চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বান্নাহর ইচ্ছে পূরণ, আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ‘ব্রাদার্স ৩’

জনপ্রিয় নাট্যনির্মাতা মাবরুর রশিদ বান্নাহ’র নির্মিত ‘ব্রাদার্স ৩’ ইরানের একটি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হতে যাচ্ছে। খবরটি জানিয়েছেন বান্নাহ নিজেই।

নর্জস ইন্টারন্যাশনাল ইন্ডিপেন্ডেন্ট ফিল্ম ফেস্টিভাল (এনআইআইএফ) এ ‘লং ফিকশন ফিল্ম’ ক্যাটাগরিতে জায়গা করে নিয়েছে ‘ব্রাদার্স ৩’।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বান্নাহ জানান, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে প্রায় আট হাজার কনটেন্ট প্রতিযোগিতায় অংশের জন্য জমা পড়ে। এরমধ্যে ৯৩টি কনটেন্ট নির্বাচিত হয়েছে। বাংলাদেশ থেকে উৎসবে শুধুমাত্র ‘বাদার্স ৩’ প্রতিযোগীতায় লড়ছে।

গেল ভালোবাসা দিবসে প্রকাশ হয়েছিল ‘ব্রাদার্স ৩’। দুই ভাইয়ের গল্প নিয়ে নির্মিত ফিকশনটি প্রকাশের পর ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়। ছাপিয়ে যায় ‘ব্রাদার্স’ ও ‘ব্রাদার্স ২’ এর দর্শকপ্রিয়তা। যেখানে অভিনয় করেছেন জোভান, শাওন, মনিরা মিঠু, ইভানা।

বিজ্ঞাপন

এই নির্মাতার আগে টার্গেট ছিল যে এই কনটেন্টটি যে কোনো উৎসবে প্রদর্শন করাবেন। অবশেষ সেই হচ্ছে পূরণ হচ্ছে বান্নাহর।

এর মাধ্যমে প্রথমবার কোনো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে বান্নাহর নির্মিত কোনো ফিকশন অংশগ্রহণ করছে। সে কারণে ভীষণ উচ্ছ্বসিত এ নির্মাতা।

তার কথা, ‘বাদার্স ৩’ দিয়েই উৎসবে আমার অংশগ্রহণ শুরু হলো। এ ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে। বান্নাহ বলেন, ইউটিউবে প্রকাশের বেটার ভার্সন সেখানে প্রদর্শিত হবে। ফোরকে রেজুলেশন ও সাবটাইটেল থাকবে। ডাবিংয়েও থাকছে নতুনত্ব। ভাগ্য খারাপ বিশ্বব্যাপী প্যান্ডামিক। নইলে হয়তো সেখানে স্বশরীরে অংশ নেয়ার আমন্ত্রণ পেতাম। কারণ উৎসবটি এবার হচ্ছে ভার্চুয়ালে।

বান্নাহ বলেন, ভালোবাসা দিবসে শতাধিক ফিকশন প্রকাশ হয়েছে। কিন্তু এরমধ্যে কয়টি কাজ আন্তর্জাতিক মার্কেটে যাচ্ছে? ফেব্রুয়ারি মাস থেকে ইরানের এই উৎসবের জন্য লেগে আছি। গত ৫ এপ্রিল সুসংবাদটা পেয়েছি। এবারই প্রথম এই উৎসবে বাংলাদেশের কোনো কনটেন্ট অংশ নিচ্ছে।

তিনি বলেন, প্রযোজকদের উচিত নির্দিষ্ট ঘরানায় আটকে না থেকে এখনই সময় আন্তর্জাতিক মার্কেট চিন্তা করে কনটেন্ট নির্মাণে বিনিয়োগ করা। অনেক ভালো ভালো মেকার আছেন যারা কাজের জন্য প্রস্তুত।

বিজ্ঞাপন