চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ভারত থেকে ৫০ হাজার টন চাল আমদানি অনুমোদন

১ হাজার ৪৯৩ কোটি ব্যয়ে ৮ ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদন 

ভারত থেকে ৫০ হাজার টন নন-বাসমতি সেদ্ধ চাল ক্রয়ের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

বুধবার অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত সভায় এ সংক্রান্ত প্রস্তাবে নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

চাল ক্রয়ের প্রস্তাবসহ সভায় ৮টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এতে মোট ব্যয় হবে ১ হাজার ৪৯৩ কোটি ৪৯ লাখ ৪৫ হাজার ৭৭৩ টাকা। এর মধ্যে জিওবি (সরকারের তহবিল) থেকে ব্যয় হবে ৯৫৮ কোটি ৯৫ লাখ ৩৯ হাজার ৯১৬ টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য (এডিবি, এএফডি ও ইআইবি ঋণ) ৫৩৪ কোটি ৫৪ লাখ ৫ হাজার ৮৫৭ টাকা নেয়া হবে।

সভা শেষে অনুমোদিত ক্রয় প্রস্তাবগুলোর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ও মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. শাহিদা আক্তার। এর আগে অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অর্থনৈতিক ও সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে ৮টি প্রস্তাবের নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়।

ড. শাহিদা খাতুন বলেন, সভায় অর্থনৈতিক সম্পর্কিত মন্ত্রিসভায় ২টি ও ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভায় ৬টি সহ মোট ৮টি প্রস্তাবের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের ৩টি, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের ১টি, খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ১টি এবং স্থানীয় সরকার বিভাগের ১টি ছিল।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, আজকের সভায় খাদ্য অধিদপ্তরকে ৫০ হাজার টন নন-বাসমতি সেদ্ধ চাল ভারতের মের্সাস পি কে এগ্রি প্রাইভেট থেকে ১৭৭ কোটি ১০ লাখ ৯০ হাজার ৪০০ টাকায় ক্রয়ের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। প্রতি টন চালের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৪৩০ দশমিক ৩৩ ডলার।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অধীন ‌‘পায়রা বন্দরের রাবনাবাদ চ্যানেলের ক্যাপিটাল ও মেইন্টেনেন্স ড্রেজিং’ কার্যক্রম পিপিপি পদ্ধতির পরিবর্তে সংস্থার নিজস্ব অর্থায়নে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে (ডিপিএম) বাস্তবায়নের প্রস্তাব এবং কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীন বিএডিসি কর্তৃক ভারতের জাতীয় সিড কপোরেশন (এনএসসি) থেকে জেআরও-৫২৪ জাতের ৮০০ টন মানঘোষিত পাটবীজ সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে (ডিপিএম) আমদানির অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অধীনে ‌‘ভোলা (পরান তালুকদার হাট)-চরফ্যাশন (চরমানিকা) আঞ্চলিক মহাসড়ক উন্নয়ন’ প্রকল্পের প্যাকেজ নং- পিডব্লিউ-৩ পূর্ত কাজের জন্য জয়েন্ট ভেঞ্চার মো. মইন উদ্দিন লিমিটেড এবং নবরুণ ট্রেডার্স লিমিটেডের থেকে ১২২ কোটি ৬৭ লাখ ৭০ হাজার ৫৯০ টাকায় ক্রয়ের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। একই কাজের প্যাকেজ নং- পিডব্লিউ-৬ পূর্তের কাজ জয়েন্ট ভেঞ্চার মো. বদরুল ইকবাল, হাসান টেকনো বিল্ডার্স এবং ওয়াসার কনস্ট্রাকশন অ্যান্ড শিপিং কোম্পানি লিমিটেড থেকে ১১৮ কোটি ৬৪ লাখ ৮৫ হাজার ৮৪১ টাকায় ক্রয়ের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অধীন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কর্তৃক ‘সাপোর্ট টু জয়দেবপুর-দেবগ্রাম-ভুলতা-মদনপুর সড়ক (ঢাকা বাইপাস) পিপিপি প্রকল্প’ নির্মাণ, পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষণ কাজ তদারকির জন্য স্বতন্ত্র প্রকৌশলী পরামর্শক প্রতিষ্ঠান জয়েন্ট ভেঞ্চারে ভারতের এমএস ইন্টারন্যাশনাল কনসালট্যান্ট অ্যান্ড টেকনো এবং যুক্তরাষ্ট্রের সালেদিয়া অ্যাসোসিয়েটরকে ৭৯ কোটি ৫৮ লাখ ৬৪ হাজার ৮৯২ টাকায় ক্রয়ের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের অধীন পেট্রোবাংলা অ্যাক্সসেটর এনার্জির কাছ থেকে ৩৩ লাখ ৬০ হাজার এমএমবিটিইউ এলএনজি সর্বমোট ২১৮ কোটি ৭ লাখ ২৯ হাজার ২৩ টাকায় আমদানির অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

এছাড়া স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীন ঢাকা ওয়াসার ঢাকা এনভারমেন্ট সাসটেনেবল ওয়াটার সাপ্লাই প্রকল্পের প্যাকেজ-২ এর আওতায় পানি শোধনাগার থেকে বারিধারা পর্যন্ত ১৪ কিলোমিটার পরিশোধিত পানির ট্রান্সমিশন লাইন স্থাপন কাজ চীনের সিএএমসি ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড থেকে ৭৭৭ কোটি ৪০ লাখ ৫ হাজার ২৭ টাকায় ক্রয়ের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।