চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বলিউডে যদি ‘মানি হেইস্ট’ হয়…

নেটফ্লিক্সের সবচাইতে জনপ্রিয় ওয়েব সিরিজগুলোর একটি ‘মানি হেইস্ট’ (কাসা দে লা পাপেল)। প্রফেসর, নাইরোবি, হেলসিনকি এবং র‍্যাকেল চরিত্রগুলো দর্শকের জীবনের সাথে মিশে গেছে। শোনা যাচ্ছে শাহরুখ খান ‘মানি হেইস্ট’র হিন্দি ভার্সন তৈরির পরিকল্পনা করছেন। তাই শুরু হয়েছে কোন চরিত্রে কাকে নেয়া হবে সেই বিষয়ে জল্পনা কল্পনা।

ভারতীয় গণমাধ্যম কইমই তাদের এক ফিচারে ‘মানি হেইস্ট’র জনপ্রিয় চরিত্রগুলোর জন্য কিছু বলিউড তারকার নাম উল্ল্যেখ করেছে। প্রফেসর চরিত্রে তারা বলেছে শাহরুখের নাম।

বিজ্ঞাপন

এছাড়াও টোকিও চরিত্রে আনুশকা শর্মা, নাইরোবি চরিত্রে প্রিয়াংকা চোপড়া, রিও চরিত্রে ইশান খাট্টার, ডেনভার চরিত্রে বরুন ধাওয়ান, হেলসিনকি চরিত্রে রানা দাগ্গুবতি, আরটুরো চরিত্রে মনোজ বাজপেয়ি, মনিকা চরিত্রে কিয়ারা আদভানি এবং বার্লিন চরিত্রে রণবীর কাপুর অথবা রণদীপ হুদাকে নির্বাচন করেছেন তারা।

বিজ্ঞাপন

‘মানি হেইস্ট’ সিরিজে অভিনয় করেছেন উরসুলা করবেরো, ইতজিয়ার ইতুনো, আলভারো মর্তে, মিগুয়েল হেরান, পাকো তোয়াস, পেদ্রো আলোনসো এবং আলবা ফ্লোরেস। এই সিরিজটি সেরা ড্রামা সিরিজ হিসেবে ২০১৮ সালে এমি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিলো।

সিরিজের প্লট গড়ে উঠেছে স্পেনের ন্যাশনাল কয়েন অ্যান্ড স্ট্যাম্প ফ্যাক্টরিতে একদল ডাকাতের অনুপ্রবেশ ও দখলদারির কাহিনীর উপর ভিত্তি করে। সেই ডাকাত দলের দলনেতা যে কিনা ‘প্রফেসর’ নামে পরিচিত, বহু যাচাই- বাছাইয়ের মাধ্যমে দলটিকে ভিন্ন বয়সের অপরাধী নারী- পুরুষের সমন্বয়ে গঠন করেছিল। তারা শুধু মুদ্রা ছাপাখানায় হামলায় চালায় না, জিম্মি করে সেখানে উপস্থিত সবাইকে। আর তারপর শুরু হয় এক শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান। একদল দুঃসাহসী ডাকাত দলের সাথে স্পেনের ন্যাশনাল সিকিউরিটি ফোর্সের অভিযান ই ফুটে উঠে পুরো সিরিজটিতে।

প্রথম দুই পার্টে দেখানো হয় মুদ্রা ছাপাখানার সবাইকে জিম্মিকে করে ২.৪ বিলিয়ন ইউরো নিয়ে পালানোর চেষ্টা করার কাহিনী। তৃতীয় পর্বে দেখানো হয়েছে ব্যাংক অব স্পেন-এ লুট করার চেষ্টার কাহিনী। আগামি মাসে সিরিজের চতুর্থ পর্ব আসার কথা।