চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘ভূতের আস্তানা’ ভাঙতে হবে

বিশ্ববিদ্যালয় যেকোনো দেশের শিক্ষাব্যবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান। তবে বিভিন্ন সময়ের সার্বিক কর্মকাণ্ডে বাংলাদেশে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ভূমিকা নানাভাবে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি জাহাঙ্গীরনগরসহ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি-অনিয়মের গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। শিক্ষাব্যবস্থার সর্বোচ্চ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যখন এমন জালিয়াতি আর দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে, তখন তা চরম শঙ্কার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়।

তবে আশার কথা; জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন প্রকল্প থেকে কথিত কমিশন দাবির অভিযোগ আসার পর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের শীর্ষ দুই নেতাকে তাদের পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। এটা অবশ্যই প্রশংসনীয় উদ্যোগ। তবে এখনও এই ঘটনায় অভিযোগ, পাল্টা অভিযোগ চলছে। গণমাধ্যমে এ বিষয়ে নানা পক্ষের বক্তব্য প্রচার হচ্ছে। এসব বিষয়ও খতিয়ে দেখে দোষীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রয়োজন।

বিজ্ঞাপন

আবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিরুদ্ধেও রয়েছে নানান অভিযোগ। প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনগুলোর দাবি, ‘ঢাবির ভাগ্যাকাশে জেঁকে বসেছে দুর্নীতি ও জালিয়াতির ভূত। এই ভূতকে তাড়াতে না পারলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবিষ্যৎ অন্ধকার।’ এই ভূত তাড়াতে ‘ওঝা’ হয়ে অভিনব কর্মসূচিও পালন করেছে তারা।

বিজ্ঞাপন

এছাড়াও জগন্নাথ, বেগম রোকেয়া, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধেও সম্প্রতি নানা ধরনের অভিযোগ উঠেছে। আরও অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধেও এ ধরনের অভিযোগ আছে।

তাই স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এবং ছাত্র সংগঠনগুলো পথ হারিয়ে উল্টো পথে হাঁটছে কেন? এই প্রশ্নের যৌক্তিক উত্তর এবং সমাধানের উপায় খুঁজতে হবে। কেননা দেশের সার্বিক উন্নয়নে এসব প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা অনন্য। কিন্তু তাদের প্রশ্নবিদ্ধ ভাবমূর্তি আমাদের ভাবিয়ে তোলে।

আমর মনে করি, এই বিষয়গুলো খতিয়ে দেখে জড়িতদের ‍বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। জাতি গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা এসব প্রতিষ্ঠানকে সব ধরণের বিতর্কের ঊর্ধ্বে রাখতে হবে।

Bellow Post-Green View