চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

না থেকেও ছিলেন ট্রাম্প

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রার্থীদের আইওয়ার শেষ টিভি বিতর্কে ডোনাল্ড ট্রাম্প-এর অনুপস্থিতেতে তার তীব্র সমালোচনা করেছেন অন্য প্রার্থীরা। ফক্সনিউজের উপস্থাপক ম্যাগান কেলির বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগে এই বিতর্ক বয়কট করেন ট্রাম্প। পরিবর্তে যুদ্ধ ফেরত সেনাদের র‌্যালিতে যোগ দিয়েছেন তিনি।

কানায় কানায় পূর্ণ লেস ময়েনস মিলনায়তনে ফক্স নিউজ বিতর্কে উপস্থিত না থেকেও পুরোটা জুড়েই ছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সোমবার আইওয়া অঙ্গরাজ্যের ভোটাররা নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী নির্বাচনে নিজ দলের প্রতিনিধি নির্বাচনে ভোট দেবেন।

তবু ট্রাম্পের অনুপস্থিতি অন্য ৭ রিপাবলিকান প্রার্থীদের বিতর্ককে পরিণত করেছে গৃহপালিত বিতর্কে । তাদের বিতর্ক মূলত অভিবাসী নীতিতেই আটকে ছিল।

Advertisement

লেস ময়েন্স-এর টিভি বিতর্কে ডোনাল্ড ট্রাম্পের অনুপস্থিতিতে অন্য রিপাবলিকান প্রার্থীরা তাঁকে নিয়ে কৌতুক করতে ছাড়েননি। কেউ তাকে ‘টেডি বিয়ার’, ‘বিনোদন ব্যক্তিত্ব’ অভিধা দিলেও জরিপে ট্রাম্পের জনপ্রিয়তার ব্যারোমিটার বেড়েই চলেছে।

নিজেদের মধ্যে পারস্পরিক বিতর্ক ছাড়িয়ে ডেমোক্রেটিক প্রার্থী হিলারি ক্লিন্টনের প্রার্থীতার যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন কার্লি ফিওরিনা।

গুগলের অনুসন্ধানে সবাইকে ছাড়িয়ে ট্রাম্পই সর্বোচ্চ অনুসন্ধানী প্রার্থী হয়েছেন। যুদ্ধফেরত সেনাদের সমাবেশে ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা করেছেন, ফক্স নিউজ ক্ষমা চেয়েও তাঁকে বিতর্কে নিতে পারেনি। আর ফক্স বলছে, ট্রাম্প ৫ মিলিয়ন ডলার তার দাতব্য সেবায় দান করার শর্ত দিয়েছেন, যা দিতে ফক্স নিউজ অস্বীকার করায় বিতর্কে যোগ দেননি।

ফক্স নিউজ টিভি বিতর্কের পর কে প্রেসিডেন্ট হবেন এমন জরিপে রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী-টেড ক্রুজ ১৯%, মার্কো রুবিও ২৬%, জেব বুশ ৪%, বেন কারসন ১%, র‌্যান্ড পল, রিক সান্তোরাম ১%, কার্লি ফিওরিনা ১% এবং ক্রিস ক্রিস্টি ১% সবাই ছিলেন, শুধু ছিলেন না ডোনাল্ড ট্রাম্প, তার পক্ষে সর্বোচ্চ সমর্থন ৪৯%।