চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বেনজেমার জন্য দরজা খুলছে আলজেরিয়া?

করিম বেনজেমা আলজেরিয়ার হয়ে খেলতে চাইলে তার জন্য দরজা খোলা। সরাসরি কথাটা না বললেও আকারে-ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দিয়েছেন সেদেশের জাতীয় দল কোচ। বেনজেমার মতো ফরোয়ার্ডকে পেলে খুশিই হবেন বলে জানিয়েছেন।

রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে বছরের পর বছর পারফর্ম করে চললেও জাতীয় দলে ব্রাত্যই থাকছেন বেনজেমা। দুর্দান্ত ফর্মে থাকলেও ফ্রান্সের জার্সিতে অভিযান শেষ, ফরাসি ফুটবল ফেডারেশনের প্রেসিডেন্টের এমন মন্তব্যের পর তাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছিলেন তিনি। চ্যালেঞ্জ প্রমাণে অন্যকোনো দেশের হয়ে খেলার অনুমতিও চেয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

বেনজেমার অনুমতি চাওয়ার খবর প্রচারের পর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয় আলজেরিয়ার জাতীয় দলের কোচ জামেল বেলমাদির। তিনি ইঙ্গিত দেন, বেনজেমাকে পেলে খুশি হবেন।

বেনজেমা দ্বিতীয় কোনো দেশের কথা বললেও সরাসরি কোনো দেশের নাম বলেননি। তাহলে আলজেরিয়ার কোচ কেন এমন ইঙ্গিত দিলেন? উত্তর, বেনজেমার বাপ-দাদার জন্মভূমি উত্তর আফ্রিকার এই দেশটি। ফলে চাইলে সহজেই আলজেরিয়ার হয়ে খেলতে পারবেন ফরাসি ফরোয়ার্ড।

সেজন্য অবশ্য আগে ফ্রান্সের নাগরিকত্ব ছাড়তে হবে তাকে। সেই কাজটা সম্পন্ন করবে ফ্রান্স সরকার। সেটা তারা সহসাই করবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে।

বেনজেমাকে আলজেরিয়ার হয়ে খেলার অনুমতি ফ্রান্স সরকার দেবে কিনা তা পরের কথা। তবে বেলমাদি বলেছেন, ‘আমার দলে বোনেডজাহ (বাগদাদ বোনেডজাহ), ইসলাম (স্লিমনি ইসলাম), ডিলর্ট (অ্যান্ডি ডিলর্ট) এবং সৌদানির মতো খেলোয়াড় রয়েছেন। তাদের নিয়ে আমি খুশি। তারপরও আমার বিচারে তার মতো বিদ্রোহী (বেনজেমার কথা বুঝিয়েছেন) স্ট্রাইকারকে পেলে আরও খুশি হব।’

জাতীয় দলের সতীর্থ ম্যাথু ভালবুয়েনার সঙ্গে ‘সেক্স টেপ’ স্ক্যান্ডালে জড়িয়ে দল থেকে বাড় পড়ে যান বেনজেমা। যার ফলে ২০১৫ সাল থেকে দলের বাইরে তিনি। ফ্রান্স ফুটবল ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট নোয়েলঁ লে গ্রেঁ রোববার আবারও জানিয়ে দিয়েছেন, ফরাসি দলে জায়গা নেই বেনজেমার।

বিজ্ঞাপন

রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে একের পর এক ম্যাচে পারফর্ম করে যাচ্ছেন তিনি। আগের মৌসুমে ৩০ গোলের ল্যান্ডমার্ক ছাড়ানোর পর চলতি মৌসুমেও এরইমধ্যে করে ফেলেছেন ১১ গোল।

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ক্লাব ছাড়ার পর রিয়ালের ফরোয়ার্ডে অন্যতম মুখ হয়ে উঠেছেন বেনজেমা। এরমধ্যেই খবর বের হয়, আবার জাতীয় দলে ফিরতে পারেন তিনি। তবে এমন খবর উড়িয়ে দেন লে গ্রেঁ।

ফ্রান্স ফুটবলের প্রধান বলেছেন, ‘আমার কাছে বেনজেমা খুব ভালো খেলোয়াড়। তার কোয়ালিটি নিয়ে আমি কখনো সমালোচনা করিনি। এই বছর আবারও মাদ্রিদে প্রমাণ করছেন যে, তার পজিশনের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় তিনি। তবে ফ্রান্সের সঙ্গে তার অ্যাডভেঞ্চার শেষ।’

লে গ্রেঁ’র এমন মন্তব্য মোটেও সহজভাবে নেননি জাতীয় দলের হয়ে ৮১টি ম্যাচ খেলা বেনজেমা। আলজেরিয়ান বংশোদ্ভূত ফরোয়ার্ড সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি বার্তা পোস্ট করেন। লিখেছেন, ‘নোয়েল, আমি ভেবেছিলাম যে আপনি জাতীয় দলের কোচের কোনো সিদ্ধান্তে হস্তক্ষেপ করেন না। এটা জেনে রাখুন, আমার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শেষ হওয়ার সময় আমি এবং একমাত্র আমিই সিদ্ধান্ত নেব।’

এরপরই চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন বেনজেমা, ‘আপনি যদি ভাবেন আমি শেষ হয়ে গেছি, তবে আমাকে এমন একটি দেশের হয়ে খেলতে দিন যেদেশের হয়ে আমি খেলার যোগ্য। তাহলেই দেখতে পাবেন।’

ফ্রান্সের জার্সি গায়ে ২৭টি গোল করেছেন বেনজেমা। তবে তিনি মনে করেন, চার বছরের বেশি সময় দলের বাইরে না থাকলে সংখ্যাটা আরও অনেক বেশি হতে পারত। যদিও তাকে ছাড়াই ২০১৮ সালে রাশিয়া বিশ্বকাপে শিরোপা জিতেছে ফ্রান্স।

ফ্রান্স যেমন বিশ্বজয়ী, আলজেরিয়া তেমন আফ্রিকান চ্যাম্পিয়ন। গত বছর কায়রোর ফাইনালে সেনেগালকে হারিয়ে আফ্রিকান সেরা হয় ‘মরুভূমির শেয়ালরা’। আগামী আসরের বাছাইপর্বেও নিজেদের গ্রুপে শীর্ষে আছে তারা।

Bellow Post-Green View