চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘ব্রেকআপ’-এর পর যে কাজগুলো একেবারেই করা উচিত নয়

ব্রেকআপের পরে নিজেকে সামলে নেয়া খুবই কঠিন। এতদিনের স্মৃতি সহজেই ভোলা যায় না। প্রতিটি পথ, ফাস্টফুডের দোকান, গান শোনা, বৃষ্টির দিনের চা খাওয়ায় মিশে থাকে দূরে সরে যাওয়া মানুষটি। আর তাই আবেগের বশবর্তী হয়ে অনেক সময় ভুল করে ফেলে প্রেমিক মন। জেনে নিন ব্রেকআপের পরে করা কিছু ভুল সম্পর্কে যেগুলো এড়িয়ে চলা উচিত।

ব্লক করা: ব্রেকআপের পরে ক্ষেপে গিয়ে এতদিনের কাছের মানুষটি ফোন এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্লক করে দেন অধিকাংশ মানুষ। সময়ের সাথে সাথে রাগ কমতে থাকে। বাড়তে থাকে, সেই মানুষটির প্রোফাইল দেখার আগ্রহ। ফলে বন্ধু-বান্ধবের সোশ্যাল মিডিয়ায় ঢুকে কিংবা ফেক আইডি খুলে সেই মানুষটির প্রোফাইলে ঢুঁ মারেন অনেকেই। এই অভ্যাসে মায়া কমে না, বরং থেকে যায়। সেই মানুষটিকে ভুলে যাওয়ার বদলে আরও বেশি মনে পড়ে। তাই সম্পর্ক ভাঙ্গলে ব্লক না করে বিষয়টি মেনে নেয়ার চেষ্টা করুন। একসময় মন নিজেকে সামলে নিবে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

‘লাস্ট সিন’-এ চোখ রাখা: হোয়াটসঅ্যাপে ইউজার শেষ কখন অনলাইনে ছিল তা দেখায় ‘লাস্ট সিন’-এ। ফেসবুক মেসেঞ্জারেও তাই। আর তাই, ব্রেকআপের পরে প্রাক্তন কখন অনলাইনে আসে-যায় সেটা নজরদারি করার জন্য অনেকেই ‘লাস্ট সিন’-এ চোখ রাখে। একটু পরপর বিষয়টি চেক করায় মানসিক যন্ত্রণাও বাড়তে থাকে।

স্মৃতি ধরে রাখা: ব্রেকআপের পরে অনেকেই একসঙ্গে তোলা ছবিগুলো ডিলিট করতে পারেন না। মায়া লাগে, এই অজুহাতে ছবিগুলো রেখে দিলে কষ্ট কমার বদলে আরও বাড়ে। কারণ বার বার স্মৃতিগুলো চোখের সামনে চলে আসে।

সোশ্যাল মিডিয়ার নেশা: নিজের দুঃখ সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করবেন না। অনুভূতিগুলো নিজের মনের ভেতরে রাখুন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যক্তিত্ববানের মতো আচরণ করুন। ইনস্টাগ্রাম বা ফ্লিকার ব্যবহার করে নিজের ছবি তোলার চর্চা বাড়াতে পারেন। গঠনমূলক কাজে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করুন। কোনোভাবেই যেন সোশ্যাল মিডিয়া আপনাকে গ্রাস করতে না পারে। -মেনস এক্সপি