চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পণ্ডিত শিবকুমারের অন্তিমযাত্রায় অমিতাভ-জয়া

মঙ্গলবার (১০ মে) মুম্বাইয়ে নিজের বাড়িতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান বিখ্যাত সন্তুরবাদক পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা। তার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে।

বুধবার (১১ মে) পণ্ডিত শিবকুমারের শেষকৃত্যে সংগীতশিল্পীর বাড়িতে পৌঁছান বলিউড মেগাস্টার অমিতাভ বচ্চন এবং জয়া বচ্চন। এদিন শিবকুমারের স্ত্রী মনোরমা এবং পুত্র রাহুল শর্মার সঙ্গে দেখা করেন এই তারকা দম্পতি।

Reneta June

তারকা দম্পতি জুতা খুলে খালি পায়ে শিবকুমারের মরদেহের সামনে গিয়ে তাকে শ্রদ্ধা জানান। এসময় তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন জয়া।

বিজ্ঞাপন

মূলত অমিতাভ-জয়া-রেখার জনপ্রিয় ছবি ‘সিলসিলা’তে সুর দিয়েছিলেন প্রয়াত সন্তুরবাদক। তারই সুবাদে ছবিটির দুই অভিনেতা-অভিনেত্রী শিবকুমারের অন্তিমযাত্রায় তাকে শ্রদ্ধা জানাতে উপস্থিত হয়েছিলেন।

এছাড়াও পণ্ডিত শিবকুমারের শেষকৃত্যে আরও উপস্থিত ছিলেন জাভেদ আখতার, শাবানা আজমী সহ বলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির আরও অনেকে।

হরিপ্রসাদের সঙ্গে জুটি বেঁধে শিবকুমার বলিউডের মূল ধারার বহু ছবিতে সুর দিয়েছিলেন। যার মধ্যে অন্যতম ১৯৮১ সালের বিখ্যাত ছবি ‘সিলসিলা’। সেই ছবির ‘দেখা এক খোয়াব’, ‘ইয়ে কাহাঁ আ গ্যায়ে হাম’-এর মতো জনপ্রিয় গান আজও মানুষের কানে বাজে। এ ছাড়া যশরাজ ফিল্মসের একাধিক বাণিজ্যিক ছবিতেও তাদের সুর শোনা গিয়েছে।

১৯৩৮ সালের ১৩ জানুয়ারি জম্মুর একটি সম্ভ্রান্ত সংগীতজ্ঞ পরিবারে জন্ম শিবকুমারের। তার বাবা উমা দত্তশর্মা ছিলেন প্রথিতযশা সংগীত শিল্পী। মাত্র পাঁচ বছর বয়স থেকেই শিবকুমার তার বাবার কাছ থেকে শাস্ত্রীয় সংগীতে প্রশিক্ষণ নেওয়া শুরু করেন।

উমা সন্তুর নিয়ে অনেক গবেষণা করেন এবং সিদ্ধান্ত নেন যে, পুত্রকে তিনি ভারতীয় শাস্ত্রীয় সংগীতের সন্তুরবাদক হিসেবে গড়ে তুলবেন। এই চিন্তা থেকে শিবকুমারকে তেরো বছর বয়স থেকে সন্তুরের প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু করেন। পরবর্তী কালে ‘সন্তুর’ যন্ত্রটি নিয়ে নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন শিবকুমার। পরে শিবকুমার চলে আসেন মুম্বাই। তার বিচরণক্ষেত্র গোটা বিশ্ব হলেও মূলত তিনি কাজ করেছেন মুম্বাই থেকেই।

সংগীত নাটক একাডেমি-সহ জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক বহু পুরস্কার পেয়েছেন শিবকুমার। ২০০১ সালে পান পদ্মবিভূষণ। এ ছাড়াও আমেরিকার সম্মাননীয় নাগরিকত্ব প্রদান করা হয় তাকে।

বাংলাদেশে আয়োজিত বেঙ্গল উচ্চাঙ্গসংগীতের আসরে বেশ কয়েকবার এসেছেন এই শাস্ত্রীয় সংগীতের এই পণ্ডিত। মনোমুগ্ধকর সন্তুর বাজিয়ে দর্শক শ্রোতার মন জয় করেন এই গুণী সংগীতজ্ঞ।