চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

প্রেম থেকে মুহূর্ত, মুহূর্তগুলো জমে সৃষ্টি হয় ভালোবাসা: আরিয়ান

‘ভালোবাসার গল্পে যেসব মুহূর্ত লাগে, সেগুলো নিয়ে বেশি ভাবি। একটি প্রেম হতে ছোট ছোট মুহূর্ত জমতে হয়। ছোট ছোট অনুভূতি জন্মাতে জন্মাতে মায়া তৈরি হয়। সেই মায়াটা ধীরে ধীরে সম্পর্ক মজবুতে রূপ নেয়। এই মুহূর্তগুলো যত সুন্দর হয়, প্রেমটাও ততোটা সুন্দর হয়। আমি এগুলো নিয়ে বেশি ভাবি। সে কারণে হয়তো মানুষ আমার কাজ পছন্দ করেন।’

বলছিলেন ছোটপর্দার সুপরিচিত নির্মাতা মিজানুর রহমান আরিয়ান। যিনি ‘বড় ছেলে’, ‘ব্যাচ ২৭’, ‘বুকের বা পাশে’, ‘গজদন্তিনী’, ‘লাফ’, ‘সংসার’র মতো জনপ্রিয় নাটকের পরিচালক। নির্মাতা হিসেবেও তৈরি করেছেন আলাদা ‘ফ্যান বেইজ’!

Reneta June

তার বানানো ‘বড় ছেলে’ নাটকটি ইউটিউব থেকে চার কোটি দর্শক দেখেছেন। ২০১৭ সালে প্রচার হওয়া অপূর্ব-মেহজাবীন অভিনীত এ নাটকটি বাংলাদেশী নাটকের মধ্যে এটি এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ পরিমাণে ইউটিউব ভিউয়ের রেকর্ড অর্জন করে।

বিজ্ঞাপন

শুধু তাই নয়, ওয়েব ফিল্ম বানিয়েও হইচই ফেলে দিয়েছিলেন আরিয়ান। চরকি অ্যাপে তার বানানো ‘নেটওয়ার্কের বাইরে’ ওয়েব ফিল্মটি গত বছর সাড়া ফেলে। একদল তরুণের প্রেম, বন্ধুত্ব, ভ্রমণ ও ট্রাজেডির গল্প বানিয়ে দেশিয় ওটিটি কনটেন্টে ব্যাপক আলোচিত হয়েছিলেন মিজানুর রহমান আরিয়ান।

আগামী ঈদের জন্য পাঁচটি নাটক বানিয়েছেন আরিয়ান। যেগুলোতে অভিনয় করেছেন তৌসিফ, জোভান, খাইরুল বাশাররা।

মিজানুর রহমান আরিয়ান জানান, জোভান-মেহজাবীনের ‘ব্যবধান’, তৌসিফ-ফারিণের ‘এখানেই শেষ নয়’, খাইরুল বাশার-তানজিন তিশার ‘অদ্ভুত তো আপনি!’, জোভান-তটিনীর ‘সুহাসিনী’ এবং তৌসিফ-সাদিয়া আয়মানের ‘ফুলের নামে নাম’; এই পাঁচটি নাটক নির্মাণ করেন। সবগুলোর শুটিং শেষ। পোস্ট প্রডাকশনের কাজ চলছে। বিভিন্ন টিভিতে নাটকগুলো প্রচার হবে।

সবসময় যেমন গল্প বলে থাকেন আসন্ন ঈদের নাটকগুলো তেমন গল্পের জানিয়েছে আরিয়ান বলেন, যতটা পারা যায় সুন্দরভাবে প্রেজেন্ট করার চেষ্টা করেছি। সবসময়ই চাই আমার কাজগুলো জনপ্রিয় হোক। আমার উদ্দেশ্য থাকে যেসব কনটেন্ট বানাই সেগুলো যেন জনপ্রিয় হয়। জনপ্রিয় হওয়া যদি ভিউয়ের উপর নির্ভর করে তাহলে আমি চাই ভালো কনটেন্ট থেকে যেন বেশি ভিউ আসে।

পর্দায় ভালোবাসা গল্প বলতে জুড়ি আরিয়ানের। দর্শকের কাছে তিনি ‘ভালোবাসার গল্প কথক’। তার নির্মাণ মুন্সিয়ানার ম্যাজিকটা কি?

আরিয়ানের উত্তর, সবার প্রেমের অনুভূতিগুলো ঘুরে ফিরে একই রকম হয়। সেই অনুভূতি গুলো স্ক্রিনে এনে মানুষের সঙ্গে কানেক্ট করানোর চেষ্টা করি। গল্পের প্রয়োজনে যেসব মুহূর্ত দরকার সেগুলো করে থাকি। প্রেম থেকে মুহূর্ত, মুহূর্তগুলো জমে সৃষ্টি হয় ভালোবাসা।