চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Cable

ভিয়েতনামে যথাযোগ্য মর্যাদায় বিজয় দিবস উদযাপন

Nagod
Bkash July

যথাযোগ্য মর্যাদায় এবং বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে বাংলাদেশ দূতাবাস মহান বিজয় দিবস উদযাপন করেছে।

Reneta June

সোমবার সকালে ভিয়েতনামে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সামিনা নাজ জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসের সূচনা করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দূতাবাসের কর্মকর্তা ও কর্মচারী ও ভিয়েতনামে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিসহ স্থানীয় অতিথি।

দুপুরে স্থানীয় প্যান প্যাসিফিক হ্যানয় হোটেলে বিজয় দিবসের তাৎপর্য উল্লেখ করে এক বিশেষ অনুষ্ঠান ও মধ্যাহ্নভোজের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ভিয়েতনামের সাবেক উপ-পররাষ্ট্র মন্ত্রী এবং ভিয়েতনাম ইউনিয়ন অব ফ্রেন্ডশিপ অর্গানাইজেশনের প্রেসিডেন্ট নুয়েন ফুং না।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন: প্রবাসী বাংলাদেশি, ভিয়েতনামের ডিপ্লোম্যাটিক কোরের ডিন (প্যালেস্টাইনের রাষ্ট্রদূত) ও ভারত, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ব্রুণাইসহ বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত এবং ভিয়েতনাম পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উচ্চ-পদস্থ কর্মকর্তা, ভিয়েতনামের ইংরেজি দৈনিক ভিয়েতনাম নিউজের প্রতিনিধি, ভিয়েতনাম টিভি চ্যানেলের প্রতিনিধিসহ অন্যান্য সংবাদকর্মী ও বিভিন্ন গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

সভায় দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। রাষ্ট্রদূত সামিনা নাজ আগত অতিথিদের স্বাগত জানিয়ে বক্তব্য দেন। বক্তব্যের শুরুতে বাংলাদেশের ইতিহাসে এ দিবসের তাৎপর্য এবং বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবিসংবাদিত নেতৃত্বের কথা সশ্রদ্ধচিত্তে স্মরণ করেন। রাষ্ট্রদূত কৃতজ্ঞচিত্তে আরও স্মরণ করেন জাতীয় চার নেতাসহ মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক-সমর্থক, মুক্তিযুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী বীর শহীদদের। অরও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন বিদেশি বন্ধুসহ যারা আমাদের বিজয় অর্জনে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে অবদান রেখেছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের গত দশ বছরের অভূতপূর্ব সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন, অগ্রগতি এবং একটি মধ্যম আয়ের দেশে এগিয়ে যাওয়ার কথা তিনি উল্লেখ করেন। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার দৃঢ় সংকল্পে প্রধান মন্ত্রীর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে প্রবাসী বাংলাদেশিসহ সকলকে একযোগে কাজ করার জন্য আহ্বান জানান তিনি।

প্রধান অতিথি নুয়েন ফুং না তার বক্তব্যে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন: বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, ভিয়েতনামের কমিউনিস্ট পার্টির সেক্রেটারি জেনারেল ও রাষ্ট্রপতির নেতৃত্বে উভয় দেশ ক্রমাগতভাবে উন্নতি লাভ করেছে এবং দুই দেশের সম্পর্ক গভীরতর পর্যায়ে উপনীত হয়েছে।

বিজয় দিবসের উল্লেখযোগ্য আকর্ষণ হিসেবে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের উপর একটি বিশেষ আলোক চিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়। অনুষ্ঠানে আরো ছিলো বাংলাদেশের অগ্রগতির বিষয়ক একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শনী।

BSH
Bellow Post-Green View