চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘বিড়ি শিল্পকে ধ্বংস করতে চায় সিগারেট কোম্পানি ও এনজিও’

বিদেশি সিগারেট কোম্পানিসহ দেশীয় কিছু এনজিও বিড়ি শিল্পকে ধ্বংস করতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) ষড়যন্ত্রমূলক অতিরিক্ত শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করেছে- এমন অভিযোগ করে এই প্রস্তাব প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশন।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন থেকে এই দাবি জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ফেডারেশনের সভাপতি এমকে বাঙ্গালীর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম-সম্পাদক হারিক হোসেনের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল গফুর, প্রচার সম্পাদক শামীম ইসলাম, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মায়া বেগম প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন

বক্তারা বলেন, বিড়ি দেশের প্রাচীন শ্রমঘন শিল্প। এ শিল্পে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর অসহায়, বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা, শারীরিক বিকলাঙ্গ, নদী ভাঙ্গন ও চর এলাকার মানুষ কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে। কিন্তু বিদেশি সিগারেট কোম্পানি ও এদেশিয় কিছু এনজিও বিড়ি শিল্পকে ধ্বংস করতে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। বিশেষ করে বাজেটের সময় বিড়িতে মাত্রাতিরিক্ত শুল্কারোপের জন্য এনবিআরকে নানা প্রস্তাব দেন। তারা মুখে ধূমপান বিরোধী কথা বললেও বিদেশি সিগারেটকে রক্ষা করে দেশীয় শিল্পকে ধ্বংস করতে চায়।

সংগঠনের নেতারা বলেন, আগামী ২০২১-২০২২ অর্থবছরের বাজেটেও বিড়ি শিল্পকে ধ্বংস করতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে ষড়যন্ত্রমূলক অতিরিক্ত শুল্কারোপের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। আমরা এ ষড়যন্ত্রমূলক প্রস্তাবের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

এসময় বক্তারা চলতি বাজেটে বৃদ্ধিকৃত প্রতি প্যাকেটে ৪ টাকা মূল্যস্তর সম্পূর্ণ প্রত্যাহার, বিড়ির উপর অর্পিত ১০ শতাংশ অগ্রিম আয়কর প্রত্যাহার, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোসহ বিভিন্ন এনজিওর ষড়যন্ত্র বন্ধ ও বিড়িকে কুটির শিল্পের মর্যাদার দাবি জানান।