চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নির্ধারিত নিয়ম মেনেই ছাত্রদলের সম্মেলন হবে: রিজভী

দলীয় হাইকমান্ডের নির্ধারিত সময় ও নিয়ম অনুযায়ী ছাত্রদলের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

চ্যানেল আই অনলাইন-কে তিনি বলেন: দলীয় হাইকমান্ড ছাত্রদলের কমিটির জন্য যে নিয়ম নির্ধারণ করেছে তা যথাযথ ও প্রশংসনীয়। অনেকে এর প্রশংসা করছেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন: আন্দোলনকারীরা যে জন্য আন্দোলন করছে সে বিষয়ে আমি বলতে চাই না। তারাও আমাদের ছোট ভাই। তাদের চাওয়া থাকতে পারে। কিন্তু নিয়ম হচ্ছে দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নেয়া। সবাই তো আর এমপি-মন্ত্রী হতে পারে না। তাই বলে দলের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করা যাবে না।

বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানী বলেন: ১৫ জুলাই সম্মেলনের সমস্ত প্রস্তুতি গ্রহণ করছি। নির্ধারিত নিয়মেই সম্মেলন হবে ইনশাল্লাহ।

তিনি বলেন: যারা আন্দোলন করছে তাদের বয়স হয়েছে, তারা এখন অন্য অঙ্গ সংগঠনে দায়িত্ব পালন করবে। সুযোগতো আছেই।

বিজ্ঞাপন

২০০০ সালের এসএসসিকে সর্বোচ্চ বয়সসীমা নির্ধারণ করে ছাত্রদলের প্রার্থিতার যোগ্যতা নির্ধারণ করেছে দলীয় হাইকমান্ড। ১৫ জুলাই সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নির্বাচন হবে প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে। কিন্তু ছাত্রদলের একটি অংশ দলীয় এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বেশ ক’দিন ধরে আন্দোলন করে যাচ্ছে। এরই মধ্যে দলের সিদ্ধান্ত অগ্রাহ্য করায় আন্দোলনরত ছাত্রদলের ১২ নেতাকে বহিষ্কার করা হয়। এতে তারা আরো বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে।

গতকাল নয়াপল্টনে উত্তেজনা তৈরি হয়। হঠাৎ ঝটিকা মিছিল নিয়ে তারা দলীয় কার্যালয়ে হামলা চালায়। একইভাবে আজও ছাত্রদলের দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা যায়।

বয়স্ক নেতাদের দাবি, আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়া ১২ নেতার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার, আসন্ন কাউন্সিলে বয়সসীমা তুলে দিয়ে নিয়মিত কমিটির দাবি ও পুনঃতফসিল ঘোষণা।

নিজেদের দাবির কথা পুনরায় স্মরণ করে দিয়ে দুপুর সোয়া একটার সময় বিক্ষুব্ধরা নয়াপল্টন থেকে সরে যায়।

এর পর থেকে কাউন্সিলের পক্ষে থাকাদের একটি গ্রুপকে কাউন্সিলকে স্বাগত জানিয়ে মিছিল করতে দেখা যায়।

সে সময় ছাত্রদলের নেতা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার এ সময় সাংবাদিকদের জানান: সঠিক সময়ে কাউন্সিল হবে বলে আশা করি। যারা আন্দোলন করছেন তাদের অধিকার আছে তা করার। আমরা আশা করবো তাদের আন্দোলনে যেন কোনো বহিরাগত না আসে।