চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কার্নিভাল সেলে বিসিএস কম্পিউটার সিটিতে ঈদের আমেজ

ঈদে মোবাইলফোনের বাজারে হতাশা দেখা গেলেও রাজধানীর আগারগাঁওয়ের বিসিএস কম্পিউটার সিটির প্রযুক্তিপণ্যের বাজারে যেনো কিছুটা ঈদের আমেজ। তবে গত বছরের তুলনায় এবার বিক্রি কিছুটা কম। ক্রেতা টানতে ভবনের নিচ তলায় চলছে ঈদ উপলক্ষে কার্নিভাল সেল। ৫ থেকে ৫০শতাংশ ছাড়ে ল্যাপটপসহ কম্পিউটারের আনুষাঙ্গিক যন্ত্রপাতি কেনার সুযোগ আছে কার্নিভালে।

ঈদ মেলার এই বিশেষ ছাড় এবং ল্যাপটপ বিক্রেতাদের ঈদ গিফট, মূল্য ছাড়সহ সামাজিক মাধ্যমে প্রচারণায় কম্পিউটার সিটিতে আসছে আগ্রহী ক্রেতা-দর্শনার্থীরা।

বিজ্ঞাপন

কার্নিভালে অংশ নিচ্ছে কম্পিউটার সোর্স, রায়ান্স কম্পিউটার্স, ম্যাসিভ কম্পিউটার্স-সহ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান। দর্শনার্থীদের বেশি ঝোঁক কম্পিউটার এক্সেসরিজে। হেডফোন, মডেম, রাউটারসহ নানা ডিভাইস দেখছে আগ্রহীরা।


ম্যাসিভ কম্পিউটারের বিপণন কর্মকর্তা রাসেল বলেন, ‘বাজেটে এসব ডিভাইসের আমদানি শুল্ক বৃদ্ধি পেয়েছে। এজন্য কার্নিভালে ছাড়ের বিশেষ সুযোগকে কাজে লাগাতে আসছে প্রযুক্তি নিয়ে সচেতন তরুণরা। এজন্য কম্পিউটার এক্সেসরিজের বিক্রি ভালোই।’

কার্নিভাল ভিড় দেখা গেলেও কম্পিউটার বাজারের মূল দোকানগুলোতে অন্যান্য সময়ের তুলনায় ক্রেতা-দর্শনার্থীর সংখ্যা কম। তবে রোজা এবং ঈদে এমন অবস্থা অপ্রত্যাশিত নয় বলে জানান কম্পিউটার সোর্সের রিটেইল বিজনেস ম্যানেজার রোকন। গত বছরের তুলনায় এবার বিক্রি কিছুটা কম বলে জানান এই কর্মকর্তা।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ‘এখনো বাজেটের প্রভাব বাজারে পড়তে শুরু করেনি। প্রচুর প্রোডাক্ট থাকলেও বাজারে ক্রেতার সংখ্যা কম। দেশে অনলাইন শপিং সাইটগুলোতে ক্রেতার সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই কম্পিউটার আউটলেটগুলোতে ক্রেতার সংখ্যা কিছুটা কমেছে। আর রোজার ঈদে পোশাক কেনাকে বেশি প্রাধান্য দেয় ক্রেতারা। তবে নিচ তলার কার্নিভালে ভালোই বিক্রি হচ্ছে।’

তৃতীয় তলায় রায়ান্স কম্পিউটার্সে ক্রেতাদের ভিড় ছিলো চোখে পড়ার মতো। সেখানে বিক্রয় কর্মীরা এতোই ব্যস্ত যে প্রতিষ্ঠানটির কম্পিউটার বিক্রি কেমন হচ্ছে তা জানতে যেতে হলো চতুর্থ তলায়। রায়ান্সের জেনারেল ম্যানেজার এস.এম আরিফুজ্জামানের সঙ্গে কথা বলতে।

তিনি বলেন, ‘পুরো মার্কেটে বিক্রি কমলে আমাদের বিক্রি স্বাভাবিকই আছে। রোজার মাসে কম হবেই। সবাই পোশাক বাজারে ঝুঁকবে এটা ঠিক। তবে বিশেষ ছাড়, আকর্ষণীয় গিফটের অফারের বিজ্ঞাপন এবং এই সময়ে সামাজিক মাধ্যমে প্রচারণাটা রায়ান্সের জন্য ইতিবাচক হয়েছে।’


তিনি জানান কম্পিউটার সিটি এবং ঢাকার ৪ টি ব্রাঞ্চসহ দেশজুড়ে রায়ান্সের মোট ১২ টি ব্রাঞ্চে প্রতিদিন গড়ে ১’শ ৫০টি কম্পিউটার বিক্রি হচ্ছে।

আপাতত ক্রেতার সংখ্যা কম হলেও ঈদের পর আবারও বড় এই কম্পিউটার বাজার প্রযুক্তিপ্রেমীদের ভিড়ে স্বাভাবিক রূপে ফিরবে বলে জানান বিক্রেতারা।

Bellow Post-Green View