতা স্পর্শিয়া, শহীদুজ্জামান সেলিম, সুমন আনোয়ার, আনোয়ার প্রমুখ। সেলেব্রেটি প্রডাকশনের ব্যানারে আসন্ন শারদীয় উৎসবকে টার্গেট করে ছবিটি মুক্তি পাবে বলে জানিয়েছেন অনন্য মামুন।