চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নেইমার-কাভানি-এমবাপেতে বিধ্বস্ত সেল্টিক

দুর্দান্ত নেইমার জোড়া গোল করলেন, এডিনসন কাভানিও পিছিয়ে থাকলেন না, সঙ্গে কাইলিয়ান এমবাপে, দানি আলভেজ ও মার্কো ভেরাত্তির গোলে সেল্টিককে বিধ্বস্ত করেছে পিএসজি।

বুধবার রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বে সেল্টিককে ৭-১ গোলে হারিয়েছে প্যারিস জায়ান্টরা। প্রথম পর্বের দেখায় স্কটিশ দলটিকে ৫-০ গোলে উড়িয়েই টুর্নামেন্ট শুরু করেছিল উনাই এমেরির শিষ্যরা।

এই জয়ে ‘বি’ গ্রুপের শীর্ষে থেকেই শেষ ষোলোতে পা রাখল পিএসজি। ৫ ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট তাদের। রাতের অন্য ম্যাচে আন্ডারলেখটকে ২-১ গোলে হারিয়ে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করেছে বায়ার্ন মিউনিখও, জার্মান জায়ান্টদের পয়েন্ট ১২। সেখানে ৩ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে সেল্টিক। আন্ডারলেখট এখনও কোন পয়েন্ট বাগাতে পারেনি।

ঘরের মাঠে ম্যাচের প্রথম মিনিটেই গোল খেয়ে তেতে উঠে প্রতিপক্ষের উপর হামলে পড়ে ফ্রান্স জায়ান্টরা। সেল্টিকের মুসা ডেম্বেলের গোলের পর ৯ মিনিটেই সমতা ফেরান নেইমার। এসময় আদ্রিও রাবিওর বাড়ানো বলে বক্সের মধ্য থেকে কোনাকুনি শটে জাল খুঁজে নেন ব্রাজিল তারকা।

বিজ্ঞাপন

পরে নেইমারের গোলেই লিড নেয়ে পিএসজি। ২২ মিনিটে রাবিও বল ঠেলে দেন নেইমারের দিকে। তা ভেরাত্তির সঙ্গে দেয়া-নেয়া করে বক্সের মধ্য থেকে আরেকটি আড়াআড়ি শটে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন নেইমার। চলতি আসরে যেটি তার ষষ্ঠ গোল।

ম্যাচের ২২ মিনিটে স্কোরশিটে নাম তোলেন কাভানি। উৎস প্রথম দুই গোলের নায়ক নেইমার। আলভেজের ক্রসে আসা বল নেইমার ঠেলে দেন বক্সের মধ্যে। সেটি নিরাপদেই জালে পাঠিয়ে দেন উরুগুয়ে তারকা।

বিরতির আগেই চতুর্থ গোলটি পেয়ে যায় স্বাগতিকরা। এবার গোলদাতা এমবাপে। ৩৫ মিনিটে বুলেট গতির এক শটে প্রতিপক্ষের জাল খুঁজে নেন ফরাসি তারকা।

দ্বিতীয়ার্ধে ফিরেও গোলক্ষুধা কমেনি পিএসজির। ৭৫ মিনিটে আরেকদফা ব্যবধান বাড়ান ভেরাত্তি।

চার মিনিট পর হাভিয়ের পাস্তোরের ক্রসে বল পেয়ে দর্শনীয় ভলিতে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন কাভানি। চলতি আসরে এটি তারও ষষ্ঠ গোল। আর ৮০ মিনিটে সেল্টিকের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন আলভেজ।

বিজ্ঞাপন